পেট্রলপাম্পের ধর্মঘট স্থগিত
০২ডিসেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশের তিন বিভাগের ২৬ জেলায় চলা পেট্রল পাম্পের ধর্মঘট স্থগিত করেছেন আন্দোলনকারীরা। আগামী ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত এ ধর্মঘট স্থগিত করা হয়েছে। আজ সোমবার ঢাকায় বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি) সঙ্গে পেট্রোল পাম্প মালিকদের এক আলোচনায় ধর্মঘট প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত হয় ৷ দেশের তিন বিভাগে ধর্মঘটে থাকা পেট্রোল পাম্প ওনার্স অ্যাসেসিয়েশনের নেতাদের সঙ্গে জ্বালানি তেল আমদানি ও সরবরাহকারী রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন-বিপিসির সমঝোতা বৈঠকের পর ধর্মঘট স্থগিতের এই ঘোষণা আসে। এর আগে আজ সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় কারওয়ানবাজারে বিপিসির লিয়াজোঁ কার্যালয়ে কোম্পানির পরিচালক (বিপণন) সৈয়দ মেহদী হাসানের সভাপতিত্বে এই বৈঠক হয়। এর আগে বাংলাদেশ পেট্রলপাম্প ও ট্যাংক-লরি মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ ১৫ দফা দাবিতে এ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিলেন। ধর্মঘটের কারণে স্বল্প ও দূরপাল্লার যানবাহন নিয়ে বেকায়দায় পড়েন চালকরা। এই তিন বিভাগে প্রায় এক হাজার ৩০০ পেট্রলপাম্প একযোগে বন্ধ রাখা হয়েছিল। সেইসঙ্গে ডিপো থেকে তেল উত্তোলনও বন্ধ ছিল। তাদের ১৫ দফা দাবির মধ্যে রয়েছে- জ্বালানি তেল বিক্রিতে কমপক্ষে সাড়ে ৭ শতাংশ কমিশন দেওয়া, জ্বালানি তেল ব্যবসায়ীরা কমিশন এজেন্ট নাকি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান- বিষয়টি সুনির্দিষ্ট করা, প্রিমিয়াম পরিশোধ সাপেক্ষে ট্যাংকলরি শ্রমিকদের জন্য ৫ লাখ টাকার দুর্ঘটনা বীমা, ট্যাংকলরির ভাড়া বৃদ্ধি, পেট্রোল পাম্পের জন্য কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের লাইসেন্স গ্রহণের নিয়ম বাতিল, পেট্রোল পাম্পের জন্য পরিবেশ অধিদপ্তরের লাইসেন্স নেওয়ার নিয়ম বাতিল, পেট্রোল পাম্পে অতিরিক্ত পাবলিক টয়লেট করা, জেনারেল স্টোর ও ক্লিনার নিয়োগের বিধান বাতিল করা, সড়ক ও জনপথ বিভাগ কর্তৃক পেট্রোল পাম্পের প্রবেশ দ্বারের ভূমির জন্য ইজারা নেওয়ার নিয়ম বাতিল, ট্রেড লাইসেন্স ও বিস্ফোরক লাইসেন্স ছাড়া অন্য দপ্তর বা প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স নেওয়ার নিয়ম বাতিল, আন্ডারগ্রাউন্ড ট্যাংক ৫ বছর অন্তর বাধ্যতামূলকভাবে ক্যালিব্রেশনের নিয়ম বাতিল করা। এছাড়া ট্যাংকলরি চলাচলে পুলিশি হয়রানি বন্ধ করা, সুনির্দিষ্ট দপ্তর ছাড়া ডিলার বা এজেন্টদের অযথা হয়রানি বন্ধ করা, নতুন কোনো পেট্রোল পাম্প নির্মাণের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় জ্বালানী তেল মালিক সমিতির ছাড়পত্রের বিধান চালু করা, পেট্রোল পাম্পের পাশে যে কোনো স্থাপনা নির্মাণের আগে জেলা প্রশাসকের অনাপত্তিপত্র গ্রহণ বাধ্যতামূলক করা এবং বিভিন্ন জেলায় ট্যাংকলরি থেকে চাঁদা গ্রহণ বন্ধ করার দাবি করা হয়।
অসৎ পথে বিরিয়ানির চেয়ে সৎ পথে নুন-ভাত ভালো: প্রধানমন্ত্রী
০২ডিসেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদ, মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে তার সরকারের চলমান অভিযান অব্যাহত রাখার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করে বলেছেন যে, সমাজের এই অসুস্থতা নির্মূল করা হবে। স্পেন সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার (১ ডিসেম্বর) স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় হোটেল ভিলা ম্যাগনায় প্রবাসী বাংলাদেশীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে এ কথা বলেন। তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর ২১ বছর ধরে দেশ শাসনকারীদের অপকর্মের কারণে অনেক ময়লা ও আবর্জনা জমে গেছে এবং মানুষের চরিত্রে ভাঙন ধরেছে। স্পেনে ও ইউরোপের অন্যান্য দেশে বসবাসকারী প্রবাসী বাংলাদেশিসহ আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। নিজেকে বাংলাদেশের জনগণের সার্বক্ষণিক কর্মী হিসেবে অভিহিত করে শেখ হাসিনা বলেন, তিনি জনসাধারণের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটানোর জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, আমি বাংলাদেশের জনগণের একজন সার্বক্ষণিক কর্মী। আমি বিরামহীনভাবে কাজ করে যাচ্ছি যাতে শহর ও গ্রাম উভয় এলাকার মানুষ আমাদের কাজের সুফল পেতে পারে। শেখ হাসিনা আরও বলেন, এক শ্রেণির মানুষ ঘুষ-দুর্নীতিতে লিপ্ত হয়ে সন্ত্রাস করে, লোকজনের সম্পদ ছিনিয়ে নিয়ে বিলাসী জীবন-যাপন করতে চায় এবং তারা বলতে চায় যে মুই কি হনুরে। তিনি বলেন, কিন্তু আমরা চাই জনগণের মধ্যে এই ধরণের মানসিকতা থাকবে না এবং সমাজের এই অসুস্থতা নির্মূল করতে হবে। শেখ হাসিনা বলেন, অসৎ পথে থেকে বিরিয়ানি খাওয়ার চেয়ে সৎ পথে থেকে নুন-ভাত খাওয়া অনেক ভাল। আমরা জাতির জনকের কাছ থেকে এই শিক্ষা পেয়েছি। আমাদের নতুন প্রজন্মকে এই শিক্ষা দিতে হবে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী অর্থনীতি থেকে খেলাধুলা সকল ক্ষেত্রে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের নাম শুনলে অন্যান্য দেশের মানুষ এখন বাংলাদেশকে সম্মান করে। কিন্তু তারা আগে জানতো যে বাংলাদেশ হচ্ছে বন্যা, খরা, দুর্ভিক্ষ ও দুর্নীতির দেশ। তিনি আরও বলেন, আমরা সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদ, মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছি। দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে এই অভিযান অব্যাহত থাকবে। শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি-জামাত সরকারের সময় বাংলাদেশ পাঁচবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। কিন্তু এখন সে দুর্নাম ঘুচে গেছে। প্রধানমন্ত্রী দেশের অদম্য অগ্রগতি অব্যাহত রাখার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন যাতে বাংলাদেশকে আর কখনও পিছনে ফিরে তাকাতে না হয়। তিনি বলেন, আমরা পরিকল্পনা মাফিক কাজ করে যাচ্ছি যাতে আগামী প্রজন্ম একটি সুন্দর জীবন লাভ করে।সূত্র: বাসস
রাজিব-দিয়া মামলা: চালকসহ তিন জনের যাবজ্জীবন
০১ডিসেম্বর,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাসচাপায় রাজধানীর শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী রাজিব-দিয়ার মৃত্যুর মামলায় দুই চালক মাসুম বিল্লাহ ও জুবায়ের সুমনসহ হেলপার কাজী আসাদকে যাতজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছে ঢাকার মহানগর সিনিয়র দায়রা জজ আদালত। হেলপার কাজী আসাদ পলাতক রয়েছে। এ মামলা থেকে খালাশ পেয়েছেন বাসের মালিক ও অপর এক হেলপার। প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ২৫শে অক্টোবর আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জগঠন করা হয়। এর আগে গত ৬ সেপ্টেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে গোয়েন্দা পুলিশ। ২০১৮ সালের ২৯শে জুলাই জাবালে নূর পরিবহনের দুইটি গাড়ি বেপরোয়া ভাবে চালিয়ে একটি বাস রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের কয়েকজন ছাত্র ছাত্রীর উপর তুলে দিলে দিয়া খানম মিম ও আব্দুল করিম রাজীব নিহত হয়। এর প্রতিবাদে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনে নামে সারাদেশের শিক্ষার্থীরা। স্থবির হয়ে পড়ে রাজধানীর যান চলাচল।
মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় লজিস্টিক সাপোর্ট দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ
০১ডিসেম্বর,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভ্রাম্যমাণ আদালত (মোবাইল কোর্ট) পরিচালনার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় জনবল ও লজিস্টিক সাপোর্ট দিতে স্বরাষ্ট্র সচিবকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। হাইকোর্টের তলব আদেশে Rabর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম হাজির হলে আজ রোববার বিচারপতি বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন। এর আগে গত ১৮ নভেম্বর সারোয়ার আলমকে তলব করেন হাইকোর্ট। ভ্রাম্যমাণ আদালত এক ব্যক্তিকে সাজা দেওয়ার পর চার মাস পার হলেও আদেশের কপি না দেওয়ার ব্যাখ্যা দিতে তাকে তলব করা হয়। আজ সকালে তলব আদেশে হাজির হয়ে সারোয়ার আলম আদালতের কাছে নি:শর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করে ভবিষ্যতে আর এমনটি হবে বলে জানান। একই সঙ্গে ওই রায়ের কপি দিতে বিলম্বের কারণ হিসেবে নবল ও লজিস্টিক সাপোর্টের অভাবের বিষয়টি আদালতের কাছে তুলে ধরেন। তিনি আদালতে বলেন, একদিনে বিভিন্ন জায়গায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। পরে ঢাকায় ফিরে এসে রায় লিখতে হয়। এ পরিপ্রেক্ষিতে আদালত জনবল ও লজিস্টিক সাপোর্ট দেওয়ার নির্দেশ দেন। আদালতে মো. সারোয়ার আলমের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মাসুদ হাসান চৌধুরী পরাগ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার। জানা যায়, চলতি বছরের ১৮ জুলাই অভিযান চালিয়ে Rabর ভ্রাম্যমাণ আদালত মিজান মিয়াকে এক বছরের কারাদণ্ড দেন। নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের তপু এন্টারপ্রাইজ নামে একটি পশুখাদ্য প্রস্তুতকরণ কারখানার ব্যবস্থাপক মিজান। পরে ওই সাজার আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করার জন্য আদেশের কপি চান। কিন্তু সাজা দেওয়ার চার মাস পরও আদেশের কপি দেওয়ার ক্ষেত্রে নিষ্ক্রিয়তা চ্যালেঞ্জ করে মো. মিজান মিয়া গত ১৭ নভেম্বর রিটটি করেন।-আলোকিত বাংলাদেশ
এলো বিজয়ের মাস
০১ডিসেম্বর,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আজ থেকে শুরু হচ্ছে মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত বিজয়ের মাস ডিসেম্বর। ত্রিশ লাখ শহীদ আর দু লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমহানির বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতার সাক্ষর এবারের বিজয়ের মাস বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার সঙ্গে নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পালিত হবে। বাংলাদেশের সুদীর্ঘ রাজনৈতিক ইতিহাসে শ্রেষ্ট্রতম ঘটনা হলো ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধ। সশস্ত্র স্বাধীনতা সংগ্রামের এক ঐতিহাসিক ঘটনার মধ্য দিয়ে বাঙ্গালি জাতির কয়েক হাজার বছরের সামাজিক, রাজনৈতিক,ও অর্থনৈতিক স্বপ্ন সাধ পূরন হয় এ মাসে। বাঙালি জাতির সর্বশ্রেষ্ঠ অর্জন মুক্তিযুদ্ধের অবিস্মরণীয় গৌরবদীপ্ত চূড়ান্ত বিজয় এ মাসের ১৬ ডিসেম্বর অর্জিত হয়। স্বাধীন জাতি হিসেবে সমগ্র বিশ্বে আত্মপরিচয় লাভ করে বাঙালিরা। অর্জন করে নিজস্ব ভূ-খন্ড। আর সবুজের বুকে লাল সূর্য খচিত নিজস্ব জাতীয় পতাকা। ভাষার ভিত্তিতে যে জাতীয়তাবাদ গড়ে উঠেছিল, এক রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর বিজয়ের মাধ্যমে ঘোষিত স্বাধীনতা পূর্ণতা পায় এ দিনে। বাঙালির হাজার বছরের স্বপ্নপূরণ হবার পাশাপাশি বহু তরতাজা প্রাণ বিসর্জন আর মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে এই অর্জন হওয়ায় বেদনাবিঁধূর এক শোকগাঁথার মাসও এই ডিসেম্বর। এ মাসেই স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি তাদের এদেশীয় দোসর রাজাকার-আলবদর আল শামসদের সহযোগিতায় দেশের মেধা, শ্রেষ্ঠ সন্তান-বুদ্ধিজীবী হত্যার নৃশংস হত্যাযজ্ঞে মেতে ওঠে। সমগ্র জাতিকে মেধাহীন করে দেয়ার এধরনের ঘৃণ্য হত্যাযজ্ঞের দ্বিতীয় কোন নজীর বিশ্বে নেই। ১৯৭১ সালের ডিসেম্বর মাসের শুরু থেকেই মুক্তিযোদ্ধাদের গেরিলা আক্রমণ আর ভারতীয় মিত্রবাহিনীর সমন্বয়ে গঠিত যৌথবাহিনীর জল,স্থল আর আকাশপথে সাঁড়াশি আক্রমণের মুখে বর্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর পরাজয়ের খবর চারদিক থেকে ভেসে আসতে থাকে। এ বছরের ১৬ ডিসেম্বর ঢাকার ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) পাকিস্তানি বাহিনী আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হয়। যেখান থেকে ৭ মার্চ স্বাধীনতার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম,বলে স্বাধীনতার ডাক দেন, সেখানেই পরাজয়ের দলিলে স্বাক্ষর করেন পাকিস্তানি জেনারেল নিয়াজী। ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হয়। আর জাতি অর্জন করে হাজার বছরের স্বপ্নের স্বাধীনতা। ৭১ এর ২৫ মার্চ কালরাতে পাকিস্তানী জল্লাদ বাহিনী নিরস্ত্র জনগণের উপর অতর্কিতে সশস্ত্র আক্রমণ চালিয়ে হাজার হাজার মানুষ হত্যা করে নিরস্র বাঙালির ওপর এক অসম যুদ্ধ চাপিয়ে দেয়। বঙ্গবন্ধু একাত্তরের ২৫ মার্চ রাতে পাক বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হবার আগে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাধীনতার ঘোষণা দেন এবং তার ডাকে সাড়া দিয়ে বাঙালি জাতি ঐক্যবদ্ধভাবে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে। ২৫ মার্চ রাতেই রাজারবাগ পুলিশ লাইনে সশস্র প্রতিরোধের সম্মুখীন হয় পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী। দীর্ঘ ৯ মাসের সশস্ত্র জনযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদ এবং ২ লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমহানির বিনিময়ে ১৬ ডিসেম্বর জাতির চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হয়। মহান এ বিজয়ের মাস উদযাপনে জাতীয় কর্মসূচির পাশাপাশি বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের পক্ষ থেকে বিস্তারিত কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। মহান বিজয় দিবস ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু পরিষদের উদ্যোগে মাসব্যাপি কর্মসূচির উদ্বোধন ও আলোচনা সভা আজ সকাল ১০ টায় পরিষদের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে। পদক্ষেপ বাংলাদেশ- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হাকিম চত্ত্বরে জাতীয় সংগঠন ও শিল্পীদের অংশগ্রহণে বিজয় মাসের প্রথম প্রভাত শীর্ষক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। আজ সকাল ৭টায়- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হাকিম চত্ত্বরে অনুষ্ঠিতব্য এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন বাদল চৌধুরী। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ। আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও এফ এফ ফাউন্ডেশন এ উপলক্ষে পৃথক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। আজ সকাল সাড়ে দশটায় মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের সামনে থেকে বীর মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম সমন্বয়ে শোভা যাত্রা বের করা হবে।
স্পেনের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়লেন প্রধানমন্ত্রী
০১ডিসেম্বর,রবিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: তিন দিনের সরকারি সফরে স্পেনের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছেড়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রোববার (১ ডিসেম্বর) বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইটে প্রধানমন্ত্রী এবং তাঁর সফরসঙ্গীদের নিয়ে স্পেনের উদ্দেশ্যে রওনা দেন। বিমানটির স্পেনের স্থানীয় সময় বিকেল ৫টা ৪০ মিনিটে মাদ্রিদ টোরেজন বিমানবন্দরে অবতরণের কথা রয়েছে। স্পেনে বিশ্ব পর্যটন সংস্থায় বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি এবং রাষ্ট্রদূত হাসান মাহমুদ খন্দকার বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাবেন। প্রধানমন্ত্রী রাজধানী মাদ্রিদে অনুষ্ঠেয় রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের ২৫তম বার্ষিক শীর্ষ সম্মেলন (কপ-২৫) এ যোগ দেবেন। জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত জাতিসংঘ ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশনের ২৫তম বার্ষিক সম্মেলন (ইউএনএফসিসিসি) ২-১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত মাদ্রিদে অনুষ্ঠিত হবে। সোমবার সকালে প্রধানমন্ত্রী স্পেনের সর্ববৃহৎ প্রদর্শনী কেন্দ্র এবং ইউরোপের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভেন্যু ফিরিয়া দা মাদ্রিদে কপ-২৫ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। পরে, তিনি কপ-২৫র ওয়ার্কিং সেশনে যোগ দেবেন এবং নেদারল্যান্ডসের প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন। শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিক মধ্যাহ্ন ভোজে অংশগ্রহণ করবেন এবং পুনরায় অপরাহ্নে ওয়ার্কিং সেশনে যোগ দেবেন। প্রধানমন্ত্রীর স্পেনের প্রেসিডেন্ট পেড্রো সানচেজের সঙ্গেও দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন। সোমবার সন্ধ্যায় রাজ প্রাসাদে স্পেনের রাজা এবং রানী আয়োজিত সংবর্ধনায় যোগ দেবেন তিনি।
চিকিৎসকরা কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকলে ব্যবস্থা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
৩০নভেম্বর,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন বলেছেন, জনগণের সেবার জন্য ডাক্তারদের চাকরি দেওয়া হয়েছে। নিয়ম বহির্ভূতভাবে কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মানিকগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট সদর হাসপাতাল পরিদর্শনকালে শনিবার দুপুরে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশে এখন ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে। আগামীতে ডেঙ্গু রোগী মোকাবেলা করার জন্য স্বাস্থ্য বিভাগ সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। তবে এডিস মশা নির্মূলের জন্য সিটি করপোরেশন ও পৌরসভাকে সঠিক সময় তাদের দায়িত্ব পালন করতে হবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরো বলেন, আড়াই হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে দেশের আটটি বিভাগে ১৫তলা বিশিষ্ট আটটি নতুন হাসপাতাল নির্মাণ করা হবে। এই হাসপাতালের প্রথম ছয় তলায় ক্যানসার চিকিৎসা করা হবে। এরপরে কিডনির অনুমোদন দেওয়া হবে। কারণ কিডনি রোগীদের ডায়ালিসিসের জন্য ঢাকায় যেতে হয়। ডায়ালিসিস করতে গিয়ে অনেক সময় গরীব মানুষ নিঃস্ব হয়ে যায়। অনেকে মৃত্যুবরণ করেন। এই কারণে প্রতিটি জেলায় দশ বেডের কিডনি হাসপাতাল নির্মাণ করা হবে। স্বাস্থ্যখাতে বর্তমান সরকারের নানা উন্নয়নচিত্র তুলে ধরে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, গত চার মাসে দুই হাজার ডাক্তারকে সহকারী অধ্যাপক হিসেবে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছে। তারা বিভিন্ন মেডিকেল কলেজে পড়ানোর পাশাপাশি হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা প্রদান করবেন। আগামী ৮ ডিসেম্বর সাড়ে ৪ হাজার নতুন ডাক্তার জেলা উপজেলার বিভিন্ন হাসপাতালে যোগদান করবে। এতে হাসপাতালগুলোতে আর ডাক্তার সংকট থাকবে না। এসময় উপস্থিত ছিলেন মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম, কর্নেল মালেক মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. মো. আখতারুজ্জামান, সিভিল সার্জন ডা. আনোয়ারুল আমিন আখন্দ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট নাদিরা আক্তার, হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক (ভারপ্রাপ্ত) ডা. আব্দুল আওয়াল, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসমাউল হুসনা লিজা, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবর পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. লুৎফর রহমান প্রমুখ।
ডিআরইউর সভাপতি আজাদ, সম্পাদক রিয়াজ
৩০নভেম্বর,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পেশাদার সাংবাদিকদের সংগঠন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) আগামী এক বছরের নেতৃত্ব নির্বাচিত হয়েছে ভোটের মাধ্যমে। এতে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন ইংরেজি দৈনিক ইন্ডিপেন্ডেন্টের বিশেষ প্রতিনিধি রফিকুল ইসলাম আজাদ। আর সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন এশিয়ান মেইল টোয়েন্টিফোর ডটকমের প্রধান প্রতিবেদক রিয়াজ চৌধুরী। সভাপতি পদে নির্বাচিত আজাদ পেয়েছেন ৫৫০ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শাহনেওয়াজ দুলাল পেয়েছেন ৪৮৯ ভোট। আর সাধারণ সম্পাদক পদে বিজয়ী রিয়াজ চৌধুরী পেয়েছেন ৫৬৭ ভোট। আর তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নুরুল ইসলাম হাসিব পেয়েছেন ৫৬৫ ভোট। শনিবার সকাল ৯টা থেকে কার্যনির্বাহী কমিটির এই নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে বিরতিহীনভাবে চলে বিকাল ৫টা পর্যন্ত। ভোট গণনা শেষে সন্ধ্যা পৌনে সাতটার দিকে ফলাফল ঘোষণা করা হয়। এছাড়া বিজয়ীরা হলেন সহসভাপতি পদে নজরুল কবীর; যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে হেলিমুল আলম বিপ্লব; সাংগঠনিক সম্পাদক পদে হাবীবুর রহমান; দপ্তর সম্পাদক পদে জাফর ইকবাল; প্রচার সম্পাদক পদে মাইদুর রহমান রুবেল; তথ্য প্রযুক্তি ও প্রশিক্ষণ সম্পাদক পদে সাখাওয়াত হোসেন সুমন; ক্রীড়া সম্পাদক পদে মজিবুর রহমান; সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে মিজান চৌধুরী। এছাড়া কার্যনির্বাহী পদে বিজয়ী হয়েছেন মইনুল আহসান, এস এম মিজান, আহমেদ মুশফিকা নাজনীন, কামরুজ্জামান বাবলু, ইমরান হাসান মজুমদার, এম মুরাদ হোসেন, সায়ীদ আবদুল মালেক। এর আগে অর্থ সম্পাদক পদে জিয়াউল হক সুমন, নারী বিষয়ক সম্পাদক পদে রীতা নাহার; আপ্যায়ন সম্পাদক পদে এইচ এম আকতার এবং জনকল্যাণ সম্পাদক পদে খালিদ সাইফুল্লাহ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছেন।
অবৈধ টাকা বানানো একটা রোগ: প্রধানমন্ত্রী
৩০নভেম্বর,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, যে একবার টাকা বানাতে থাকে তার বারবার টাকা বানাতে ইচ্ছে করে। আসলে টাকা বানানো একটা রোগ, এটা একটা অসুস্থতা। কিন্তু এ টাকায় শান্তিতে ঘুমানো যায় না। আজ শনিবার (৩০ নভেম্বর) ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, কেউ অবৈধভাবে টাকা উপার্জন করে বিলাসবহুল জীবন যাপন করবেন আর কেউ সৎভাবে জীবন যাপন করে তার জীবনটা নিয়ে কষ্ট পাবেন, তা হতে পারে না। অবৈধভাবে উপার্জিত অর্থ দিয়ে বিরিয়ানি পোলাও খাওয়া আর ব্র্যান্ড পরা থেকে সাদাসিধে জীবনযাপন করা অনেক সম্মানের। শান্তিতে ঘুমানো যাবে। তিনি বলেন, টাকার পেছনে ছুটতে ছুটতে তো নিজের পরিবার ধ্বংসের দিকে যাচ্ছে। কিন্তু ওই টাকার ফলে ছেলে-মেয়ে বিপথে যাবে। পড়াশোনা নষ্ট হবে, মাদকাসক্ত হবে। সেগুলো দেখার সময় নাই। এই ধরনের একটা সামাজিক অবস্থা আমরা চাই না। সৎ পথে কামাই করে যে থাকবে সে সমাজে সম্মান পাবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, চোরা টাকা, দুর্নীতির টাকা নিয়ে যতই বিলাসিতা করুক মানুষ মুখে হয়তো বাহবা দিবে, পেছনে একটা গালিও দিবে। এই কথাটা মনে রাখতে হবে, জাতির পিতা সারাজীবন সাদাসিধে জীবনযাপন করে গেছেন। কাজেই আপনারা যারা তার আদর্শের সৈনিক সেই অনুযায়ী চলতে হবে। নগরবাসীকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পানি ও বিদুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে হবে। চারপাশ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি জামায়াত জোট সারা দেশে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছিল। বিএনপির আমলে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা ভয়ে ঘরে থাকতে পারেননি।বিএনপির সময় বিদ্যুৎ উৎপাদন দুর্নীতির কারণে কমে গিয়েছিল। আমরা এসে বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়িয়েছি। তাদের কাজই হলো দুর্নীতি করা, লুটপাট করা আর মানুষকে নির্যাতন করা। হাওয়া ভবন খুলে লুটপাট করার সুযোগ তৈরি করা হয়েছিল। তিনি আরও বলেন, বিদেশ থেকে এতিমের টাকা এসেছিল, সেই টাকা চলে গেল খালেদা জিয়ার অ্যাকাউন্টে। সেই মামলায় খালেদা জিয়া এখন জেল খাটছেন। তার ছেলেও দশ ট্রাক অস্ত্র মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ যেন উঠে দাঁড়াতে না পারে, সে চেষ্টা করেছিল বিএনপি। খালেদা জিয়ার নির্দেশে সারা দেশে আওয়ামী লীগ নেতাদের ওপর অত্যাচার করা হয়। এর আগে সকাল ১১টার দিকে রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর পর সম্মেলনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়।

জাতীয় পাতার আরো খবর