মোদির শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে যাচ্ছেন রাষ্ট্রপতি
২৮মে,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ নয়াদিল্লিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। মোদি দ্বিতীয়বারের মতো ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আগামী ৩০ মে সন্ধ্যায় রাষ্ট্রপতি ভবন প্রাঙ্গণে শপথ নিতে যাচ্ছেন। আবদুল হামিদ বুধবার বিকেলে নয়াদিল্লির উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন বলে তার প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন গতকাল সোমবার জানিয়েছেন। সফরকালে তিনি ভারতের রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দের সঙ্গে সাক্ষাত করবেন। গত রোববার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন জানিয়েছিলেন, বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রিসভার সবচেয়ে সিনিয়র সদস্য মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক শপথ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন। তবে আজ এ সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হয়। মোদির আগের মেয়াদের শপথের মতো এবারের অনুষ্ঠানের সময়ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাপান সফরে থাকবেন। গতবার মোদির শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী অংশ নিয়েছিলেন। এদিকে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দুদেশের মধ্যকার সম্পর্ককে এক অভূতপূর্ব নতুন উচ্চতায় উন্নীত করার ব্যাপারে অঙ্গীকার করেছেন। সেই সঙ্গে তারা নিরাপত্তা, বাণিজ্য, পরিবহন, জ্বালানি ও জনগণের সঙ্গে জনগণের বন্ধনের ক্ষেত্রে অংশীদারিত্ব গভীর করার জন্য চলমান পরিকল্পনাগুলোর দ্রুত বাস্তবায়নের বিষয়ে একমত হয়েছেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। দুই নেতা দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নিয়ে পুনরায় কাজ শুরু করতে যত দ্রুত সম্ভব বৈঠকে বসার জন্য তারিখ নির্ধারণের বিষয়েও একমত হয়েছেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানানো প্রথম বিদেশি নেতাদের অন্যতম ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যা ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যকার অসাধারণ নিবিড় ও আন্তরিক বন্ধন এবং দুই নেতার চমৎকার সম্পর্কের প্রতিফলন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন জাতীয় গণতান্ত্রিক মোর্চা (এনডিএ) লোকসভা নির্বাচনে জনগণের বিপুল সমর্থন অর্জন করায় বৃহস্পতিবার মোদিকে ফোন করে অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
জাপানের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়লেন প্রধানমন্ত্রী
২৮মে,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ মঙ্গলবার (২৮ মে) জাপানের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেছেন। সকাল ৮টা ৫৫ মিনিটে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইটে টোকিওর হেনিদা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উদ্দেশে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করেন প্রধানমন্ত্রী। ১২ দিনের সফরে প্রথমে জাপান এরপর সৌদি আরব এবং সর্বশেষ ফিনল্যান্ডে ঈদ পালন করবেন তিনি। সেখানে ঈদ উদযাপন শেষে ভারত সফর করে ঢাকায় ফেরার সম্ভাবনা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। প্রধানমন্ত্রী তার সফরের প্রথমে জাপানে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক এবং একটি আন্তর্জাতিক ফোরামে অংশ নেবেন। জাপানের টোকিওতে আগামী ৩০ ও ৩১ মে অনুষ্ঠিতব্য ফিউচার অব এশিয়া অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীকে দাওয়াত দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। জাপানের সবচেয়ে বড় মিডিয়া প্রতিষ্ঠান নিকেই প্রতি বছরের মতো এবারও এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে। এতেই যোগ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। শেখ হাসিনা সেখানে তার সম্মানে বাংলাদেশি কমিউনিটি আয়োজিত একটি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগদান করবেন। এছাড়াও তিনি হলি আর্টিজান হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে মিলিত হবেন এবং জাপানি ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে দেখা করবেন। জাপানের সফর শেষ করে শেখ হাসিনা জেদ্দার উদ্দেশে টোকিও ছাড়বেন। তিনি জুনের ৩ তারিখ পর্যন্ত সেখানে অবস্থান করবেন। সৌদি সফরের সময় প্রধানমন্ত্রী ওআইসির (অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কনফারেন্স) ১৪তম অধিবেশনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগদান করবেন। সেখানে মক্কায় ৩১ মে মক্কা সামিট : টুগেদার ফর দি ফিউচার শীর্ষক ইসলামী শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সৌদি আরবে অবস্থানের সময় প্রধানমন্ত্রী পবিত্র উমরাহ পালন করবেন। প্রধানমন্ত্রী জুনের ২ তারিখ সকালে বিমানযোগে মদিনার উদ্দেশে জেদ্দা ত্যাগ করবেন এবং হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর রওজা মোবারকে ফাতেহা পাঠ করবেন। এরপর সন্ধ্যায় তিনি বিমানযোগে জেদ্দার উদ্দেশে মদিনা ত্যাগ করবেন। সৌদি সফর শেষ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ৩ জুন ফিনল্যান্ডের রাজধানী হেলসিংকির উদ্দেশে জেদ্দা ছাড়বেন। প্রধানমন্ত্রী আগামী ৪ জুন ফিনল্যান্ডের রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সৌজন্য দেখা করবেন।
বিশ্ব নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস আজ
২৮মে,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: বিশ্ব নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস আজ। বিশ্বের অন্যান্য স্থানের মতো বাংলাদেশেও নানা আয়োজনে দিবসটি উদযাপিত হচ্ছে। দিবসটি উপলক্ষে সরকারিভাবে এবং বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা নানা কর্মসূচি পালন করবে। এবার দিবসটির প্রতিপাদ্য মর্যাদা ও অধিকার, স্বাস্থ্যকেন্দ্রে প্রসূতি সেবায় অঙ্গীকার। নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন। সারা বিশ্বে আন্তর্জাতিক নারী স্বাস্থ্য দিবস হিসেবে ১৯৮৭ সাল থেকে নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস পালন শুরু হলেও মাতৃ স্বাস্থ্যের প্রতি গুরুত্ব ও এর কার্যকারিতা অনুধাবন করে ১৯৯৭ সাল থেকে বাংলাদেশে যথাযথভাবে নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস হিসেবে পালন করা শুরু হয়।
পুলিশের গাড়িতে হামলার দায় নিল আইএস
২৭মে,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর মালিবাগে পুলিশের গাড়িতে বিস্ফোরণের যে ঘটনা ঘটেছে, তার দায় স্বীকার করেছে ইসলামিক স্টেট (আইএস)। রোববার রাতের ওই বিস্ফোরণে একজন নারী সহকারী উপ-পরিদর্শক ও একজন রিকশাচালক আহত হন। সোমবার যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক জঙ্গি কার্যক্রম পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা সাইট ইন্টেলিজেন্স জানিয়েছে, আইএস ওই ঘটনার দায় স্বীকার করেছে। সাইট ইনটেল গ্রুপের অ্যাকাউন্ট থেকে এ দায় স্বীকারের কথা জানিয়ে টুইট করা হয়েছে। এর আগে গত ২৯ এপ্রিল রাজধানীর গুলিস্তানে ককটেল বিস্ফোরণে তিন পুলিশের আহত হওয়ার দায়ও ইসলামিক স্টেট গ্রুপ স্বীকার করেছিল। পুলিশ তখন আইএসের দাবির বিষয়টি খতিয়ে দেখবে বলে জানিয়েছিল। ওই ঘটনার রেশ না কাটতেই গতরাতে মালিবাগে আবারও পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা হামলার ঘটনা ঘটল। এদিকে মালিবাগে পুলিশের গাড়িতে বিস্ফোরিত বোমাটি সাধারণ ককটেল থেকে অনেক বেশি শক্তিশালী ছিল বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। সোমবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে আহত রিক্সাচালক লাল মিয়াকে দেখার পর তিনি সাংবাদিকদের একথা বলেন। ডিএমপি কমিশনার বলেন, একটি স্বার্থান্বেষী মহল জনমনে ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টির জন্য এ ধরনের অপতৎপরতা চালাচ্ছে। যে বোমার বিস্ফোরণ ঘটেছে এটি সাধারণ ককটেলের চাইতে শক্তিশালী। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে বোমাটি গাড়িতে পেতে রাখা হয়েছিল। প্রসঙ্গত, রোববার রাত ৯টায় মালিবাগ মোড়ে সিএনজি পাম্পের বিপরীতে ফ্লাইওভারের নিচে দাঁড়িয়ে থাকা পুলিশের গাড়িতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে ডিএমপির ট্রাফিক পূর্ব (সবুজবাগ) বিভাগের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রাশেদা খাতুন, রিক্সাচালক লাল মিয়া আহত হন। ট্রাফিক পুলিশের পূর্ব বিভাগের (সবুজবাগ) সার্জেন্ট এনামুল হক জানান, মালিবাগ মোড়ে দায়িত্বরত অবস্থায় পুলিশের গাড়ির পাশে একটি ককটেল বিস্ফোরিত হয়। এতে পাশে থাকা এএসআই রাশেদা ও রিকশাচালক আহত হন। রাশেদার বাঁ পায়ে ও রিকশাচালকের মাথায় আঘাত লেগেছে। আহত রাশেদা জানান, তিনি রাস্তায় দায়িত্বরত ছিলেন। এ সময় একটি ককটেল তাঁর পাশেই বিস্ফোরিত হয়। এতে তাঁর পায়ে আঘাত লাগে। পাশে পুলিশের গাড়ির পেছনে কিছুটা আগুন ধরে যায়। এদিকে মালিবাগে পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে বোমা হামলার ঘটনায় সন্ত্রাস দমন আইনে রাজধানীর পল্টন থানায় মামলা হয়েছে। আগুন ধরে যাওয়া পুলিশের গাড়ির চালক কনস্টেবল শফিক বলেন, ফ্লাইওভারের ওপর থেকে কে বা কারা কী যেন ছুড়ে মারে। এতে মুহূর্তের মধ্যে আগুন ধরে যায়। এ সময় আশপাশের দালানের গ্লাসও ভেঙে গেছে। আহত রিকশাচালক লাল মিয়া জানান, তাঁর বাসা তেজকুনিপাড়ায়। রিকশা নিয়ে মালিবাগ মোড়ে বসে ছিলেন। এমন সময়ে বিস্ফোরণ হয়। এতে তাঁর মাথায় আঘাত লাগে। তবে কাউকে দেখেননি তিনি।
শপথ নিলেন ময়মনসিংহ সিটির মেয়র
২৭মে,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলররা শপথ গ্রহণ করেছেন। সোমবার সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের করবী হলে এ শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর কাছে শপথ গ্রহণ করেন ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র ইকরামুল হক টিটু। আর কাউন্সিলরদের শপথ বাক্য পাঠ করান স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম। নবনির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের এলাকার মানুষের কল্যাণে কাজ করার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেষ হাসিনা। তিনি বলেন, যারা আপনাদের ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন, তাদের জন্য কাজ করুন। গত ৫ মে নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র নির্বাচিত হন ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ইকরামুল হক টিটু। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির প্রার্থী জাহাঙ্গীর আহমেদ প্রার্থিতা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয়ায় তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র নির্বাচিত হন। উল্লেখ্য, নবগঠিত এ সিটির প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন বিলুপ্ত ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র ইকরামুল হক টিটু। এ বছরের ২৮ জানুয়ারি ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনকে ৩৩টি সাধারণ এবং ১১টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ভাগ করে সীমানা সংক্রান্ত গেজেট প্রকাশ করা হয়। গত ১৫ অক্টোবর ময়মনসিংহকে বাংলাদেশের দ্বাদশ সিটি কর্পোরেশন গঠনের গেজেট প্রকাশ করে সরকার। বাকি ১১টি সিটি কর্পোরেশন হলো- ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, কুমিল্লা, নারায়ণগঞ্জ, রংপুর ও গাজীপুর। নতুন এই সিটি কর্পোরেশনের আয়তন ৯১ দশমিক ৩১৫ বর্গকিলোমিটার। জনসংখ্যা ৪ লাখ ৭১ হাজার ৮৫৮। গত ৫ মে কাউন্সিলর ও নারী কাউন্সিলর পদে ভোটগ্রহণ করা হয়। এই প্রথম কোনো নির্বাচনে সব কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট হয়।
আইন অমান্যকারী যেই হোক তার শাস্তি হবেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
২৭মে,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: আইন অমান্যকারী যেই হোক, তার শাস্তি হবেই বলে মন্তব্য করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, নুসরাত হত্যা মামলায় ফেনীর সেই ওসির বিরুদ্ধে আইসিটি অ্যাক্টে নতুন করে ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আমরা প্রমাণ করেছি আইন যারা অমান্য করবে, সে যেই হোক শাস্তি হবেই। আমাদের দলের লোক হোক আর প্রশাসনের লোকই হোক, কেউই আইনের ঊর্ধ্বে নয়। রবিবার (২৬ মে) রাজধানীর ধানমন্ডির একটি কনভেনশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের ইফতার ও দোয়া মাহফিলে পূর্ব সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিকল্প আর কেউ নেই- জনমনে এ বিশ্বাস স্থাপিত হয়েছে উল্লেখ করে কামাল বলেন, তার নেতৃত্বের কারণেই সারাবিশ্বে বাংলাদেশ আজ অসাম্প্রদায়িক দেশ হিসেবে পরিচিত। তার নেতৃত্বেই বাংলাদেশ দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়নের পরিবর্তে সম্ভাবনার দেশে পরিণত হয়েছে। সরকারের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ২০০৮ সালে প্রধানমন্ত্রী যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, তা বাস্তবায়ন করেছেন। সেজন্যই তিনি জনগণের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন। জনগণের কাছে পৌঁছাতে পেরেছি বলেই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে তারা বিশ্বাস করে। দলের কাউন্সিলের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, অক্টোবরে কাউন্সিলে নতুন নেতৃত্ব হবে। সেই নেতৃত্ব উন্নয়নের জন্য নতুন প্রত্যয়ে চলবে। ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএম রহমত উল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাধারণ সম্পাদক মো. সাদেক খান প্রমুখ।
সচিব পদে পদোন্নতি পেলেন ১১ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা
২৭মে,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: সচিব পদে পদোন্নতি পেলেন ভারপ্রাপ্ত সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালনকারী প্রশাসনের ১১ কর্মকর্তা। ভারপ্রাপ্ত সচিবের পদমর্যাদায় দায়িত্ব পালন করে আসা এই পাঁচ কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দিয়ে রবিবার রাতে আদেশ জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। পদোন্নতি পেয়ে সচিব হয়েছেন- অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব মনোয়ার আহমেদ, বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি) সচিবালয়ের সচিব (ভারপ্রাপ্ত সচিব) ও এন সিদ্দীকা খানম, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব এসএম আরিফুর রহমান, ভূমি মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী, কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব মুনশী শাহাবুদ্দীন আহমেদ। বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব আবুল মনসুর মো. ফয়েজউল্লাহ, জাতীয় পরিকল্পনা ও উন্নয়ন একাডেমির মহাপরিচালক (ভারপ্রাপ্ত সচিব) মো. আবুল কাশেম, বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ডের মহাপরিচালক (ভারপ্রাপ্ত সচিব) সত্যব্রত সাহা, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. মিজানুর রহমান, বাংলাদেশ ট্যারিফ কমিশনের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত সচিব) জ্যোতির্ময় দত্ত এবং বিসিএস প্রশাসন একাডেমির রেক্টর (ভারপ্রাপ্ত সচিব) কাজী রওশন আক্তার সচিব পদে পদোন্নতি পেয়েছেন। পদোন্নতির পর সচিবদের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) করা হয়। এরপর তাদের আগের স্থানেই সচিব হিসেবে পদায়ন করা হয়েছে।
ফিনল্যান্ডে ঈদ করে ভারত যাবেন প্রধানমন্ত্রী
২৭মে,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ত্রিদেশীয় সফরের উদ্দেশে মঙ্গলবার (২৮ মে) ঢাকা ছাড়ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ত্রিদেশীয় সফরে প্রথমে জাপান এরপর সৌদি আরব এবং সবশেষ ফিনল্যান্ডে ঈদ পালন করবেন তিনি। সেখানে ঈদ উদযাপন করে ভারত সফর করে ঢাকায় ফেরার সম্ভাবনা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। প্রধানমন্ত্রীর পূর্ব নির্ধারিত ত্রিদেশীয় সফর থাকায় ভারতে দ্বিতীয় দফায় নরেন্দ্র মোদীর শপথ অনুষ্ঠানে যেতে পারছেন না প্রধানমন্ত্রী। তবে তিন দেশ সফর করে ভারত হয়ে ঢাকায় ফিরতে পারেন তিনি বলে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের উচ্চ পর্যায়ের একটি সূত্রের দেওয়া তথ্যে জানা গেছে। প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরের বিষয়টি নিয়ে এখন পর্যন্ত আলাপ-আলোচনা চলছে। সোমবার (২৭ মে) তার এই সফরের বিষয়টি চূড়ান্ত হওয়ার কথা রয়েছে। সূত্র জানায়, ৩০ মে নরেন্দ্র মোদীর শপথ অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রণ পেয়েও যেতে না পারার কারণেই পরবর্তী সপ্তাহে ফিনল্যান্ড থেকে ফেরার পথে প্রতিবেশী দেশটিতে যেতে পারেন প্রধানমন্ত্রী। সেক্ষেত্রে তার দেশে ফেরার নির্ধারিত তারিখ ৮ জুন থেকে পিছিয়ে যেতে পারে। মঙ্গলবার ২৮ মে সকালে তিন দিনের সরকারি সফরে জাপানের উদ্দেশে দেশ ছাড়বেন তিনি। জাপানে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক এবং একটি আন্তর্জাতিক ফোরামে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী। জাপানের টোকিওতে আগামী ৩০ ও ৩১ মে অনুষ্ঠিতব্য ফিউচার অব এশিয়া অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীকে দাওয়াত দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। জাপানের সবচেয়ে বড় মিডিয়া প্রতিষ্ঠান নিকেই প্রতি বছরের মতো এবারও এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে। এতেই যোগ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। নিকেইয়ের ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ৩০ মে সকালে শেখ হাসিনার ভাষণ দেওয়ার কথা। এরপর একটি প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশ নিয়ে তিনি বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেবেন। একই দিন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির বিন মোহামেদও বক্তব্য দেবেন ওই অনুষ্ঠানে। পরদিন অন্য একটি অনুষ্ঠানে ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুয়ার্তে অংশ নেবেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, বাংলাদেশ ও জাপান ৪০তম ওডিএ (অফিশিয়াল ডেভেলপমেন্ট অ্যাসিসটেন্স) প্যাকেজের জন্য আলোচনা করছে। এই প্যাকেজের আওতায় জাপান আমাদের ২২০ কোটি ডলার সহায়তা দেবে, যা মাতারবাড়ি বন্দর ও বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনে ব্যবহার হবে। এছাড়া ম্যাস র;্যাপিড ট্রান্সপোর্টের একটি অংশ বাস্তবায়নেও এখান থেকে অর্থ ব্যয় করা হবে। তিনি বলেন, আমরা আশা করছি আগামী ২৯ মে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সঙ্গে বৈঠকের পরে আমরা এই বিষয়ে একটি চুক্তি সই করতে সমর্থ হবো। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের নেতারা ওই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন এবং আশা করা হচ্ছে সেখানে সাইডলাইনে তাদের কারো কারো সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক হতে পারে। আরেকজন কর্মকর্তা বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যু সমাধানে আমরা জাপানের সহায়তা চাইবো। জাপান সফর শেষে সেখান থেকে ৩০ মে সরাসরি সৌদি আরব যাবেন প্রধানমন্ত্রী। সৌদি আরবে ৩১ মে ১৪তম ওআইসি সম্মেলনে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী। এখানে সৌদি বাদশাহ ও যুবরাজের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক ও একাধিক চুক্তি স্বাক্ষরের কথা রয়েছে তার। এরপর সেখান থেকে প্রধানমন্ত্রী যাবেন ফিনল্যান্ডে। সফরের এই অংশটুকু হবে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত। রবিবার (২৬ মে) পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর ত্রিদেশীয় সফরের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, আগামী ২৮ মে জাপান সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর সেখান থেকে জেদ্দায় অনুষ্ঠিতব্য ওআইসির সম্মেলনে যোগ দিতে সৌদি আরব যাবেন তিনি। দুই দেশের সফরেই রোহিঙ্গা সংকট সমাধান নিয়ে সহায়তা চাওয়া হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি জানান, জাপান সফরে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে ও ওআইসির সম্মেলনে রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে সহায়তা চাওয়া হবে। এছাড়া তিনি জানান, ফিনল্যান্ডেই ঈদ পালন করবেন শেখ হাসিনা। সেখানে রাষ্ট্রীয় কোনও অনুষ্ঠান নেই। সেখানে ভাগ্নে রাদওয়ান সিদ্দিক ববির মেয়েকে দেখে ভারত হয়ে দেশে ফেরার বিষয়টি নিয়ে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে আলোচনা চলছে।
তালিকা হচ্ছে রাজাকারদের
২৬মে,রবিবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: একাত্তরে খুন, ধর্ষণ, নির্যাতন, লুণ্ঠনে যে সব বাঙালি পাকিস্তানি বাহিনীকে সহযোগিতা করেছিল, তাদের তালিকা সংগ্রহ করে তা রক্ষণাবেক্ষণে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিতে যাচ্ছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। একই সঙ্গে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল আইন সংশোধন করারও কাজ চলছে। রোববার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে। এর আগের বৈঠকে সংসদীয় কমিটি এ বিষয়ে সুপারিশ করেছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতে আজ মন্ত্রণালয় এই তথ্য জানিয়েছে। বৈঠক শেষে কমিটির সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ সাংবাদিকদের বলেন, আমরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও জেলা প্রশাসকের কাছে সংরক্ষিত স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকারদের তালিকা সংগ্রহ করতে বলেছি। বৈঠকে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় জানায়, মুক্তিযুদ্ধের সময় যেসব রাজাকার, আলবদর, আল শামস থানা ও জেলা-মহকুমা পর্যায়ে সরকারি ভাতা নিয়েছিলেন তাদের তালিকা সংরক্ষণ করতে জেলা প্রশাসকদের গোপন বার্তা পাঠানো হবে। এ জন্য মন্ত্রণালয়ে নথি উপস্থাপন করা হয়েছে। এ ছাড়া স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রাজনৈতিক অনুবিভাগে সংরক্ষিত রাজাকার, আল বদর, আল শামস ও স্বাধীনতা বিরোধীদের তালিকা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে রক্ষণাবেক্ষণের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ডিও লেটার দেয়া হবে। এ জন্যও নথি উপস্থাপন করা হয়েছে। এ ছাড়া ১৯৭০ সালের নির্বাচনে বিজয়ী পাকিস্তান জাতীয় পরিষদ ও ও পূর্ব পাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদে আওয়ামী লীগের নির্বাচিত সদস্যদের দেশদ্রোহী আখ্যা দিয়ে আসনগুলো অবৈধ ভাবে শূন্য ঘোষণা করা হয়েছিল। নির্বাচিতদের বাদ দিয়ে যাদের সদস্য করা হয়েছিল তাদের নাম স্বাধীনতা বিরোধীদের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করতে বলেছিল সংসদীয় কমিটি। স্বাধীনতা বিরোধীদের তালিকা প্রস্তুত ও সংরক্ষণে আইন সংশোধনসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ৫ সদস্যদের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। শাজাহান খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে মুক্তিযুদ্ধবিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম ও কাজী ফিরোজ রশীদ অংশ নেন। সংসদীয় কমিটির সূত্র জানায়, এর আগে গত ২৮ এপ্রিল কমিটির বৈঠকেও স্বাধীনতা বিরোধীদের তালিকা করার বিষয়ে আলোচনা হয়। বৈঠকে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল আইনে শুধু মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা করার কথা উল্লেখ থাকায় রাজাকার, আল বদর, আল শামস বা স্বাধীনতা বিরোধীদের তালিকা করার আইনগত ভিত্তি নেই। আইনে স্বাধীনতা বিরোধীদের তালিকা করার বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করার জন্য আইনটি সংশোধনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এক মাসের মধ্যে খসড়া চূড়ান্ত করা সম্ভব হবে। -আলোকিত বাংলাদেশ

জাতীয় পাতার আরো খবর