বুধবার, অক্টোবর ১৬, ২০১৯
মোয়াজ্জেমের অন্যায় অনুযায়ী ব্যবস্থা নিয়েছি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
১৮জুন২০১৯,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: গ্রেপ্তার ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেমকে আদালতে নেয়ার সময় হাতকড়া পড়ানো হয়নি এ সমালোচনার বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, মোয়াজ্জেম হোসেনকে তার অন্যায় অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার সচিবালয়ে সুরক্ষা সেবা বিভাগ ও আওতাধীন দফতর বা সংস্থার মধ্যে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সেখানে সাংবাদিকরা ওসি মোয়াজ্জেমের বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সে কিন্তু নুসরাতের মামলাটা রিসিভ করেছে, মামলাটা রিসিভ করে প্রিন্সিপালকে অ্যারেস্ট করে অলরেডি চালান দিয়ে দিয়েছিল। এগুলো যে সারেন্ডার করে বললেই। সে একটা বোকামি করেছে। যেকোনো মানুষকে কারাগারে নিলে হাতকড়া পড়ানো হয়, মানুষ বলছে তাকে জামাই আদর দেয়া হচ্ছে -এ বিষয়ে আসাদুজ্জামান খান বলেন, কতগুলো নিয়মও তো আছে। সে যে অন্যায় করেছে সেই অন্যায়ের জন্য যতখানি প্রয়োজন আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি। ফেনীতে হত্যাকাণ্ডের শিকার মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির জবানবন্দির ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়ানোর অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় রোববার ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে শাহবাগ থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করে। শাহবাগ থানা পুলিশ সোমবার সকালে তাকে সোনাগাজী পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে। ওইদিনই আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।
ডিআইজি মিজানের ঘুষকাণ্ড তদন্তে কমিটি গঠন
১৮জুন২০১৯,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: পুলিশের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মিজানুর রহমানের ঘুষ লেনদেনের বিষয়টি অনুসন্ধান করে প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টা ২১ মিনিটে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি মিডিয়া সোহেল রানা। পুলিশের এআইজি বলেন, ঘুষ লেনদেনের বিষয়টি অনুসন্ধান করে প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এর আগে অবৈধভাবে অর্জিত সম্পদের অনুসন্ধানকালে দুদকের পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছিরকে ৪০ লাখ টাকা ঘুষ দেওয়ার কথা বলেন পুলিশের ডিআইজি মিজানুর রহমান। এমনকি একটি অডিও রেকর্ডসহ খন্দকার এনামুল বাছিরকে ঘুষ প্রদানের চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস করেন। আর এতে নিজেই বিপাকে পড়েছেন তিনি। ডিআইজি মিজানুর রহমান মিজান দাবি করেছেন, ওই অডিও ক্লিপের দুই ব্যক্তির মধ্যে একজন তিনি নিজে, অন্যজন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছির। তিনি অভিযোগ করেছেন, তার বিরুদ্ধে আনা অবৈধভাবে সম্পদ অর্জনের অভিযোগ তদন্তকালে ঘুষ বাবদ ৪০ লাখ টাকা নিয়েছেন এনামুল বাছির। ডিআইজি মিজানের দাবি, গত ১৫ জানুয়ারি থেকে ২ মে পর্যন্ত দুই দফায় (প্রথমে ২৫ লাখ, পরে ১৫ লাখ) ঘুষের এই টাকা লেনদেন হয়েছে রমনা পার্ক এবং পুলিশ প্লাজায় অবস্থিত ডিআইজি মিজানের স্ত্রীর কাপড়ের দোকানে। তিনি বলেছেন, দুদকের ওই পরিচালক ৫০ লাখ টাকা ঘুষ দাবি করেছিলেন। এর মধ্যে অবশিষ্ট ১০ লাখ টাকা ছাড়াও তিনি তার সন্তানের স্কুলে আসা-যাওয়ার জন্য একটি প্রাইভেট কারও চেয়েছেন। দুদকের ওই পরিচালক ঘুষের টাকা ব্যাংকে বেনামি অ্যাকাউন্টে রাখার চেষ্টা করছেন বলেও দাবি করেছেন বর্তমানে পুলিশ সদর দপ্তরে সংযুক্ত ডিআইজি মিজান।
মাশরাফি-সাকিব-লিটনকে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন
১৮জুন২০১৯,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৭ উইকেটে জিতে রেকর্ড করায় আনন্দের বন্যায় ভাসছে পুরো দেশ। তাইতো দেশবাসীর হয়ে সরকার প্রধান হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাতে ভোলেননি মাশরাফি-সাকিব-লিটনকে। তিনি নিজে খেলা দেখেছেন, জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের জন্য দোয়া করেছেন। এমনকি বাংলাদেশের অবিস্মরণীয় জয়ের পরপরই অধিনায়ক মাশরাফি আর জয়ের নায়ক সাকিব ও লিটন দাসের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি আগামীতে ভালো খেলার জন্য ক্রিকেটারদের শুভ কামনাও জানিয়েছেন তিনি। উইন্ডিজদের দেয়া ৩২১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে বাংলাদেশের লেগেছে মাত্র ৪১.৩ ওভার। সাকিব আল হাসানের বীরোচিত অপরাজিত ১২৪ রান এবং লিটন দাসের অপরাজিত ৯৪ রানের ওপর ভর করে ৫১ বল হাতে রেখেই ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে জয় পায় বাংলাদেশ। এমন অসাধারণ জয়ের পরই বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রতি অভিনন্দনের জোয়ার বইতে শুরু করেছে বিশ্বজুড়ে।
শাহবাগ থেকে গ্রেপ্তার করা ওসি মোয়াজ্জেমকে সোনাগাজী থানায় হস্তান্তর
১৭জুন২০১৯,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঢাকার শাহবাগ থেকে গ্রেপ্তার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনকে ফেনীর সোনাগাজী থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে তাকে হাজির করা হবে ঢাকার আদালতে। এর আগে রোববার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে তাকে শাহবাগ থেকে গ্রেপ্তার করে শাহবাগ থানা পুলিশ। গ্রেপ্তার পরোয়ানা জারির ২০ দিন পর, মোয়াজ্জেমকে গ্রেপ্তার করা হলো। গত ২৭ মে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে আদালত। এদিকে, যত দ্রুত সম্ভব নুসরাত হত্যা মামলার বিচারকাজ শেষ করার কথা জানিয়েছেন, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি জানান, নুসরাত হত্যার ন্যায়বিচার নিশ্চিতে সরকার অঙ্গীকারবদ্ধ। আইনমন্ত্রী বলেছেন, নারীর মর্যাদা ও অধিকার রক্ষায় বাংলাদেশের সংবিধান পুরুষের সঙ্গে নারীর সমঅধিকার প্রদান করলেও প্রতিটি ক্ষেত্রে অনেকে বঞ্চনা ও নির্যাতনের শিকার হন। এ সংক্রান্ত মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য ট্রাইব্যুনালের সংখ্যা বাড়ানো ও বিচারক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। ফলে কমছে মামলা জট। প্রসিকিউটরদের উদ্দেশে তিনি বলেন, মামলাজট গ্রহণযোগ্য মাত্রায় নামিয়ে আনতে হবে, এটিকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিতে হবে। কোন বিচারপ্রার্থীকে বছরের পর বছর আদালতের বারান্দায় দেখতে চাইনা। বিলম্বিত বিচারে বিচারপ্রার্থী আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হন, তার ন্যায়বিচার পাওয়ার পথও সংকুচিত হয়। আর আর অপরাধীও নতুন করে অপরাধ করতে উৎসাহিত হয়।
খুলেছে সুপ্রিম কোর্ট
১৬জুন২০১৯,রবিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: অবকাশকালীন ও পবিত্র ঈদের ছুটি শেষে আজ রোববার খুলেছে সুপ্রিম কোর্ট। আইনজীবী-বিচারপ্রার্থীদের পদচারণায় মুখর সুপ্রিম কোর্ট অঙ্গন। সর্বোচ্চ আদালতে রাজনৈতিক ও জনগুরুত্বপূর্ণ মামলা, রিটের শুনানির অপেক্ষা রয়েছে। এর মধ্যে খালেদা জিয়ার মামলার শুনানির জন্য আদালত স্থানান্তরের রিটের শুনানি, বাজার থেকে ভেজাল না সরানোর বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানকে তলবের শুনানি, মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর নেতা এ টি এম আজহারুল ইসলাম ও জাতীয় পার্টির সাবেক মন্ত্রী সৈয়দ মো. কায়সারের আপিলের শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া বাস দুর্ঘটনায় মারা যাওয়া তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজীবের পরিবারের ক্ষতিপূরণের রায়, যাবজ্জীবন মানে আমৃত্যু কারাদণ্ড বিষয়ে আপিলে অ্যামিকাস কিউরিদের মতামত উপস্থাপন, ওয়াসার পানি নিয়ে প্রতিবেদনের ওপর শুনানির মতো বিভিন্ন হেভিওয়েট মামলা, রিটের রায় ও শুনানি হবে উচ্চ আদালতে। এ সময় সারা দেশের মানুষের দৃষ্টি থাকবে সুপ্রিম কোর্টের দিকে।
রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সিআইসিএর সহযোগিতা চান রাষ্ট্রপতি
১৫জুন২০১৯,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে নিজ ভূমিতে নিরাপত্তা ও মর্যাদার সঙ্গে প্রত্যাবাসনের জন্য সিআইসিএ অংশীদারদের স্বতস্ফূর্ত সমর্থন ও সহযোগিতা চেয়েছেন। শনিবার (১৫ জুন) তাজিকিস্তানের রাজধানী দুশানবের নাভরুজ প্রাসাদে কনফারেন্স অন ইন্টারঅ্যাকশন অ্যান্ড কনফিডেন্স বিল্ডিং মেজার্স ইন এশিয়ার (সিআইসিএ) পঞ্চম সম্মেলনের ভাষণে রাষ্ট্রপতি এ সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়েছে। আমরা এই সংকটের শান্তিপূর্ণ সমাধান চাই, এজন্য তাদের প্রত্যাবাসনে মিয়ানমারের সঙ্গে চুক্তি করেছি। তবে এতে যদি সমস্যার সমাধান না হয়, তাহলে এই সংকট গোটা অঞ্চলে অস্থিতিশীলতা তৈরি করতে পারে। রাষ্ট্রপতি রোহিঙ্গা সংকটের ব্যাপারে বাংলাদেশের অবস্থান তুলে ধরে বলেন, ভয়ঙ্কর গণহত্যা ও ব্যাপকভাবে মানবাধিকার লঙঘনের শিকার রোহিঙ্গা জনগণের জন্য বাংলাদেশ তার দ্বার উন্মুক্ত করে দিয়েছে। জাতিগত নিধন ও সীমাহীন মানবিক বিপর্যয়ের এই ভয়াবহ ঘটনা পাঠ্যবই নজির হিসেবে স্থান পেয়েছে। রাষ্ট্রপতি বলেন, জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গারা নিজ ভূমি থেকে পালিয়ে প্রতিবেশি দেশে আশ্রয় চাওয়ার পরে মানবিক বিবেচনায় বাংলাদেশ সরকার তাদের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়। এই অঞ্চলে বিভিন্ন ইস্যুতে একত্রে কাজ করার ওপর গুরুত্বারোপ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, আমরা সহিংস চরমপন্থি, আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ, জোরপূর্বক উদ্বাস্তু অভিবাসীদের সীমান্ত অতিক্রম করার মতো অনেক গুরুতর সমস্যার মোকবেলা করছি। এজন্য এসব ইস্যুও মোকবিলায় সাড়া দিতে সমন্বিত সহযোগিতা প্রয়োজন। তিনি আরও বলেন, অনিয়মিত অভিবাসন, মাদক পাচার, আঞ্চলিক দাবি, জাতিগত সংঘাত, বিচ্ছিন্নতাবাদ, অর্থনৈতিক সমস্যা এবং দৃশ্যমান জলবায়ু পরিবর্তন এশিয়া অঞ্চলের নিরাপত্তা ক্রমাগত ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠছে। এশিয়ার শান্তি, নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতার উন্নয়নে সহযোগিতা জোরদারে বহুজাতিক সংস্থা সিআইসিএ গঠিত হয়েছে। এই জটিল চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সমন্বিত প্রচেষ্টা ও সক্ষমতা বৃদ্ধি করা প্রয়োজন। এছাড়া তিনি এশিয়ার নিরাপত্তা ও সহযোগিতার ইস্যু সমাধানে সিআইসিএ সদস্য দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানান। রাষ্ট্রপতি হামিদ বলেন, অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য এশিয়ায় নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা প্রয়োজন। সংলাপ ও সহযোগিতার মাধ্যমে আমরা এগুলো অর্জন করতে পারি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গৃহীত বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতির মূলনীতি সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব কারও সঙ্গে শত্রুতা নয় একথা তুলে ধরে রাষ্ট্রপতি আশ্বস্ত করেন, বাংলাদেশ সিআইসিএ লক্ষ্য ও মূলনীতি সমুন্নত রাখার প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে। এই নীতি অনুসরণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল ও দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ শান্তি, স্থিতিশীলতা ও উন্নয়ন গুরুত্ব দিয়ে সব দেশের সঙ্গে সম্পর্ক বজায় রাখছে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, এ ক্ষেত্রে সিআইসিএ আমাদের জন্য অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক। এছাড়া আঞ্চলিক নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠায় সিআইসিএ এখন একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপত বলেন, ‘বাংলাদেশের প্রাতিষ্ঠানিক স্বক্ষমতা জোরদার, সম্পৃক্তকরণ ও বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা বৃদ্ধির প্রস্তাব করছে। সিআইসিএ তৃতীয় দশকে পা রেখেছে। একটি শান্তিপূর্ণ, স্থিতিশীল ও সহযোগিতামূলক নতুন এশিয়া বিনির্মাণে অংশীদার হতে বাংলাদেশ তার প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখতে পারবে। রিপাবলিক অব তাজিকিস্তানের প্রেসিডেন্ট এমোমাইল রাহমন সম্মেলনের অধিবেশনটির সভাপতিত্ব করেন। ৩৯টি দেশের প্রতিনিধি, আন্তর্জাতিক সংস্থা, ৯টি দেশের প্রেসিডেন্ট, ৩টি দেশের প্রধানমন্ত্রী ও কাতারের আমির এ সম্মেলনে যোগ দেন। স্থানীয় সময় সকাল ৯টা ৪৯ মিনিটে আনুষ্ঠানিকভাবে পঞ্চম সিআইসিএ সম্মেলনের প্রধান আয়োজন শুরু হয়। সম্মেলনের এবারের প্রতিবাদ্য একটি নিরাপদ ও অধিকতর সমৃদ্ধ সিআইসিএ অঞ্চলের জন্য অভিন্ন লক্ষ্য। সিআইসিএ হচ্ছে এশিয়ায় শান্তি, নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতার জন্য সহযোগিতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে গঠিত বহুজাতিক ফোরাম। সব ধরনের সন্ত্রাসবাদের হুমকি সমূলে উৎপাটন, অবৈধ মাদক উৎপাদন ও পাচার রোধ এবং এশিয়ার সমৃদ্ধি ও স্থিতিশলতার জন্য বাণিজ্যিক ও অর্থনৈতিক সহযোগিতা বৃদ্ধিও সিআইসিএর অন্যতম লক্ষ্য। বর্তমানে সিআইসির ২৭টি সদস্য দেশ রয়েছে। এগুলো হলো- চীন, রাশিয়া, বাংলাদেশ, আফগানিস্তান, আজারবাইজান, বাহরাইন, কম্বোডিয়া, মিশর, ভারত, ইরান, ইরাক, ইসরাইল, জর্দান, কাজাখস্থান, কিরগিজস্থান, মঙ্গোলিয়া, পাকিস্তান, ফিলিস্তিন, কাতার, রিপাবলিক অব কোরিয়া, শ্রীলংকা, তাজিকিস্তান, থাইল্যান্ড, তুরস্ক, সংযুক্ত আরব আমিরাত, উজবেকস্তান ও ভিয়েতনাম।এছাড়া আটটি পর্যবেক্ষক দেশও রয়েছে। এগুলো হল- বেলারুশ, ইন্দোনেশিয়া, জাপান, লাওস, মালয়েমিয়া, ফিলিপাইন, ইউক্রেন ও যুক্তরাষ্ট্র। জাতিসংঘ, আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা- আইওএম, অর্গানাইজেশন ফর সিকিউরিটি অ্যান্ড কো-অপারেশন ইন ইউরোপ, লিগ অব আরব স্টেটস এবং পার্লামেন্টারি অ্যাসেম্বলি অব দ্য টার্কিক স্পিকিং কান্ট্রিজসহ পাঁচটি আন্তর্জাতিক সংগঠনও এর সঙ্গে যুক্ত রয়েছে। এশিয়ার ভূখণ্ড ও জনগণের প্রায় ৯০ শতাংশ সিআইসিএর সদস্য রাষ্ট্রগুলোর অন্তর্ভূক্ত। অধিবেশনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, সচিব কামরুল আহসান ও রাষ্ট্রপতির সচিব সম্পদ বড়ুয়া। বাসস।
এসএসএফ কে আধুনিক প্রযুক্তির দ্বারা সুসজ্জিত করা হবে
১৫জুন২০১৯,শনিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ক্রমাগত পরিবর্তনশীল অপরাধসমূহ প্রতিহত করতে স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ) সদস্যদের আধুনিক প্রযুক্তির দ্বারা সুসজ্জিত করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার রাজধানী তেজগাঁও এলাকায় এসএসএফ অফিসার্স মেসে বাহিনীটির ৩৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। এসএসএফ সদস্যদের নতুন প্রযুক্তির ওপর জ্ঞান ও প্রশিক্ষণ নিয়ে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আপনাদেরকে (এসএসএফ সদস্য) আধুনিক প্রযুক্তির দ্বারা সুসজ্জিত করা হবে। প্রতিদিন নতুন প্রযুক্তির উদ্ভাবন সম্পর্কে অবশ্যই আপনাদের সচেতন থাকতে হবে। ক্রমাগত পরিবর্তনশীল অপরাধ (প্রবণতা) সম্পর্কে আপনাদের সচেতন থাকতে হবে এবং (এসব মোকাবিলার জন্য) প্রশিক্ষণ গ্রহণ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, নতুন নতুন প্রযুক্তি মানুষের জীবনধারার উন্নতি করছে এবং দেশের উন্নয়নের গতি ত্বরান্বিত করছে। অন্যদিকে নতুন প্রযুক্তির আবিষ্কারের সাথে নানা ধরনের ঝুঁকির আবির্ভাব ঘটছে। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের ধরনও ক্রমাগত পরিবর্তন হচ্ছে। শেখ হাসিনা বলেন, নতুন প্রযুক্তি সন্ত্রাসী ও জঙ্গি কার্যক্রমসহ বিভিন্ন সামাজিক অপরাধে জড়িত অপরাধীদের জন্য নতুন সুযোগ তৈরি করে। এসএসএফ এবং আইন প্রয়োগকারী সংস্থার উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের সবসময় এসব (নতুন অপরাধ) মোকাবিলা করার জন্য দক্ষতা থাকতে হবে। আমাদের আপ টু ডেট (নিজেদের মেধা ও প্রশিক্ষণকে হালনাগাদ) থাকতে হবে। এর আগে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এসএসএফ এর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মজিবুর রহমান। অনুষ্ঠানে তিন বাহিনীর প্রধান, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম, অন্যান্য সিনিয়র সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তা ও এসএসএফ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।-আলোকিত বাংলাদেশ
কর্মসংস্থানের সুযোগ আছে বলেই এখন ধান কাটার লোকের অভাব হচ্ছে :প্রধানমন্ত্রী
১৪ জুন২০১৯,শুক্রবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম:প্রধানমন্ত্রী বলেন, কর্মসংস্থানের কথা আমরা বলেছি, চাকরি দেয়ার কথা বলিনি। ১০০ কোটি টাকা থোক বরাদ্দ রেখেছি। শিক্ষার কথা বলেছি; প্রযুক্তিগত শিক্ষা, কারিগরি শিক্ষা, ভোকেশনাল ট্রেনিং। আর আমরা চাই ট্রেনিং নিয়ে শিক্ষিত হয়ে নিজের কাজ নিজে করতে শিখুক।শুক্রবার বিকাল ৩টায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, কাজেই ৩ কোটি মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ আছে। আর আছে বলেই আজ ধান কাটার লোক পাওয়া যায় না। ধান কাটার জন্য এখন লোক পাওয়া যাচ্ছে না কেন? যদি এত বেশি বেকার থাকে; তাহলে ধান কাটার লোকের অভাব হতো না। প্রধানমন্ত্রী বলেন, একজন মানুষ একদিন ধান কাটলে ৪০০-৫০০ টাকা পাবে। আবার তিন বেলা খাবার, দুই বেলা খাবে আর এক বেলা আবার বাড়ি নিয়ে যাবে। এরপরও কৃষক ধান কাটার জন্য লোক খুঁজে পায় না। কর্মসংস্থানের সুযোগ আছে বলেই এখন ধান কাটার লোকের অভাব হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, আমরা কর্মসংস্থানের কথা বলি, আর সবার ধারণা হয়ে যায় চাকরি দেয়া। ১৬ কোটি মানুষকে কি চাকরি দেয়া যায়? পৃথিবীর কোনো দেশ দেয়? কর্মসংস্থান হচ্ছে, মানুষ যেন কাজ করে খেতে পারে, সেই সুযোগটা সৃষ্টি করা, বললেন তিনি। বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করা হয়। বাজেটের আকার ধরা হয় পাঁচ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। বাজেটে বেকারত্ব নিরসনে ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে।
এরশাদ সিএমএইচে ভর্তি
১৪ জুন২০১৯,শুক্রবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম:জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় নেতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ আবারও সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি হয়েছেন বলে জানিয়েছেন দলটির সাংগঠনিক সম্পাদক হেলাল উদ্দিন। বৃহস্পতিবার রাতে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে দ্রুত সেখানে ভর্তি করা হয়। জাপার সাবেক মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার দলীয় চেয়ারম্যানের খোঁজ নিতে রাতেই সিএমএইচে দেখতে যান এবং দেশবাসী ও দলীয় সকল নেতাকর্মীর কাছে তার জন্য দোয়া চেয়েছেন। এরশাদের সহকারী ছাত্তার জানান, গতরাতে স্যার (এরশাদ) খারাপ বোধ করায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কথা বললে তাৎক্ষণিকভাবে তাকে সিএমএইচে নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমানে তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে।

জাতীয় পাতার আরো খবর