বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ৯, ২০২০
করোনাভাইরাস: চীন ভ্রমন না করার আহ্বান স্বাস্থ্যমন্ত্রীর
২৮জানুয়ারী,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চীনে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। এমন অবস্থায় দেশটিতে আপাতত ভ্রমন না করার আহ্বান জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। একইসঙ্গে চীন থেকে কাউকে না নিয়ে আসারও আহ্বান জানান তিনি। আজ মঙ্গলবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে ডায়রিয়ার ওপর এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে অংশ নিয়ে এ আহ্বান জানান মন্ত্রী। বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসের রোগী পাওয়া যায়নি জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা করোনাভাইরাসের বিষয়ে সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছি। সবার মাঝে সচেতনা তৈরি করতে প্রচার-প্রচারণায় এটা নিয়ে এসেছি। বিমানবন্দর, সমুদ্রবন্দর, স্থলবন্দরে এ ভাইরাস শনাক্তকরণের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। আমাদের কর্মীরা ওখানে আছে যাতে শনাক্ত করতে পারে। করেনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই জানিয়ে তিনি বলেন, আমি আমাদের লোকজনকে বলব- যারা দেশে থাকেন তারা এই সময় চীন ভ্রমণ কমিয়ে দেন। ভ্রমণ না করাই ভালো এবং এই মুহূর্তে ওই দেশ থেকে লোকজন না আনাই উচিত। করোনাভাইরাসের বিষয়ে আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। বাংলাদেশের চিকিৎসাসেবার বিভিন্ন সাফল্যের তথ্য তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন,বাংলাদেশ থেকে পোলিও, টিটেনাস বিদায় নিয়েছে। আমরা কমিউনিটি ক্লিনিক, পরিবার-পরিকল্পনা সেন্টার চালু করেছি। বিনামূল্যে ওষুধ দেয়া হচ্ছে। আমরা ওয়ার্ল্ড ক্লাস মেডিসিন তৈরি করছি, যা বিশ্বের ১০০টিরও বেশি দেশে রফতানি হচ্ছে। আইসিডিডিআরবি খাবার স্যালাইন আবিষ্কার করেছে যা মিলিয়ন মানুষের জীবন বাঁচিয়েছে। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ, আইসিডিডিআরবির এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর অধ্যাপক জন ডি ক্লেমেন্স প্রমুখ।
৩৫তম বিসিএসে সুপারিশকৃত ১৭ জনকে নিয়োগের নির্দেশ
২৮জানুয়ারী,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ৩৫তম বিসিএসে সুপারিশকৃত ১৭ জনকে আগামী ৬০ দিনের মধ্যে নিয়োগ দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এ বিষয়ে জারি করা রুল যথাযথ ঘোষণা করে মঙ্গলবার বিচারপতি মো. আশরাফুল কামাল ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ নির্দেশ দেন। গত বছরের ২৮ জুলাই এই ১৭ জনকে নিয়োগ দিতে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। এর আগে ৩৫তম বিসিএসে নিয়োগ না দেওয়ার সিদ্ধান্তের বৈধতা চ্যালেঞ্জ ও সুপারিশকৃত পদে নিয়োগের প্রার্থনা করে হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন ওই ১৭ প্রার্থী। পরে আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ্ মিয়া বলেন, ৩৫তম বিসিএসে পিএসসি সবমোর্ট ২ হাজার ১৫৮ জন প্রার্থীকে সুপারিশ করে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় বিভিন্ন সময়ে প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ২ হাজার ১১৮ জন প্রার্থীকে নিয়োগ প্রদান করলেও রিট আবেদনকারী ১৭ জনকে নিয়োগ দেয়নি। উক্ত প্রজ্ঞাপন চ্যালেঞ্জ ও একই সাথে সুপারিশকৃত পদে নিয়োগের প্রার্থনা করে রিট দায়ের করা হয়। রিট আবেদনকারীরা হলেন- রীনা খানম, মোহাম্মদ ফয়সাল আকবর, জান্নাতুন নেছা, এস.এম আশিকুর রহমান শিমুল, সাদিয়া আফরীন সুমাইয়া, মো. আবদুল্লাহ তারেক, মো. আবদুল্লাহ আল জোবাইর, মুসানাহ আশফাক, ফয়সাল আহমেদ চৌধুরী, খালেদ সাইফুল্লাহ, মো. আবু রোহানী পারভেজ রনি, মো. সাইদুল ইসলাম, মো. আবদুস সালাম।
সিনিয়র সচিব হলেন তিন কর্মকর্তা
২৮জানুয়ারী,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আরও তিন সচিবকে সিনিয়র সচিব পদে পদায়ন করা হয়েছে। সোমবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা এক আদেশে এই তথ্য জানানো হয়েছে। এই তিন কর্মকর্তাসহ বর্তমান সরকারে জ্যেষ্ঠ সচিবের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৩ জনে। সিনিয়র সচিব হওয়া কর্মকর্তারা হলেন- স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবদুস সামাদ এবং জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগের সচিব মো. আনিছুর রহমান। তাদের আগের কর্মস্থলেই সিনিয়র সচিব হিসেবে পদায়ন করা হয়েছে। রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. তজিমুল ইসলাম খানের সই করা আদেশটি অবিলম্বে কার্যকর হবে বলে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে।
ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনে ১২৯ ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ
২৭জানুয়ারী,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন প্রশাসন ক্যাডারের ১২৯ কর্মকর্তা। আইনশৃঙ্খলা রক্ষা এবং ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার জন্য তাদের নিয়োগ দিয়ে সম্প্রতি আদেশ জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। নিয়োগপ্রাপ্তদের ২৯ জানুয়ারি ঢাকা জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে যোগ দিতে বলা হয়েছে। ঢাকা জেলা ম্যাজিস্ট্রেট প্রয়োজনীয়তার নিরীখে তাদের দায়িত্ব বণ্টন করবেন বলে আদেশে জানানো হয়। আর আগামী ৩০ জানুয়ারি বিকেলে শিল্পকলা একাডেমিতে নির্বাচন সংক্রান্ত ব্রিফিংয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে। ওই ব্রিফিংয়ে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার উপস্থিত থাকবেন।
১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে ছাত্রসমাজের বড় অবদান ছিলো:রাষ্ট্রপতি
২৭জানুয়ারী,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: তোমরা বিবেকের কাছে কখনো পরাজিত হবে না। শিক্ষার্থীরা দেশের উচ্চতর মানবসম্পদ। দেশের ভবিষ্যত নির্ভর করছে তোমাদের উপর। তোমরাই সবসময় ন্যায়কে সমুন্নত রাখবে। কখনো ব্যক্তিগত সম্মানবোধ ও নৈতিকতাকে নষ্ট করবে না। এ সমাবর্তন শিক্ষা জীবন শেষ করছে না বরং শিক্ষার সমুদ্রে প্রবেশ করাচ্ছে। শুধু নিজের কথাই ভাববে না। মানুষ ও সমাজের কথা ভাবতে হবে।সোমবার (২৭ জানুয়ারি) বিকেলে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তনে সভাপতির বক্তৃতায় রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ এসব কথা বলেন। মাদক নির্মূলে রাষ্ট্রপতি বলেন, একসময় কুমিল্লা পড়ালেখায় পুরো দেশে এক নম্বর ছিলো। এখন অবাধে মাদক সেবন চলে। মাদক প্রবেশের যত রাস্তা আসে তার মধ্যে কুমিল্লা অন্যতম।’ আমি কুমিল্লার সবাইকে বলতে চাই ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে ছাত্রসমাজের বড় অবদান ছিলো। অনেক ত্যাগের বিনিময়ে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি। এখন নতুন করে আবার সংগ্রাম করতে হবে। আর এ সংগ্রাম হবে মাদকের বিরুদ্ধে। রাষ্ট্রপতি বিভিন্ন মাদকের নাম উল্লেখ করে ছাত্রসমাজকে এসব রুখতে বলেন। ছাত্রসমাজ যেনও মাদকে পা না বাড়ায় তার জন্য কাজ করতে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েটদের তিনি আহ্বান জানান। রাষ্ট্রপতি আরো বলেন, শিক্ষার সাথে মানবিক মূল্যবোধ পৃথিবীকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে কার্যকর থাকে। তাই বিশ্ববিদ্যালয়কে জ্ঞানচর্চা ও মুক্তচর্চার পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে গড়তে প্রতি জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি বড় অবদান রাখবে বলে আশা করেন রাষ্ট্রপতি। এসময় রাষ্ট্রপতি আরো বলেন, এবারের সংগ্রাম সোনার বাংলাদেশ গড়ার সংগ্রাম। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যত সুন্দর হোক কামনা করে তিনি বক্তব্য শেষ করেন। রাষ্ট্রপতি আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় জ্ঞান অর্জনের স্থান। র্যাগিং ও টাকা নষ্ট করার স্থান নয়। বাবা-মা অনেক কষ্ট করে টাকা পাঠায় তা মনে রাখতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের উদ্দেশ্য করে রাষ্ট্রপতি বলেন, একজন শিক্ষকের কাজ শুধু শ্রেণী কক্ষে পাঠদান নয়। পাঠদানের পাশাপাশি তাদেরকে জ্ঞানের মশাল জ্বালাতে হবে। শিক্ষার্থীদের মননে দেশপ্রেম জাগ্রত করতে হবে শিক্ষকদের। সমাবর্তন বক্তা বাংলাদেশ সরকারের অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল তার বক্তব্যে বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর কারণে আমরা এ দেশ পেয়েছি। আর তাই সকলকে সবসময় তাকে মনে প্রাণে ধারণ করতে হবে। এ বিশ্ববিদ্যালয়কে প্রধানমন্ত্রী অনেক টাকার বাজেট দিয়েছে। ভবিষ্যতে এখানে আরো বরাদ্দ দেওয়া হবে। অর্থমন্ত্রী আরো বলেন, ইংল্যান্ডের তুলনায় বাংলাদেশের ইন্টারনেট সংযোগ অনেক ভালো। দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে হলে দেশপ্রেমে উজ্জীবিত হয়ে এখন থেকেই প্রস্তুতি নিয়ে কাজ করতে বলেন তিনি। সমাবর্তনে অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চেীধুরী এমপি এবং বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ প্রমুখ । বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রথম সমাবর্তনে ২ হাজার ৮৮৮ জন গ্র্যাজুয়েট অংশগ্রহণ করেন। যার মধ্যে স্নাতক ডিগ্রিধারী ১ হাজার ২২২ জন এবং স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী ১ হাজার ৬৬৫ জনকে ডিগ্রী প্রদান করেন রাষ্ট্রপতি। এছাড়া শিক্ষায় অসমান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ১৪জন শিক্ষার্থীকে চ্যান্সেলর স্বর্ণপদক প্রদান করেন।
১১ শব্দসৈনিককে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দিয়েছে সরকার
২৭জানুয়ারী,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় গড়ে ওঠা স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের আরো ১১ শব্দসৈনিককে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দিয়েছে সরকার। মুক্তিযোদ্ধা স্বীকৃতিপ্রাপ্ত ১১ শব্দসৈনিক হলেন-মোশাদ আলী, মো. জামিরুল মূলক, লায়লা আনজুমান্দ বানু, মৃত আব্দুল ওহাব পাইক, কাঞ্চন বিকাশ তালুকদার, সুরেশ চন্দ্র দাস, তাহের সুলতান, রজ্জব আলী দেওয়ান, মো. সিরাজুল ইসলাম, মো. আশরাফ হোসেন ও কৃষ্ণ সাহা। এ নিয়ে শব্দসৈনিক মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৮৬ জনে। জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) ৬৫তম সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এই ১১ জনের মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দিয়ে সম্প্রতি গেজেট জারি করা হয়েছে। ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল মুজিবনগর সরকার গঠিত হওয়ার পর ২৫ মে মুক্তিযুদ্ধের প্রচারণায় ভারতের সার্বিক সহযোগিতায় প্রতিষ্ঠিত হয় স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র। যুদ্ধশক্তি এ বেতার কেন্দ্র ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয় অর্জনের পরও ১৯৭২ সালের ২ জানুয়ারি পর্যন্ত প্রচার কার্যক্রম অব্যাহত রাখে। ২০১৭ সালে ১০ জুলাই ৫৮ শব্দসৈনিককে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দেয়া হয়। তারও আগে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের প্রচারণায় অংশগ্রহণকারী এবং মুক্তিযুদ্ধকালে গঠিত সাংস্কৃতিক সংগঠনের ১০৮ ও ৮৭ জন শব্দসৈনিককে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দিয়ে গেজেট জারি করা হয়। সব মিলিয়ে ২৮৬ জন শব্দসৈনিক মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পেলেন।
বুধবার থেকে বৃষ্টির সম্ভাবনা
২৭জানুয়ারী,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সারাদেশে চলমান শৈত্যপ্রবাহের মাঝে নতুন বার্তা দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। আগামি বুধবার (২৯ জানুয়ারি) থেকে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদ শাহানা সুলতানা। আজ সোমবার সকালে গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, বড় মেঘমালার কারণে বুধ ও বৃহস্পতিবার বৃষ্টি হতে পারে। তবে শুক্রবার তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে। এদিকে আজকের আবহাওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। তবে রাত থেকে আগামীকাল সকাল পর্যন্ত দেশের কিছু জায়গায় ঘন কুয়াশা পড়তে পারে। অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ গতকাল রোববার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার শৈত্যপ্রবাহের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ, সীতাকুন্ড, কুমিল্লা, শ্রীমঙ্গল, রাজশাহী, পাবনা, নওগাঁ, যশোর, চুয়াডাঙ্গা ও কুমারখালি অঞ্চলসহ রংপুর বিভাগের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা কিছু কিছু জায়গায় প্রশমিত হতে পারে। সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে এবং দিনের তাপামাত্রা গতকালের ন্যায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। আবহাওয়ার সিনপটিক অবস্থায় বলা হয়েছে, উপমহাদেশীয় উচ্চ চাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ এবং তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের পশ্চিমাঞ্চল পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। ঢাকায় বাতাসের গতি ও দিক ঘণ্টায় ৬ থেকে ১২ কিলোমিটার বেগে উত্তর-পশ্চিম ও উত্তর দিকে বয়ে যাচ্ছে। রোববার সন্ধ্যা ৬টায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল ৮৮ শতাংশ। আজ সোমবার ঢাকায় সূর্যোদয় হয়েছে ভোর ৬টা ৪১ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত হবে সন্ধ্যা ৫টা ৪১ মিনিটে। পরবর্তী তিন দিনের আবহাওয়া বার্তায় গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে বলে জানানো হয়েছে।
চীন থেকে বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
২৭জানুয়ারী,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চীনের উহান প্রদেশে আটকে থাকা বাংলাদেশি নাগরিকদের মধ্যে যারা দেশে ফিরতে চাইবেন তাদের ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ সোমবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টে এ তথ্য জানান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম। আমরা চীন সরকারের সঙ্গে এই বিষয়ে আলোচনা শুরু করেছি। কী প্রক্রিয়ায় এটি করা হবে তা বাস্তবতার নিরিখে স্থানীয় প্রশাসনের সম্মতির ভিত্তিতে করা হবে। আমাদের দেশের নাগরিকদের নিরাপত্তাই আমাদের মূল লক্ষ্য। এই বিষয়ে আজকের দিনের শেষে একটি প্রাথমিক নির্দেশনা জারি করা হবে, যার মূল উদ্দেশ্য থাকবে আগ্রহীদের তালিকা প্রণয়ন। গত ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে প্রথম করোনাভাইরাস নামে একটি ভাইরাসের সংক্রমণের কথা নিশ্চিত করা হয়। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই তা দেশের আরও বেশ কিছু অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়ে। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত চীনে মৃত্যু হয়েছে ৮০ জনের। অসুস্থ প্রায় ৩ হাজারেরও বেশি মানুষ। এর মধ্যে ৩শ রোগীর অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছে দেশটির স্থানীয় গণমাধ্যম। চীন ছাড়াও প্রতিবেশী দেশ ভারতসহ ১৩টির বেশি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। চলমান পরিস্থিতিতে চীনে দেশটিতে বসবাসরত বা ভ্রমণরত বাংলাদেশিদের জন্য হটলাইন চালু রয়েছে। হটলাইনের নম্বর : ৮৬-১৭৮০১১১৬০০৫।
প্রধানমন্ত্রীর মুখে চাঁটগাইয়্যা গান
২৭জানুয়ারী,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চাঁটগাইয়্যা গান গেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রোববার (২৬ জানুয়ারী) সকালে চট্টগ্রাম ওয়াসার পানি সরবরাহ উন্নয়ন ও স্যানিটেশন প্রকল্পের আওতায় মদুনাঘাট শেখ রাসেল পানি শোধনাগার প্রকল্পের কার্যক্রম, বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্র ৯ ঘন্টা থেকে ১২ ঘন্টা সম্প্রচার কার্যক্রম, জামালপুর-ঢাকায় ট্রেন উদ্বোধন, চট্টগ্রাম ওয়াসার পানি সরবরাহ উন্নয়ন ও স্যানিটেশন প্রকল্পের আওতায় মদুনাঘাট শেখ রাসেল পানি শোধনাগার, চট্টগ্রাম-সিলেট-ঢাকা রুটে পাহাড়িকা এক্সপ্রেস এর উদ্বোধন, ঢালারচর-পাবনা-রাজশাহী রুটে উদয়ন এক্সপ্রেস, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের ডিজিটাল আর্থিক সেবা দেওয়ার জন্য মোবাইল অ্যাপস ভিত্তিক পল্লী লেনদেন কার্যক্রমের উদ্বোধন করার পর এক সাংস্কৃতিক কর্মীর সাথে কথা বলার একপর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ গান করেন। একপর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী বলে উঠলেন, এটা যেহেতু একটি সাংস্কৃতিক বিষয়, আমরা গান যদি শুনতে পারতাম ভালো হতো না? সাথে সাথে প্রধানমন্ত্রী নিজেই গেয়ে উঠেন, চাঁটগাইয়্যা মানুষ আঁরা হিন্দু-মুসলমান। সিনার লই সিনা মিলাই, ঠেকাই ঝড়-তুফান। এ সময় উপস্থিত সবাই আনন্দ-উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। চট্টগ্রাম প্রান্তে থাকা জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন আগামীতে গান শোনানোর ব্যবস্থা করবেন জানালে প্রধানমন্ত্রী প্রশ্ন করেন, সেখানে কি একজনও গায়ক নেই? এটা একটা কথা হলো? তখন চট্টগ্রামে অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত একজন গেয়ে শোনান, বাঁশখালী মইশখালী পাল উড়াইয়া দিলে সাম্পান গুরগুরাই টানে আয় তোরা হন্ হন্ যাবি আঁর সাম্পানে গান শুনে প্রধানমন্ত্রীকে বেশ উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতে দেখা যায়; বললেন, খুব ভালো, খুব সুন্দর। এসময় চট্টগ্রাম প্রান্তে অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. ইব্রাহীম, বিটিভির মহাপরিচালক এস এম হারুন অর রশিদ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ সালাম, বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের জি এম নিতাই কুমার ভট্টাচার্য, চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার এ এক এম ফয়জুল্লাহ, পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মফিজুর রহমান।- সিপ্লাস

জাতীয় পাতার আরো খবর