শেখ হাসিনার ট্রেনবহরে হামলার মামলায় ৯ জনের ফাঁসি
৩জুলাই২০১৯,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: পাবনার ঈশ্বরদীতে ১৯৯৪ সালে তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেতা ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনে বোমা হামলার মামলায় ৯ জনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে ২৫ জনের যাবজ্জীবন এবং বাকিদের ১০ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ বুধবার পাবনার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ রুস্তম আলী এ রায় ঘোষণা করেন। এর আগে গত সোমবার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছিলেন আদালত। ওইদিন জেলহাজতে থাকা বিএনপির ৩০ নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে উভয়পক্ষের আইনজীবীরা তাদের যুক্তি তুলে ধরেন। মামলার ৫২ জন আসামির মধ্যে সাতজন মারা গেছেন। গত রোববার ৩০ জন আসামি জামিন আবেদন করলে বিচারক তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন এবং বাকি আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন। আদালত সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেতা সাংগঠনিক সফরে খুলনা থেকে রাজশাহী অভিমুখে ট্রেনযোগে রওনা হন। পথে ঈশ্বরদী স্টেশনে তার একটি নির্ধারিত পথসভা ছিল। তাকে বহনকারী ট্রেনটি পাকশী স্টেশনে পৌঁছার পরপরই ওই ট্রেনে ব্যাপক গুলিবর্ষণ ও বোমা হামলা চালানো হয়।
বেইজিংয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে লালগালিচা সংবর্ধনা
৩জুলাই২০১৯,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: চীনের নেতাদের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে অংশ নিতে বেইজিংয়ে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বুধবার সকালে বেইজিংয়ে পৌঁছানোর পর শেখ হাসিনাকে লালগালিচা সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় সময় সকাল ১১টা ৫ মিনিটে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিশেষ বিমানটি বেইজিং বিমানবন্দরে অবতরণ করে। সেখানে প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানান চীনের ভাইস ফরেন মিনিস্টার কিং গ্যাং। বিমানবন্দরে একটি ছোট শিশু প্রধানমন্ত্রীকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানায়। এ সময় চীনের সামরিক বাহিনীর একটি সুসজ্জিত দল প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অব অনার প্রদান করে। পরে প্রধানমন্ত্রীকে মোটর শোভাযাত্রা করে দিয়াওয়ুতাই রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবনে নিয়ে যাওয়া হয়। বেইজিং সফরকালে প্রধানমন্ত্রী এখানেই অবস্থান করবেন। এর আগে স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় দিকে চীন সরকারের দেওয়া একটি বিশেষ চার্টার্ড ফ্লাইটযোগে বেইজিংয়ের উদ্দেশে দালিয়ান ত্যাগ করেন প্রধানমন্ত্রী। আজ বিকালে বেইজিংয়ের লিজেনদালি হোটেলে প্রবাসী বাংলাদেশিদের দেওয়া এক নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ও নৈশভোজে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামীকাল ৪ জুলাই সকালে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠান এবং গ্রেট হল অব দ্য পিপলে হিরোস মেমোরিয়ালে বীরদের প্রতি পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন তিনি। পরে তিনি চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াংয়ের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন এবং গ্রেট হল অব দ্য পিপলে এক চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। প্রধানমন্ত্রী একই জায়গায় চীনা প্রধানমন্ত্রী আয়োজিত এক নৈশভোজেও যোগ দেবেন। একই দিন বিকেলে প্রধানমন্ত্রী সিসিপিআইটিতে চীনা ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে বাণিজ্যবিষয়ক এক গোল টেবিল বৈঠকে অংশ নেবেন। ৫ জুলাই সকালে চীনা গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্যানগোল ইনিস্টিটিউশন আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেবেন প্রধানমন্ত্রী। পরে বিভিন্ন চীনা কোম্পানির সিইও শেখ হাসিনার সঙ্গে তার আবাসস্থলে সাক্ষাৎ করবেন বলে জানা গেছে। এছাড়া এনপিসি চেয়ারম্যান লি ঝাংশুর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। সেদিন বিকেলে প্রধানমন্ত্রী দিয়াওয়ুতাই রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবনে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে বৈঠক করবেন এবং রাতে একই জায়গায় চীনা প্রেসিডেন্টের দেওয়া নৈশভোজে যোগ দেবেন। প্রধানমন্ত্রী তার চীন সফর শেষ করে ৬ জুলাই স্থানীয় সময় সকাল ১১টায় বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইটে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবেন। ফ্লাইটটি একই দিন বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টা ৩৫ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে। গত সোমবার পাঁচদিনের সফরে চীন সফরে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
রিফাত হত্যার ২ নম্বর আসামি গ্রেপ্তার
৩জুলাই২০১৯,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: বরগুনায় স্ত্রীর সামনে প্রকাশ্যে স্বামী রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা মামলার ২ নম্বর আসামি রিফাত ফরাজীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে কোথা থেকে কখন গ্রেপ্তার করা হয়েছে তা জানা যায়নি। আজ বুধবার সকাল ৯টায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বরগুনার পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন। তিনি বলেন, পরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হবে। এর আগে গতকাল মঙ্গলবার ভোরে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন নয়ন বন্ড। তিনি রিফাতকে কুপিয়ে হত্যা মামলার প্রধান আসামি ছাড়াও একাধিক মামলার আসামি ছিলেন। গত ২৬ জুন (বুধবার) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত শরীফকে প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে নয়ন ও তার সহযোগীরা। পরে গুরুতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রিফাত শরীফকে কোপানোর ঘটনার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। ওই ভিডিওতে নয়ন ও রিফাত ফরাজীকে রামদা দিয়ে রিফাত শরীফকে কোপাতে দেখা যায়। ঘটনার পরদিন ২৭ জুন ১২ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন রিফাতের বাবা মো. আ. হালিম দুলাল শরীফ। আসামিরা হলেন সাব্বির আহমেদ নয়ন (নয়ন বন্ড) (২৫), মো. রিফাত ফরাজী (২৩), মো. রিশান ফরাজী (২০), চন্দন (২১), মো. মুসা, মো. রাব্বি আকন (১৯), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (১৯), রায়হান (১৯), মো. হাসান (১৯), রিফাত (২০), অলি (২২) ও টিকটক হৃদয় (২১)। বাকি পাঁচ থেকে ছয়জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়। এ মামলায় এজাহারভুক্ত ১২ আসামির মধ্যে রিফাত ফরাজীসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অপর দুই আসামি হলো চন্দন ও মো. হাসান। এ ছাড়া সন্দেহভাজন আরও চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা হলো তানভীর, মো. সাগর, কামরুল হাসান সাইমুন ও মো. নাজমুল হাসান। আর বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয় প্রধান আসামি নয়ন বন্ড।
হাইকোর্টে লতিফ সিদ্দিকী, আদেশ আগামীকাল
২জুলাই২০১৯,মঙ্গলবার,নিউজ একাত্তর ডট কম:বগুড়ায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা মামলায় সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর হাইকোর্টে জামিন চেয়ে করা আবেদনের ওপর শুনানি শেষ হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বিচারপতি মো: নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কেএম হাফিজুল আলমের বেঞ্চ শুনানি শেষে আদেশের জন্য আগামীকাল বুধবার দিন ধার্য করেছেন। আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী শাহ মঞ্জুরুল হক। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। দুদকের পক্ষে ছিলেন ওমর ফারুক। আদালতের আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। ২০১৭ সালের ১৭ অক্টোবর রাতে দুদকের বগুড়া সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে আদমদীঘি থানায় পাটকলের প্রায় আড়াই একর জমি দরপত্র ছাড়াই বিক্রির মাধ্যমে সরকারের প্রায় ৪০ লাখ ৭০ হাজার টাকা আর্থিক ক্ষতির অভিযোগ এনে সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীসহ দুজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। মামলার অপর আসামি হলেন- ওই জমির ক্রেতা বগুড়া শহরের কাটনারপাড়া এলাকার মৃত হারুন-অর-রশিদের স্ত্রী জাহানারা রশিদ। গত ২০ জুন এ মামলায় বগুড়ার আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদনের পর তা নামঞ্জুর করেন আদালত।
শেখ হাসিনার ট্রেনবহরে হামলা মামলার রায় আগামী বুধবার
২জুলাই২০১৯,মঙ্গলবার,নিউজ একাত্তর ডট কম:চব্বিশ বছরের বেশি সময় পর পাবনার ঈশ্বরদীতে শেখ হাসিনা বিরোধী দলের নেত্রী থাকার সময় তাঁর ট্রেনবহরে গুলিবর্ষণ ও হামলা মামলার রায় আগামী বুধবার। রায় ঘোষণার দিন ধার্য করেছেন পাবনার অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক রুস্তম আলী। সোমবার দুপুরে রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক শোনার পর বিচারক রায় ঘোষণার দিন ধার্য করেন। এ মামলার আসামিরা হচ্ছে স্থানীয় বিএনপির নেতা-কর্মীরা।সূত্র: আমাদের সময় ডট কম।জানা গেছে, ১৯৯৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উত্তরাঞ্চলে দলীয় কর্মসূচিতে অংশগ্রহনের জন্য ট্রেনে করে খুলনা থেকে সৈয়দপুর যাচ্ছিলেন। ট্রেনটি পাবনার ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন স্টেশনে প্রবেশের সময় ট্রেনবহরকে লক্ষ্য করে স্থানীয় বিএনপির নেতা-কর্মীরা অতর্কিত গুলি, বোমাবর্ষণ ও হামলা চালায়। ওই সময় পুলিশ স্থানীয় বিএনপির নেতা-কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে গেলে বিএনপির নেতা-কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করেও বোমা নিক্ষেপ করে। বোমার আঘাতে তৎকালীন ম্যাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেনসহ পুলিশের বেশ কয়েকজন সদস্য আহত হন। এ ঘটনায় ঈশ্বরদী রেলওয়ে পুলিশ বাদী হয়ে বিএনপির নেতা-কর্মীদের নামে মামলা করে। পরে মামলাটি সিআইডিতে হস্তান্তর করা হয়।দীর্ঘ তদন্তে শেষে এ মামলায় ৫২ জনকে আসামি করে আদালতে চূড়ান্ত অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। ২৪ বছর ৯ মাস ৯ দিন পর আগামী বুধবার এ মামলার রায় হতে যাচ্ছে। এ মামলার আসামির মধ্যে ৫জন মারা যায়। গত রোববার দুপুরে এ মামলার ৩০ জন আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়। বিচারক রুস্তম আলী তাঁদের জামিন বাতিল করে কারাগারে পাঠান। বাকি আসামিরা আদালতে হাজির না হওয়ায় তাঁদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।
যৌক্তিক কিছু কারণে গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে
২জুলাই২০১৯,মঙ্গলবার,নিউজ একাত্তর ডট কম:গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির পিছনে যৌক্তিক কারণ আছে বলে জানালেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) অভিনেতাএটি এম শামসুজ্জানকে দেখতে এসে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। কাদের বলেন, গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির পেছনে বেশ কিছু যৌক্তিক কারণ রয়েছে। এ নিয়ে যদি বিরোধী দল হরতাল বিক্ষোভের ডাক দেন তাহলে আমার ধারণা তাতে জনগণের সাড়া তারা পাবেন না। কারণ দেশের মানুষ বাস্তবতা বুঝেন। যৌক্তিক কিছু কারণে গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে। বিষয়টি দেশের মানুষ সহজ ভাবে নিবেন। হরতালে জনগণের ভোগান্তি যাতে না হয় সে বিষয়ে আমরা সতর্ক থাকবো। যুদ্ধাপরাধী পরিবারের সদস্য বা জামায়াত- শিবিরের লোকজন আওয়ামী লীগের সদস্য হতে পারবে কিনা জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ বিষয়ে নতুন কোনো সিদ্ধান্ত আমাদের নাই। আমাদের অবস্থান পরিষ্কার, আমরা কোন সময় তাদের সাথে আপোষ করে নিয়ে আমাদের পূর্বের সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে।
যোগ্যতার ভিত্তিতেই পুলিশে চাকরি হবে:ডিআইজি হাবিবুর রহমান
২জুলাই২০১৯,মঙ্গলবার,নিউজ একাত্তর ডট কম:ঢাকা রেঞ্জ ডিআইজি হাবিবুর রহমান কনস্টেবল নিয়োগে নিজের বিভাগে জিরো টলারেন্স দাবি করে বলেছেন, চাকরি হবে মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে। গতকাল নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি একথা বলেন। ঢাকা রেঞ্জের পুলিশ সুপারদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা সততা নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করুন। কারো কোনো অন্যায় আবদার রাখার দরকার নেই। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী জঙ্গি, মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করে সফল হয়েছেন। তার আন্তরিক সদিচ্ছার কারণে দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভাল আছে। প্রধানমন্ত্রী ইতিমধ্যে বিশ্বমানচিত্রে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি একধাপ তুলে দিয়েছেন। তিনি দেশের ভেতরেও অন্যায়, অনিয়ম, দূর্নীতিরোধে বদ্ধ পরিকর। ফলে গত কয়েক বছর ধরেই পুলিশের নিয়োগ প্রক্রিয়ার মধ্যে স্বচ্ছতা আনা হয়েছে। এবার আমরা পুলিশের নিয়োগে শতভাগ স্বচ্ছতার সঙ্গে করছি। এরই ধারাবাহিতকতায় আইজিপি ইতিমধ্যে পুলিশ সুপার, ও তদুর্দ্ধ কর্মকর্তাদের নিয়ে পুলিশ সদর দফতরে একাধিক বৈঠক করেছেন। বৈঠকে তিনি প্রধানমন্ত্রীর উদ্ধৃতি দিয়েছেন, যে এবার পুলিশ নিয়োগে কোনো অনিয়ম বরদাশত করা হবে না। দেশের সব জেলাতেই এই নিয়ম মেনে পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে। ১০৩ টাকার ফর্ম কিনে যে কেউ পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেন। শারীরিক যোগ্যতা, লিখিত পরীক্ষা ও মৌখিক পরীক্ষায় যারা উন্নীত হবে তারাই পুলিশের চাকরী পাবে। সুতরাং এখন থেকে কোনো অনিয়ম দুর্নীতির মাধ্যমে নয়- যোগ্যতার ভিত্তিতেই পুলিশে চাকরি হবে।তিনি বলেন, ঢাকা রেঞ্জের সব জেলা পুলিশ সুপাররা এ নিয়ম শতভাগ ফলো করছেন। আমি নিয়মিত তদারকি করছি।
পুলিশ নিজের জীবন রক্ষার্থেই গুলিবিনিময় করেছে
২জুলাই২০১৯,মঙ্গলবার,নিউজ একাত্তর ডট কম:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল কামাল বলেছেন, বরগুনার রিফাত হত্যার প্রধান আসামি নয়নের সঙ্গে আত্মরক্ষার্থেই পুলিশ গুলি বিনিময় করেছে। মঙ্গলবার দুপুরে সিরডাপ মিলনায়তন থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের তিনি একথা বলেন।স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যার প্রধান আসামি সাব্বির আহম্মেদ ওরফে নয়ন বন্ডকে (২৫) নিরাপত্তা বাহিনী বেশ কিছু দিন ধরে খুঁজছিল। নয়ন ছিল পলাতক। পুলিশ যখন তাকে ধরার চেষ্টা করছিল তখন নয়ন অস্ত্র প্রদর্শন করেছিল। এই জন্য পুলিশ নিজের জীবন রক্ষার্থেই গুলিবিনিময় করেছে। আর তাতে নয়ন বন্ড নিহত হয়। তিনি বলেন, এই ঘটনায় আরও যারা জড়িত তাদের জীবিত গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছিল। কিন্তু সম্ভব হয়নি। যত প্রভাবশালী লোকই এই ঘটনায় জড়িত থাকুক না কেন, তাদেরকেও আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে। আমরা কেউ চাই না, বরগুনার রিফাত হত্যার মতো কোনো ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটুক।
বালিশকাণ্ডে হাইকোর্টের রুল
২জুলাই২০১৯,মঙ্গলবার,নিউজ একাত্তর ডট কম:রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় নির্মাণাধীন ভবনে আসবাবপত্র বিশ্বস্ততার সঙ্গে (গুড ফেইথ) কেনা ও উত্তোলনের ব্যর্থতা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে ওই ঘটনায় করা দুটি তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন দাখিল ও প্রতিবেদন অনুসারে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে তা জানাতে রাষ্ট্রপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। জনস্বার্থে করা রিটের শুনানিতে আজ মঙ্গলবার বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. সোহরাওয়ার্দীর হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন রিটকারী আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমাতুল করিম। পরে ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সাংবাদিকদের জানান, পাবনার রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে বালিশকাণ্ডে ওই বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্প এলাকায় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের থাকার জন্য গ্রিনসিটি আবাসন পল্লীর বিছানা, বালিশ, আসবাবপত্র অস্বাভাবিক মূল্যে কেনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। রুলে এগুলো কেনা ও উত্তোলনে সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মকর্তাদের সততা ও স্বচ্ছতা বজায় না রাখা কেন বেআইনি ও অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে এ ঘটনায় গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের তদন্ত প্রতিবেদন আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে দাখিল করতে বলা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট কোর্টের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ প্রতিবেদন দাখিল করবেন। ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন বলেন, সম্প্রতি রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্পের গ্রিনসিটি আবাসন পল্লীর ভবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস কেনা ও তা ভবনে তোলায় অনিয়ম ও আর্থিক দুর্নীতি নিয়ে গত ১৬ মে বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। রিটকারী আইনজীবী জানান, ওই সব প্রতিবেদন সংযুক্ত করে এ ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে এ আবেদনটি করা হয়েছে। সুমন আরো বলেন, ওই প্রকল্পের জন্য গ্রিনসিটি আবাসন পল্লীর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের থাকার জন্য যে ভবন, সেখানকার ফার্নিচার থেকে শুরু করে অন্যান্য জিনিস অস্বাভাবিক দামে কেনা হয়েছে। শুধু তাই নয়, তা ভবনে তোলার জন্যও অস্বাভাবিক খরচ দেখানো হয়েছে। এটি তদন্ত করার জন্য একটি বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠনের নির্দেশনা চেয়েছি। এর আগে গত ১৯ মে এ ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন জনস্বার্থে এই রিট আবেদন করেন। রিটে গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক মন্ত্রণালয় সচিব, পাবনার গণপূর্ত কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হয়েছে।

জাতীয় পাতার আরো খবর