আবরার হত্যা: জিয়নের জামিন নামঞ্জুর
২জুন,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা মামলায় বহিষ্কৃত বুয়েট ছাত্রলীগের ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিয়নের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। মঙ্গলবার (২ জুন) ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এবং ভার্চয়াল কোর্টের বিচারক আবু জাফর কামরুজ্জামান এ আদেশ দেন। জিয়নের পক্ষে জামিন শুনানি করেন তার আইনজীবী ফারুক আহাম্মদ। শুনানিতে তিনি বলেন, আসামি অসুস্থ। দীর্ঘদিন ধরে কারাগারে রয়েছেন। করোনা ভাইরাসের কারণে যেকোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। তাই আমি আসামির জামিন চাচ্ছি। তার জামিন মঞ্জুর করেন। রাষ্ট্রপক্ষে সংশ্লিষ্ট আদালতের প্রসিকিউটর আবু আব্দুল্লাহ ভূঁইঞা জামিন আবেদনের বিরোধিতা করেন। শুনানি শেষে আদালত জামিন আবেদন নাকচ করেন। গত ২২ মার্চ দ্রুত এক নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইবনালে মামলার নথি পৌঁছালে বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান অভিযোগ গঠনের ৬ এপ্রিল দিন ধার্য করেন। তবে ক=রোনা ভাইরাসের কারণে আদালতের কার্যক্রম বন্ধ থাকায় অভিযোগ গঠন শুনানি আর হয়নি। গত বছর ১৩ নভেম্বর মামলায় ২৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) লালবাগ জোনাল টিমের পরিদর্শক মো. ওয়াহিদুজ্জামান। মামলায় অভিযুক্ত ২৫ জনের মধ্যে এজাহারভুক্ত ১৯ জন ও এজাহার বহির্ভূত ৬ জন। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে ৮ জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। তদন্ত চলাকালে মামলায় অভিযুক্ত ২৫ জনের মধ্যে ২১ জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তারা হলেন- বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল, সহ-সভাপতি মুহতাসিম ফুয়াদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রবিন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার, ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন, উপ-সমাজসেবা সম্পাদক ইফতি মোশাররফ, উপ-আইন সম্পাদক অমিত সাহা, শাখা ছাত্রলীগ সদস্য মুনতাসির আল জেমি, মুজাহিদুর রহমান মুজাহিদ, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির ও ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্না, আবরারের রুমমেট মিজানুর রহমান মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত, মনিরুজ্জামান মনির, আকাশ হোসেন, হোসেন মোহাম্মদ তোহা, মাজেদুর রহমান, শামীম বিল্লাহ, মোয়াজ আবু হুরায়রা, এ এস এম নাজমুস সাদাত ও এস এম মাহমুদ সেতু। এছাড়া মোর্শেদ অমত্য ইসলাম নামে পলাতক এক আসামি আদালতে আত্মসমর্পণ করলে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। এরমধ্যে ছাত্রলীগ হত্যাকাণ্ডে সম্পৃক্তদের সংগঠন থেকে বহিষ্কার করে। গ্রেফতারদের মধ্যে ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্না, অমিত সাহা, মিজানুর রহমান মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত ও এস এম মাহমুদ সেতু ছাড়া বাকি সবাই এজাহারভুক্ত আসামি। এরমধ্যে ৮ জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। তারা হলেন- ইফতি মোশাররফ সকাল, মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন, অনিক সরকার, মুজাহিদুর রহমান, মেহেদি হাসান রবিন, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভীর, মনিরুজ্জামান মনির ও এএসএম নাজমুস সাদাত। এখন পলাতক রয়েছেন আর তিন আসামি। তারা হলেন- মোর্শেদুজ্জামান জিসান, এহতেশামুল রাব্বি তানিম ও মোস্তবা রাফিদ। এরমধ্যে মোস্তবা রাফিদের নাম এজাহারে ছিল না গত ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলে ছাত্রলীগের কিছু উচ্ছৃঙ্খল কর্মীর হাতে নির্দয় পিটুনির শিকার হয়ে মারা যান বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ। এ ঘটনায় পরদিন নিহতের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনকে আসামি করে চকবাজার থানায় একটি মামলা করেন।
করোনাকালে সরকারের ত্রাণ সহায়তা পেয়েছে সোয়া ৬ কোটি মানুষ
২জুন,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা ভাইরাসের দুর্যোগে সারাদেশের সাধারণ মানুষের কষ্ট লাঘবে ত্রাণ সহায়তা অব্যাহত রেখেছে সরকার। এ পর্যন্ত সারাদেশে প্রায় দেড় কোটি পরিবারের সোয়া ছয় কোটি মানুষকে ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হয়েছে। ৬৪ জেলা প্রশাসন থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ১ জুন পর্যন্ত সারাদেশে চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে প্রায় এক লাখ ৯২ হাজার মেট্রিক টন। এতে উপকারভোগী পরিবার সংখ্যা ১ কোটি ৪১ লাখ ১৮ হাজার ৪৮৮টি এবং উপকারভোগী লোকসংখ্যা ৬ কোটি ২৩ লাখ ১৪ হাজার ৪০৯ জন। নগদ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে প্রায় ১১০ কোটি টাকা। এর মধ্যে নগদ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ৮৬ কোটি ৪৩ লাখ ৭২ হাজার টাকা এবং বিতরণ করা হয়েছে প্রায় ৭৫ কোটি ৭১ লাখ ১৮ হাজার টাকা। এতে উপকারভোগীর পরিবার সংখ্যা ৮৪ লাখ ৭ হাজার ১০৭টি এবং উপকারভোগী লোক সংখ্যা ৩ কোটি ৭৬ লাখ ১৫ হাজার ৭৯ জন। শিশুখাদ্য সহায়ক হিসেবে বরাদ্দ ২৩ কোটি ৯৪ লাখ টাকা এবং এ পর্যন্ত বিতরণ করা হয়েছে প্রায় ১৯ কোটি ৩১ লাখ ৫৩ হাজার টাকা। এতে উপকারভোগী পরিবার সংখ্যা ৬ লাখ ১০ হাজার ২৫১টি এবং লোক সংখ্যা ১২ লাখ ৮৪ হাজার ২০০ জন।
গ্লোবাল ভ্যাকসিন সামিটে যোগ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
২জুন,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: যুক্তরাজ্য সরকারের উদ্যোগে আয়োজিত গ্লোবাল ভ্যাকসিন সামিটে যোগ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামী ৪ জুন অনলাইনে এই সামিট অনুষ্ঠিত হবে। ঢাকার যুক্তরাজ্য হাইকমিশন মঙ্গলবার (২ জুন) এক বার্তায় জানিয়েছে, গ্লোবাল ভ্যাকসিন সামিটে যোগ দেওয়ার জন্য আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানাচ্ছি। জনস্বাস্থ্যের জন্য ভ্যাকসিন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে, এমনকি কোভিড-১৯ মোকাবিলার চেয়েও বেশি। গ্লোবাল ভ্যাকসিন সামিটে যোগ দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইতোমধ্যেই আমন্ত্রণ জানিয়েছে যুক্তরাজ্য। দেশটির ফরেন অফিস জানায়, ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্সের (গ্যাভি) তহবিল সংগ্রহের অংশ হিসেবে সারা বিশ্ব একযোগে কাজ করার লক্ষ্যে এই সামিটের আয়োজন করা হয়েছে। ২০২৫ সালের মধ্যে আরও ৩০০ মিলিয়ন শিশুর ভ্যাকসিন দান ও ৮ মিলিয়ন শিশুর জীবন বাঁচাতে একযোগে কাজ করবে গ্যাভি। আগামী ৪ জুনের অনলাইন সামিটে বিশ্বের শীর্ষ নেতাদের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। সামিটে করোনা মোকাবিলায় ভ্যাকসিন নিয়েও আলোচনা প্রাধান্য পাবে।
যাত্রী সংকটে বিমানের সব ফ্লাইট বাতিল
২জুন,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: যাত্রী সংকটের কারণে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের অভ্যন্তরীণ তিন রুটে মঙ্গলবারের (২ জুন) সব ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। এক ক্ষুদে বার্তায় বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। প্রতিদিন ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম রুটে দুটি, সিলেটে দুটি ও সৈয়দপুরে তিনটি ফ্লাইট ঘোষণা করেছিল রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। তবে বিমান বাংলাদেশ জানায়, বুধবার থেকে ফ্লাইট সংখ্যা কমানো হবে। আগের সাতটি ফ্লাইট থেকে কমিয়ে সৈয়দপুর রুটে দুটি, সিলেট রুটে একটি এবং চট্টগ্রাম রুটে একটি ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে। এর পাশাপাশি বিমান ভাড়া কমানোর চিন্তা করছে বিমান। এর আগে করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে অভ্যন্তরীণ রুটে ২৪ মার্চ থেকে বিমানের সব ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করা হয়। তবে সোমবার (১ জুন) থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট ও সৈয়দপুর রুটে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট চলাচলের অনুমতি দেয় বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। বাতিল হওয়া বিমান বাংলাদেশের সৈয়দপুর রুটের সর্বনিম্ন ওয়ানওয়ে টিকিটের দাম ধরা হয়েছিল ৩৩০০ টাকা, চট্টগ্রামে ৩১০০, সিলেটে ৩১০০ টাকা।
বিশেষ পরিকল্পনায় বসছে সংসদের বাজেট অধিবেশন
২জুন,মঙ্গলবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সংসদ সদস্যদের সীমিত অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে ১০ জুন থেকে আসন্ন বাজেট অধিবেশনের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। অধিবেশনে যোগ দেয়া সংসদ সদস্যদের স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে চলার পাশাপাশি নানা বিধি বিধান প্রয়োগ করা হবে। এছাড়া, অধিবেশনে যোগ দেয়ার ক্ষেত্রে বয়স্ক ও অসুস্থদের নিরুৎসাহিত করা হবে বলে জানিয়েছেন সংসদের চিফ হুইপ নুর ই আলম চৌধুরী। তবে, সব সংসদ সদস্যের করোনা পরীক্ষার প্রয়োজন নেই বলেও জানান তিনি। সারাদেশে এ পর্যন্ত কোভিড-১৯ এ আক্রান্তের সংখ্যা পঞ্চাশ হাজার ছুঁই ছুঁই। ইতোমধ্যে তিন জন সংসদ সদস্যও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পাশাপাশি অধিবেশনে এমপিদের সীমিত অংশগ্রহণ, পরীক্ষা করা এবং বয়স্ক ও অসুস্থদের যোগ দিতে নিরুৎসাহিত করাসহ নানা ধরনের কঠোরতার মধ্যদিয়ে আসন্ন বাজেট অধিবেশনের পরিকল্পনা নেয়া হচ্ছে। অধিবেশন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা কর্মচারী ছাড়া কারো সংসদ ভবনে প্রবেশের অনুমতি মিলবে না। স্বাস্থ্য ঝুঁকির কারণে এবার থাকবে না কোনো আমন্ত্রিত অতিথিও। জাতীয় সংসদের হুইপ মোহাম্মদ আতিকুর রহমান এমপি বলেন, সব সুরক্ষা করেই হবে। সকল ধরনের পরীক্ষা করে সংসদে প্রবেশ করার ব্যবস্থা করা হবে। জাতীয় সংসদের চিফ হুইফ নুর ই আলম চৌধুরী বলেন, স্বাস্থ্যবিধি সবই মেনে চলা হবে। সকল সংসদ সদস্যের করোনা টেস্ট সম্ভব নয়। ১০ জুন থেকে শুরু হওয়া অধিবেশনটিতে ১১ জুন বেলা তিনটায় ২০২০-২১ অর্থ বছরের বাজেট পেশ এবং ৩০ জুন বাজেট পাশের মধ্যদিয়ে শেষ হওয়ার কথা থাকলেও সবমিলিয়ে দশ থেকে বারো কর্ম দিবসের মধ্যেই শেষ করার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান চিফ হুইপ নুর ই আলম চৌধুরী। তিনি বলেন, বাজেটে সবাইতো একদিনে আলোচনা করেন না। কার কোন দিন আলোচনা ঠিক করে ফেলে বক্তা নির্বাচন করা হবে। কোরামে বেশি লোক আমাদের দরকার নাই। এর আগে সাংবিধানিক নিয়ম রক্ষায় গত ১৮ এপ্রিল জাতীয় সংসদের অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। সেদিনও নিরাপদ দূরত্বে আসন গ্রহণসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি নানা বিধি বিধান প্রয়োগ করা হয়।
করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫০০০ ছাড়ালো পুলিশের
১জুন,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: করোনা ভাইরাসে পুলিশ বাহিনীতে আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজারের বেশি পুলিশ সদস্য। আর মারা গেছেন ১৫ পুলিশ সদস্য। সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, দেশে এখন পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ৪৯ হাজার ৫৩৪ জনের, এরমধ্যে ৫ হাজার ১২৯ জন পুলিশ সদস্য রয়েছেন।তবে আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের মধ্যে এক হাজার ৮৭৬ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সোমবার নতুন করে ২৬১ জন শনাক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ পুলিশে করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫ হাজার ১২৯ জন হয়েছে। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ১৫ জন পুলিশ সদস্য। পুলিশ সদরদপ্তর বলছে, তাদের অনেকেই জনগণের সেবায় নিজেকে নিযুক্ত করতে আবারও কাজে যোগ দিয়েছেন। কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের উন্নত ও মানসম্মত চিকিৎসা ও সেবায় সুস্থতার হার দ্রুততার সাথে বাড়ছে।
গণপরিবহন চালু করাটা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়
১জুন,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতামত উপেক্ষা করে গণপরিবহন চালু করায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন গণফোরাম সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন। আজ সোমবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন। ড. কামাল হোসেন বলেন, বর্তমান ভয়াবহ পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতামত উপেক্ষা করে সম্প্রতি যথাযথ পরিকল্পনা ছাড়াই বাস, রেলপথ, লঞ্চসহ সব গণপরিবহন চালু করা হলো কোন মহলের স্বার্থে? যা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। সংক্রমণ ও মৃত্যু যখন বাড়ছে তখন সব চালু করা হলো। এর ফলাফল ভয়াবহ হবে তা সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরাই আশঙ্কা করছেন। ফলে করোনা মোকাবেলায় সব দলমত ও বিশেষজ্ঞদের নিয়ে সমন্বিত জাতীয় উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। তিনি বলেন, লকডাউন কার্যকর না করা, আইন প্রয়োগে শিথিলতা, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীদের দায়িত্বহীন বক্তব্য, শ্রমিক ও সাধারণ মানুষকে ঢাকা থেকে গ্রামে যেতে ও আসতে দেয়া, সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সময়ক্ষেপণ, সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে সমন্বয়হীনতা, স্বাস্থ্যখাতে বিশৃঙ্খলা ও অব্যবস্থাপনা আমাদের জীবন ও জীবিকাকে ভয়াবহ পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিয়েছে। করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সমন্বিত জাতীয় উদ্যোগ নেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে ধীরগতি ও তা বাস্তবায়নে সমন্বয়হীনতার কারণে আমাদের অনেক মানুষকে প্রাণ দিতে হয়েছে। ৫০ হাজারের মতো মানুষ আক্রান্ত। অজানা আতঙ্কে আছে বাংলাদেশের ১৭ কোটি মানুষ। আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিন আরও বাড়বে এবং ভয়াবহ পরিস্থিতির দিকে যাবে এমনটাই বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন। অর্থনৈতিক মন্দা ধীরে ধীরে কাটিয়ে ওঠা সম্ভব কিন্তু মানুষের জীবন রক্ষা করাটাই এখন জরুরি।
সংসদের আসন্ন বাজেট অধিবেশনে সাংবাদিকদের না যাওয়ার অনুরোধ
১জুন,সোমবার,নিজস্ব প্রতিবেদক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সংসদের আসন্ন বাজেট অধিবেশনেও যেতে পারছেন না সাংবাদিকরা। সংসদ টেলিভিশন থেকে অধিবেশনের সংবাদ কাভার করার জন্য গণমাধ্যমের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে। সোমবার সংসদ সচিবালয় থেকে এক সংবদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ অনুরোধ জানানো হয়। আগামী ১০ জুন বিকাল ৫টায় একাদশ জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশন শুরু হবে। রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ একাদশ সংসদের এ অষ্টম অধবেশন আহ্বান করেন। এ অধিবেশনে ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট পেশ করা হবে। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল আগামী ১১ জুন এ বাজেট উপস্থাপন করবেন। একই সাথ তিনি চলতি অর্থবছরের সম্পূরক বাজেটও পেশ করবেন। সংবদ বিজ্ঞপ্তিতে সাম্প্রতিক করোনাভাইরাস (কোভিড ১৯)-এর সংক্রমণ প্রতিরোধে জনস্বার্থে বাজেট অধিবেশনের সব কার্যক্রম সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচারিত অধিবেশন থেকে কাভার করার জন্য সাংবাদিকদের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়। করোনা পরিস্থিতিতে বাজেট অধিবেশনকালীন বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকদের পাস সরবরাহ করা সম্ভব হবে না বলেও সংসদ সচিবালয় থেকে জানানো হয়। সংবদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আগামী ১১ জুন ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থানের পরপরই বিকাল ৩টা ১৫ মিনিটে সংসদ ভবনস্থ মিডিয়া সেন্টার থেকে সুশৃঙ্খলভাবে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে বাজেটডকুমেন্টস বিতরণ করা হবে। এক্রিডিটেশন কার্ড প্রদর্শন করে সংসদ চত্বরে প্রবেশ করে বাজেট ডকুমেন্টস গ্রহণ করা যাবে। প্রত্যেক গণমাধ্যম থেকে একজনের অধিক সদস্য না পাঠানোর জন্য সংসদ সচিবালয় থেকে অনুরোধ করা হয়েছে। প্রসঙ্গত, এর আগে করোনাভাইরাসের প্রকোপের মধ্যে গত ১৮ এপ্রিল বসেছিল সংসদের সপ্তম অধিবেশন। সেই অধিবেশনের মেয়াদ ছিল মাত্র দেড় ঘণ্টা। সেই অধিবেশনেও সাংবাদিকদের না যাওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছিল।

জাতীয় পাতার আরো খবর