বুধবার, অক্টোবর ১৬, ২০১৯
মশা মারতে এক সপ্তাহের মধ্যে নতুন ওষুধ চাই: হাইকোর্ট
২৫জুলাই২০১৯,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মশা মারতে এক সপ্তাহের মধ্যে নতুন ওষুধ চেয়েছেন হাইকোর্ট। আদালত বলেছেন,এডিস মশা ও ডেঙ্গুর কারণে ঘরে ঘরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। যে ওষুধ ছিটানো হচ্ছে তা কোনো কাজ করছে না। তাই এডিস মশা নির্মূল ও ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে এক সপ্তাহের মধ্যে আমরা নতুন কার্যকর ওষুধ চাই। বৃহস্পতিবার দুই সিটির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তার উদ্দেশ্যে বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. সোহরাওয়ার্দীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এসব কথা বলেন। আদালত প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন,এক সপ্তাহের মধ্যে কোন প্রক্রিয়ায়, কীভাবে ওষুধ আনা যাবে আমাদেরকে জানান, আমরা সরকারকে সেভাবে আদেশ দেব।এডিস মশা নির্মূল ও ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে শুধু সিটি করপোরেশন নয়, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কেও এগিয়ে আসতে হবে বলে মন্তব্য করেন আদালত। মশা নির্মূল ও ধ্বংসে বিদেশ থেকে এক সপ্তাহের মধ্যে ওষুধ আনার প্রক্রিয়া দুপুর ২টার মধ্যে জানতে চান আদালত। আদালতে ঢাকা উত্তরের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী তৌফিক ইনাম টিপু ও দক্ষিণের পক্ষে আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা। রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কাজী মাঈনুল হাসান। এর আগে আদালতের তলবে হাজির হওয়া ঢাকার দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (ডা.) মো. শরীফ আহমেদ ও উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মোমিনুর রহমান মামুনের বক্তব্য শুনেন হাইকোর্ট। গত ২২ জুলাই আদালতের আদেশ স্বত্ত্বেও এডিস মশা নির্মূলে কার্যকর পদক্ষেপ না নেওয়ায় ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদেরকে তলব করেন হাইকোর্ট।
প্রধানমন্ত্রীর ৫ নির্দেশনা গুজব আতঙ্ক প্রতিরোধে
২৫জুলাই২০১৯,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: লন্ডনে অবস্থানরত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশে গুজব এবং আইন নিজের হাতে তুলে নেয়ার ব্যাপারে আওয়ামী লীগকে সক্রিয় করার নির্দেশ দিয়েছেন। এ ব্যাপারে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে তিনি নির্দেশনা দিয়েছেন। বলেছেন, পাড়া মহল্লায় প্রত্যেকটি এলাকায় আওয়ামী লীগের উদ্যোগে নাগরিক কমিটি গঠন করার জন্য। উল্লেখ্য যে, গত কিছুদিন ধরে নানা রকম গুজব ছড়িয়ে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করার চেষ্টা করছে একটি মহল। ছেলে ধরা সন্দেহে বেশ কয়েকজনকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। পদ্মা সেতুতে মাথা লাগবে এমন গুজব ছড়িয়ে দেশে একটি আতঙ্ক ছড়ানোর পাঁয়তারা করছে মহলটি। বিশেষ উদ্দেশ্য সাধনের জন্য সরকারকে বিব্রতকর এবং অস্থিতিশীল পরিস্থিতিতে ফেলানোর জন্যই এ ধরণের ঘটনা ঘটানো হচ্ছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে লন্ডন থেকে প্রধানমন্ত্রী আজ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদককে দলকে সাংগঠনিকভাবে সক্রিয় হওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন। আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল সূত্রগুলো জানিয়েছে, সেতু মন্ত্রীকে এ ব্যাপারে ৫ দফা নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এই ৫ দফা নির্দেশনা বাংলাদেশ জার্নালের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো- ১. প্রত্যেক এলাকায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দর কাছে অবিলম্বে বার্তা দিতে হবে যে, এ ধরনের গুজব এবং আইন নিজের হাতে তুলে নেওয়ার ব্যাপারে তারা যেন সতর্ক থাকে এবং জনগণের পাশে গিয়ে যেন তাদের সচেষ্ট করে। জনগণকে যেন তারা সচেতন হতে সহায়তা করে। ২. প্রত্যেক পাড়া মহল্লায় সাধারণ মানুষকে সম্পৃক্ত করে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দকে নাগরিক কমিটি গঠন করার নির্দেশ দিয়েছেন। ৩. স্কুলগুলোতে অভিভাবক ও শিক্ষকদের নিয়ে যৌথ সভা করার নির্দেশনা দিয়েছেন। ৪. প্রত্যেকটা পাড়া-মহল্লা, মসজিদ- মন্দিরে এ ব্যাপারে সচেতনতা তৈরির জন্য ইমাম, পুরোহিত বা পাদ্রীদের যেন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয় সে ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন। ৫. আইনপ্রয়োগকারী সংস্থাকে এ ব্যাপারে সর্বাত্মক সহযোগিতা করার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।
এবার বিদ্যুৎ নিয়ে গুজব,সতর্ক থাকার আহ্বান
২৫জুলাই২০১৯,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ছেলেধরার সঙ্গে বিদ্যুৎ না থাকার গুজবও ছড়ানো হচ্ছে জানিয়ে তা থেকে সতর্ক থাকতে জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বিদ্যুৎ বিভাগ। বিদ্যুৎ সচিব আহমদ কায়কাউস গতকাল বুধবার এই আহ্বান জানিয়ে বিদ্যুৎ সরবরাহে কোনো সমস্যা নেই বলে সবাইকে আশ্বস্ত করেছেন। পদ্মা সেতুতে শিশুর মাথা লাগবে বলে গুজব ছড়ানোর পর ছেলেধরা সন্দেহে গত কয়েকদিনে গণপিটুনিতে বেশ কয়েকজন নিহত হন। এর মধ্যেই বিদ্যুৎ থাকবে না বলেও গুজব ছড়ানো হচ্ছে বলে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের নজরে আসার পর সচিবের এই আহ্বান আসে। জ্যেষ্ঠ সচিব কায়কাউস বলেন, একটি স্বার্থান্বেষী মহল গুজব ছড়াচ্ছে দেশে বিদ্যুৎ থাকবে না। এটা পুরোপুরি গুজব।
রাজধানীতে ভুল চিকিৎসা দেয়ায় কিউর হাসপাতালকে জরিমানা
২৫জুলাই২০১৯,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ভুল চিকিৎসার অভিযোগে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে কিউর হাসপাতালকে জরিমানা ও ভুয়া ডাক্তারকে দুই বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। একইসঙ্গে তাদের চারলাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া, হাসপাতালটি সিলগালা করে দেয়া হয়। বুধবার (২৪ জুলাই) রাতে কিউর হাসপাতালে অভিযান চালায় Rabর ভ্রাম্যমাণ আদালত। এতে নেতৃত্ব দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম। এসময় ভুয়া চিকিৎসক এ এস এম আল মাহমুদ, হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রহিমা হেমায়েতকে আটক করা হয়। পরে তাদের প্রত্যেককে দুই বছরের কারাদণ্ড ও দুই লাখ টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালত। এছাড়া, অবৈধভাবে কার্যক্রম পরিচালনার দায়ে রেজিস্ট্রারকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।
আটক এড়াতে মাথা ন্যাড়া, কাপড় পুড়িয়ে ফেলে হৃদয়
২৪জুলাই২০১৯,বুধবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: হৃদয় খান একজন সবজি বিক্রেতা। ঘটনার দিন ছেলেধরার গুজব শুনে আরো অনেকের সঙ্গে স্কুলে প্রবেশ করে রেনুকে পিটিয়ে হত্যা করে সে। এরপর পালিয়ে যায় নারায়ণগঞ্জ। তাকে গ্রেফতারের পর সংবাদ সম্মেলনে একথা জানায় ঢাকা গোয়েন্দা পুলিশ। এদিকে, পুলিশ মহাপরিদর্শক মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী জানিয়েছেন, গণপিটুনির ঘটনায় গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। রেনু হত্যার পাঁচদিন পর মঙ্গলবার(২৩ জুলাই) রাতে নারাণগঞ্জের ভুলতা থেকে হৃদয় খানকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ। জানায় , হৃদয় বাড্ডার ওই স্কুলের পাশে সবজি বিক্রি করতো। ঘটনার দিন রেনু স্কুলের সামনে এসে এক নারীর কাছে তার সন্তানের ভর্তির বিষয়ে কোথায় তথ্য পাওয়া যাবে জানতে চান, ওই নারী রেনুকে ছেলেধরা বলে সন্দেহ করে। এক পর্যায়ে রেনুকে স্কুলের দোতলার একটি ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়। এ সময় আশপাশের অনেকে স্কুলের দেয়াল টপকে ভেতরে প্রবেশ করে তালা ভেঙে রেনুকে বাইরে নিয়ে আসে এবং এলোপাতাড়ি মারতে থাকে। তাদের সঙ্গে যোগ দেয় হৃদয়ও। এরপর চলে যায় নারায়ণগঞ্জ নানীর কাছে। ডিবি অতিরিক্ত কমিশনার আব্দুল বাতেন বলেন, হৃদয় এরপরেই বুঝতে পারে তাকে খোঁজাখুজি করা হয়েছে। সে চলে যায় নারায়ণগঞ্জে। দুদিন পর চুল ন্যাড়া করে। এছাড়া তার সব কাপড় পুড়িয়েও ফেলতে বলেন তার নানীকে। এসময় তিনি আরো বলেন, এখন পর্যন্ত হৃদয় আরো বেশ কয়েজনের নাম বলেছে। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানায় গোয়েন্দা পুলিশ।
প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরলে ৭ কলেজের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে: ওবায়দুল কাদের
২৪জুলাই২০১৯,বুধবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গুজব ছড়িয়ে কোনো মহল দেশকে অস্থিতিশীল করার ষড়যন্ত্র করছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বুধবার (২৪ জুলাই) সকালে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের তিনি একথা বলেন। এ ধরনের মর্মান্তিক ঘটনা প্রতিরোধে সরকার কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছে বলেও জানান তিনি। এছাড়া তিনি ৭ কলেজ অধিভুক্তির শিক্ষার্থীদের ধর্মঘট ও আন্দোলন থেকে বিরত থাকতেও বলেন। প্রধানমন্ত্রী সফর শেষে দেশে ফিরলে ৭ কলেজের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে বলে তিনি জানান। সেতুমন্ত্রী বলেন, ৭ কলেজ অধিভুক্তির বিষয় শিক্ষার্থীদের যে আন্দোলন, এই আন্দোলনের বিষয়ে আমরা সজাগ আছি। এই বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে আমরা জানিয়েছি। তিনি আসলে যৌক্তিক বাস্তবসম্মত বিষয়টি বিবেচনা করবেন। কিন্তু এর আগে তারা যেন রাস্তা অবরোধ করে মানুষকে কষ্ট না দেয়, জনদুর্ভোগ সৃষ্টি না করে। সেই ব্যাপারে তাদের অনুরোধ করছি, তারা যেন ধর্মঘটের পথ থেকে বিরত থাকে।
৬০ ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ও ২৫ ইউটিউব চ্যানেল বন্ধ ঘোষণা
২৪জুলাই২০১৯,বুধবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: গুজব রটানোর অভিযোগে ২৫টি ইউটিউব চ্যানেল, ১০টি অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও ৬০টি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। বুধবার (২৪ জুলাই) বেলা ১১টায় পুলিশ সদর দফতরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান। জাবেদ পাটোয়ারী জানান, সারা দেশে গণপিটুনিতে নিহত হয়েছেন আট জন, যাদের কেউই ছেলেধরা বা শিশু অপহরণকারী ছিলেন না। এমনকি যারা গণপিটুনিতে আহত হয়েছেন, তাদের কারও বিরুদ্ধে ছেলেধরা বা শিশু অপহরণের অভিযোগ পাওয়া যায়নি। গুজব ও গণপিটুনির অভিযোগে ৩১টি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় ১০৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
তদবির ছাড়া সরকারি সেবা পাওয়া যায় সে আস্থা তৈরি করতে হবে
২৩জুলাই২০১৯,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: তদবির ছাড়াই যে সরকারি সেবা পাওয়া যায় সে আস্থা জনমনে তৈরি করতে সরকারি কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জনপ্রশাসন পদক ২০১৯ প্রদান অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তব্যে রাষ্ট্রপতি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, সরকারি অনেক সংস্থা থেকেই জনগণকে স্বচ্ছতা ও আন্তরিকতার সাথে সেবা দেয়া হয়ে থাকে। কিন্তু সেবা প্রত্যাশীদের মাঝে এ সেবা পাওয়ার ব্যাপারে আস্থাহীনতা কাজ করে। তাই কোনো রকম তদবির বা যোগাযোগ ছাড়াই যে সরকারি সেবা পাওয়া যায় জনমনে সে আস্থা তৈরি করতে হবে। আবদুল হামিদের মতে, প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী ও জনগণের মধ্যে আস্থার সম্পর্ক স্থাপন করতে হবে। প্রায় সব কার্যালয়েই আকর্ষণীয় ডিজাইনের সিটিজেন চার্টার টানানো থাকে, কিন্তু চার্টার অনুযায়ী সেবা প্রত্যাশীরা সেবা পাচ্ছে কি না তাও মনিটরিং করতে হবে, যোগ করেন তিনি। সামাজিক বিভিন্ন ইস্যুতে অস্থিরতা তৈরি করে সুযোগসন্ধানীরা যাতে কোনো ধরনের ফায়দা লুটতে না পারে সে ব্যাপারে কর্মকর্তাদের সচেতন থাকতে এবং তৃণমূল পর্যায়েও ব্যাপক সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি। রাষ্ট্রপতি আরও বলেন, পরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নে সরকারি কর্মকর্তাদের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাদের প্রকল্প বাছাইয়ের ক্ষেত্রে জনস্বার্থকে অগ্রাধিকার দেয়ার আহ্বান জানান তিনি। গ্রামগঞ্জে দেখা যায়, অপরিকল্পিত রাস্তাঘাট ও ব্রিজ-কালভার্ট নির্মাণের ফলে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। অনেক সময় নির্মাণ কাজের মান এতটাই খারাপ হয় যে কাজ শেষ না হতেই আবার মেরামতের প্রয়োজন হয়। এটা কোনোভাবেই কাম্য নয়, বলেন আবদুল হামিদ। তিনি আরও বলেন, জনগণের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়নের জন্য সরকার অনেক উন্নয়নমূলক প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন নিশ্চিত করতে আরও অনেক কাজ করতে হবে। রাষ্ট্রপতির মতে, জাতির পিতার আজীবনের লালিত স্বপ্ন ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত স্বনির্ভর বাংলাদেশ বাস্তবায়নে স্বচ্ছ, দক্ষ ও জবাবদিহিমূলক জনপ্রশাসন ব্যবস্থা গড়ে তোলা খুবই জরুরি। তিনি জানান, দুর্নীতির বিরুদ্ধে বর্তমান সরকার জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণপূর্বক সিভিল সার্ভিসের সংস্কার এবং সরকারি সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে নতুন নতুন কৌশল উদ্ভাবন করতে প্রশংসনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। বৃটিশরা পাক-ভারত উপমহাদেশে প্রশাসন ব্যবস্থা চালু করেছিল উপমহাদেশকে শাসন করতে এবং এ দেশের ধনসম্পদ শোষণ করার লক্ষ্যে। তখন প্রশাসনের মুখ্য উদ্দেশ্য ছিল উপমহাদেশে তাদের শাসন কায়েম রাখা ও শোষণ নীতি বজায় রাখা। জনকল্যাণ ছিল গৌণ লক্ষ্য, জানিয়ে তিনি বলেন,এখন আমরা স্বাধীন দেশের নাগরিক। এখন প্রশাসনের মূল লক্ষ্য হচ্ছে জনগণকে সেবা দান করা। তাই প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীদের সনাতন দৃষ্টিভঙ্গিতে পরিবর্তন আনার বিকল্প নেই।

জাতীয় পাতার আরো খবর