রোববার আবুধাবি যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
১১জানুয়ারী,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবুধাবি সাসটেইনাবিলিটি সপ্তাহে- যোগ দিতে সরকারি সফরে সংযুক্ত আরব আমিরাত যাচ্ছেন। রোববার (১২ জানুয়ারি) বিকেল ৫টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি-০২৭ ভিভিআইপি ফ্লাইটে আবুধাবির উদ্দেশে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছাড়বেন প্রধানমন্ত্রী। এ দিন স্থানীয় সময় রাত ৮টা ৫৫ মিনিটে আবুধাবি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। সংযুক্ত আরব আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরান বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানাবেন। এরপর বিমানবন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষে মোটর শোভাযাত্রা সহযোগে প্রধানমন্ত্রীকে নেওয়া হবে সফরকালীন আবাসস্থল শাংগ্রি-লা হোটেলে। সোমবার (১৩ জানুয়ারি) সকাল ১১টায় আবুধাবি জাতীয় প্রদর্শন কেন্দ্রে আবুধাবি সাসটেইনাবিলিটি সপ্তাহ এবং জায়েদ সাসটেইনাবিলিটি পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিন। বিকেলে সফরকালীন আবাসস্থল শাংগ্রি-লা হোটেলে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে নিযুক্ত বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূতদের নিয়ে দূত সম্মেলনে অংশ নেবেন শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রধানমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুম, আবুধাবির ক্রাউন প্রিন্স শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ান এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্থপতি ও প্রতিষ্ঠাতা রাষ্ট্রপতির স্ত্রী শেখ ফাতিমা বিনতে মুবারাক আল কেতবির সঙ্গে বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ দিন বিকেলে আবুধাবি জাতীয় প্রদর্শন কেন্দ্রে দি ক্রিটিক্যাল রোল অব ওমেন ইন ডেলিভারিং ক্লাইমেট বিষয়ক কী নোট সাক্ষাৎকার পর্বে অংশগ্রহণ করবেন শেখ হাসিনা। এরপর স্থানীয় সময় বিকেল সাড়ে ৫টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি-১১০২ ভিভিআইপি ফ্লাইটে ঢাকার উদ্দেশে আবুধাবি ছাড়বেন প্রধানমন্ত্রী। স্থানীয় সময় রাত ১২টার দিকে ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তজার্তিক বিমানবন্দর পৌছানোর কথা প্রধানমন্ত্রীর। আবুধাবি সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরসঙ্গীদের মধ্যে রয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমেদ, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন মিয়া, স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ) মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মজিবুর রহমানসহ আরও অনেকে।
বহুবার ফেল করেছি কিন্তু নকল করিনি : রাষ্ট্রপতি
১১জানুয়ারী,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ জানিয়েছেন, তিনি জীবনে অনেক পরীক্ষায় ফেল করেছেন, তবে কখনো পাস করার জন্য নকলের মতো অনৈতিক পথ অবলম্বন করেননি। এমনকি পাশের কাউকে জিজ্ঞেসও করেননি। এটা তার জীবনের অহংকার এবং এটা নিয়ে তিনি গর্ববোধ করেন। আজ শনিবার দুপুরে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি এ কথা জানান। রাজধানীর গেন্ডারিয়ার ধূপখোলা মাঠে এই সমাবর্তনের আয়োজন করা হয়। এ সময় আক্ষেপ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, এখন প্রায়ই শুনি শিক্ষকরা ছাত্রদের কাছে নকল সাপ্লাই করে। অনেক জায়গায় শোনা যায় অভিভাবকরা নকল সাপ্লাই করে। এর চেয়ে দুঃখজনক আর কী হতে পারে? পরীক্ষায় নকল প্রবণতা ও অনৈতিক পন্থা অবলম্বনের কারণে দেশ ও জাতি ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে জানিয়ে এর বিরুদ্ধে সবাইকে প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানান রাষ্ট্রপ্রধান। নিজের জীবনের স্মৃতিচারণ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, আমি ১৯৭০ সালে পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের সদস্য হিসেবে নির্বাচন করি। সে নির্বাচনে আমি ছিলাম গোটা পাকিস্তানে সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী। সত্তরের ৭ ডিসেম্বরের নির্বাচনে জয়লাভ করেছিলাম। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধ শুরু হয়ে যাওয়ায় পাকিস্তানের পার্লামেন্টে যেতে পারিনি। আবদুল হামিদ বলেন, রাজনীতির কারণে যথাসময়ে ডিগ্রি পাস করতে পারিনি। ১৯৬৯ সালে ডিগ্রি পাস করি। ৭১ সালে ল পরীক্ষা দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু স্বাধীনতা যুদ্ধের কারণে তা সম্ভব হয়নি। দেশ স্বাধীনের পর ৭২ সালে ল পরীক্ষার ব্যবস্থা হয়। চার পেপারে পরীক্ষা। তখন সারাদেশের পরীক্ষা হয়েছিল জগন্নাথ কলেজে। আমিও সেই পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলাম। রাষ্ট্রপতি বলেন, পরীক্ষা যখন দিতে গেলাম দেখলাম সবাই মোটা মোটা বই দেখে লিখে যাচ্ছে। বই সামনে ছাড়া খুব কমই দেখেছি। আমি তখন বাংলাদেশের গণপরিষদের সদস্য। ভাবলাম, আমি যদি এই কাজটি করি তাহলে কেমন হয়! মাঝে মাঝে সাংবাদিকরাও আসছে। তারা যদি কিছু লেখে! পরে সিদ্ধান্ত নিলাম, কপালে যা আছে হবে কিন্তু বই দেখব না। যা পারি তাই লেখলাম। ফলাফলে চার সাবজেক্টের মধ্যে দুই সাবজেক্টে পাস করি আর দুই সাবজেক্টে ফেল করি। পরে অবশ্য ১৯৭৪ সালে ভালোভাবে পড়াশোনা করে ল পরীক্ষা দিয়ে পাস করি।
অনেক সরকারি প্রতিষ্ঠানও পরিবেশের ক্ষতি করছে: তথ্যমন্ত্রী
১১জানুয়ারী,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন করতে গিয়ে অনেক সরকারি প্রতিষ্ঠানও প্রকৃতি ও পরিবেশের ক্ষতি করছে। বললেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। শনিবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বন ও পরিবেশবিদ্যা ইনস্টিটিউট এ্যালামনাই এসোসিয়েশনের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় মন্ত্রী আরও বলেন, পৃথিবী ও প্রকৃতিকে বাঁচিয়ে রাখার কথা মাথায় রেখে উন্নয়ন পরিকল্পনা করা উচিত। কিন্তু কিছু কিছু ক্ষেত্রে অনেক সরকারি প্রতিষ্ঠানও এসব খেয়াল করে না। তথ্যমন্ত্রী চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সমালোচনা করে বলেন, রাস্তা করার জন্য সিডিএর মতো একটি প্রতিষ্ঠান ৩০০ ফুট পাহাড় কেটে সমতল করে ফেলেছে। যা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। প্রকৃতি ও পরিবেশের ক্ষতি না করে কিভাবে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন করা যায় সেদিকে সরকারি প্রতিষ্ঠানসহ সকলকে সচেতন থাকতে হবে। অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. শিরিন আখতার, নেদারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত শেখ মোহাম্মদ বেলাল ও চট্টগ্রাম সেনানিবাসের জিওসি মেজর জেনারেল মতিউর রহমান উপস্থিত ছিলেন।
আমু-তোফায়েল নির্বাচনে সমন্বয়কের দায়িত্বে থাকতে পারবেন না: সিইসি
১১জানুয়ারী,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা জানিয়েছেন, আসন্ন ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনে তোফায়েল আহমেদ ও আমির হোসেন আমু সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না। আজ শনিবার (১১ জানুয়ারি) দুপুরে নির্বাচন কমিশন ভবনে আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে এ কথা বলেন সিইসি। সিইসি বলেন, তারা নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালাতে পারবেন না। কিন্তু নির্বাচনী এলাকায় রাজনৈতিক কর্মসূচি করতে পারবেন। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমুকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) এবং আরেক সদস্য তোফায়েল আহমেদকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) সমন্বয়কের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এর আগে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সঙ্গে বৈঠক করেন সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল। ইসির পক্ষ থেকে সিইসি, কমিশনার মাহবুব তালুকদার, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী, মো. রফিকুল ইসলাম ও বেগম কবিতা খানম বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।
বিশ্ব ইজতেমায় আরও ৬ মুসল্লির মৃত্যু
১১জানুয়ারী,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে মারা গেছেন আরও পাঁচজন মুসল্লি। শুক্রবার বিকেল থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত এই পাঁচজন মারা যান। এ নিয়ে ইজতেমায় মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ৯ জনে। মারা যাওয়া ব্যক্তিরা হলেন-রাজশাহীর চারগাছ থানার বনকিশোর এলাকার আব্দুর রাজ্জাক (৬৭)। তিনি শুক্রবার বিকেলে মারা যান। আর রাতে মারা যান-কুমিল্লার দেবিদ্বার থানার ডিমলা এলাকার তমিজ উদ্দিন (৬৫), ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ থানার বড়তোল্লা এলাকার মো. শাহজাহান (৬০)। শনিবার সকালে মারা গেছেন-বরিশালের গৌরনদী থানার খালিজপুর এলাকার আলী আজগর (৭০) ও নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানার দক্ষিণ কলাবাগান এলাকার মো. ইউসুফ আলী মেম্বার (৪৫)। ইজতেমা ময়দানে পুলিশ কন্ট্রোল রুমের মিডিয়া সেন্টারে দায়িত্বপালনরত গাজীপুর মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার মো. মনজুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, অসুস্থতাসহ বিভিন্ন কারণে তারা মারা গেছেন বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। ফজরের নামাজের পর দুজনের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে গত বৃহস্পতিবার সকালে ও রাতে ইজতেমা ময়দানে আরও চারজন মারা যান। তাদের তিনজন হলেন-সিরাজগঞ্জের কাজিপুর থানার পাটগ্রাম এলাকার বাসিন্দা খোকা মিয়া (৬০), চট্টগ্রামের পটিয়া থানার খৈগ্রাম এলাকার মোহাম্মদ আলী (৭০) ও গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া লাখীরপাড় এলাকার ইয়াকুব আলী সিকদার। প্রসঙ্গত, শুক্রবার বাদ ফজরে আম বয়ানের মধ্য দিয়ে ৫৫তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম দিনের কার্যক্রম শুরু হয়। আগামী রোববার আখেরি মোনাজাতে শেষ হবে এই ইজতেমার প্রথম পর্ব। দ্বিতীয় পর্ব শুরু হবে ১৭ জানুয়ারি, শেষ হবে ১৯ জানুয়ারি। এবার প্রথম পর্বের ইজতেমায় অংশ নিচ্ছেন মাওলানা জুবায়েরের অনুসারীরা। মাওলানা সাদ কান্ধলভীর অনুসারীরা অংশ নেবেন দ্বিতীয় পর্বে।
১০ টাকার টিকিটে চোখ দেখালেন প্রধানমন্ত্রী
১১জানুয়ারী,শনিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ১০ টাকার টিকিট কেটে রাজধানীর জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ শনিবার সকাল ৯টার দিকে টিকিট কেটে চোখ পরীক্ষা করান তিনি। জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক গোলাম মোস্তাফা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, এটি ছিল প্রধানমন্ত্রীর নিয়মিত চোখ পরীক্ষা। প্রধানমন্ত্রী নিজে টিকিট কাটেন। প্রধানমন্ত্রীর সাবেক স্বাস্থ্য উপদেষ্টা ড. অধ্যাপক মোদাচ্ছির আলী ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক কাজী দীন মোহাম্মদ নুরুল হক ও তিনিসহ তিন চিকিৎসক প্রধানমন্ত্রীর চোখ পরীক্ষা করেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) মেডিসিন অনুষদের সাবেক ডিন এ বি এম আব্দুল্লাহ। এর আগেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টিকিট কেটে চিকিৎসা সেবা নিয়েছেন।
বাগেরহাট-৪ আসনের এমপি মোজাম্মেল হোসেন আর নেই
১০জানুয়ারী ,শুক্রবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বাগেরহাট-৪ (মোরেলগঞ্জ-শরণখোলা) আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মোজাম্মেল হোসেন আর নেই। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত পৌনে একটার দিকে ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ও হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। এমপি মোজাম্মেলের পারিবারিক সূত্রে বিষয়টি জানা গেছে। জানা যায়, গুরুতর অসুস্থ হলে ছয় দিন আগে মোজাম্মেল হোসেনকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেলে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল রাতে না ফেরার দেশে চলে যান তিনি। মোজাম্মেল হোসেন বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন। ১৯৯১ সালে তিনি বাগেরহাট-১ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। এরপর বাগেরহাট-৪ আসন থেকে ১৯৯৬, ২০০৮, ২০১৪ ও ২০১৯ সালে আওয়ামী লীগের টিকিটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। ১৯৯৬ সালে গঠন করা আওয়ামী লীগ সরকারের সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন তিনি। শুক্রবার সকাল ১১টায় জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় মরহুমের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে বাগেরহাটে। সেখানে জানাজা শেষে তাকে দাফন করা হবে।
বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা
১০জানুয়ারী ,শুক্রবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের গণমাধ্যমকে বলেন, বঙ্গবন্ধুর অনুপস্থিতিতে বাঙালির বিজয় ছিলো অসম্পূর্ণ। বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের মধ্য দিয়ে সেই বিজয় পূর্ণতা পেয়েছে। তাই এই দিনটি বাঙালি জাতির জন্য অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) সকালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে তার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা প্রথমে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন শেখ হাসিনা।পরে আওয়ামী সভাপতি হিসেবে ওবায়দুল কাদেরসহ দলের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে বঙ্গবন্ধু প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা শেষে তিনি এসব কথা বলেন। সেতুমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় সাম্প্রদায়িকতার প্রধান অন্তরায়। আর এর পৃষ্ঠপোষক হিসেবে কাজ করছে বিএনপি। আর সাম্প্রদায়িকতার এই বিষ বৃক্ষের মূল উৎপাটন করে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সোনার বাংলা গড়ে তোলাই আওয়ামী লীগের মূল লক্ষ্য। আওয়ামী লীগকে আরো সুসংগঠিত করা হবে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগকে আরও সুসংগঠিত আর আদর্শিক দল হিসেবে গড়ে তোলার মধ্য দিয়ে সোনার বাংলা গড়তে একটি সহযোগী ভূমিকা পালনই হবে আজকের দিনের শপথ।
৭ দিনের রিমান্ডে মজনু
০৯জানুয়ারী,বৃহস্পতিবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার মজনুকে সাত দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পুলিশকে অনুমতি দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (০৯ জানুয়ারি) ঢাকা মহানগর হাকিম সরাফুজ্জামান আনছারীর আদালত এই অনুমতি দেন। এর আগে দুপুর ১টা ৩৫ মিনিতে তাকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চায় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। শুনানি শেষে আদালত ওই রিমান্ড মঞ্জুর করেন। গত মঙ্গলবার ঢাবি শিক্ষার্থীর মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে ভোরে মজনুকে রাজধানীর শেওড়া থেকে গ্রেফতার করা হয়।পরে কারওয়ান বাজারের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে Rab জানায়, অভিযুক্ত ধর্ষক মজনু মাদকাসক্ত, ভিক্ষুক এবং প্রতিবন্ধী নারীদের ধর্ষণ করা তার নেশা। মজনুর কাছ থেকে এ সময় উদ্ধার হয় ভুক্তভোগীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোন, পাওয়ার ব্যাংক আর ব্যাগ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে Rabর কাছে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে সে। Rab আরো জানান, ধর্ষক মজনু সিরিয়াল রেপিস্ট, মানসিক প্রতিবন্ধী আর ভিক্ষুকদের টার্গেট করে চালাত নির্যাতন। এদিকে, ধর্ষকের সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ডের দাবিতে মানববন্ধন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশ্বধর্ম ও সংস্কৃতি বিভাগ। সকালে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে মানববন্ধনে বিভাগের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন। ধর্ষককে দ্রুততম সময়ের মধ্যে গ্রেপ্তার করায় প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানান আয়োজকরা।

জাতীয় পাতার আরো খবর