বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
১৭এপ্রিল,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঐতিহাসিক মুজিব নগর দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রথমে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে এবং পরে আওয়ামী লীগ সভাপতি হিসেবে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন শেখ হাসিনা। বুধবার (১৭ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ৭টায় তিনি রাজধানীর ধানমন্ডি ৩২ নম্বর সড়কে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করে এই শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে আওয়ামী লীগের অঙ্গ, সহযোগী ও ভাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতাকর্মীরা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে তার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ সময় স্লোগানে স্লোগানে এলাকা মুখরিত হয়ে ওঠে। উল্লেখ্য, আজ ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস। ১৯৭১ সালের অগ্নিঝরা এই দিনে হানাদার বাহিনী কর্তৃক আক্রান্ত বাঙালি জাতির আলোকবর্তিকা হিসেবে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রথম মন্ত্রিসভার শপথগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সরকারের শপথগ্রহণ আর মুক্তির সনদ স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র পাঠের মাধ্যমে এদিন কবর রচিত হয় অখণ্ড পাকিস্তানের। রচিত হয় স্বাধীন বাংলাদেশের নতুন ইতিহাস। ৯ মাস সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বিশ্বের মানচিত্রে স্থান করে নেয় স্বাধীন ও সার্বভৌম গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ।
আজ ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস
১৭এপ্রিল,বুধবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: আজ ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস। ১৯৭১ এর এই দিনে মুক্তিবাহিনীর দখলে থাকা মেহেরপুরের মুজিবনগরে যাত্রা শুরু করেছিলো গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনা থেকে শুরু করে বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের স্বীকৃতি আদায় সবই ছিল এ সরকারের কৃতিত্ব। ১৯৭১ এর এপ্রিল। পাকিস্তানী বাহিনীর বিমান হামলা যশোরের সবুজ প্রান্তর থেকে মেহেরপুর পর্যন্ত পৌঁছেছে। জাতির জনকের নির্দেশে সংগঠিত মুক্তিকামী বাঙালী। প্রতিরোধ সংগ্রাম করে যাচ্ছে বিক্ষিপ্তভাবে কিংবা সংগঠিত হয়ে। এমন পরিস্থিতিতেই ইতিহাসে জায়গা করে নেয় এক অখ্যাত আমবাগান। মেহেরপুর মহকুমার বৈদ্যনাথ তলায় শপথ গ্রহণ করে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকার। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রথম মন্ত্রিপরিষদ সচিব এইচ টি ইমাম বলেন, এটি তো জনযুদ্ধ, যেখানে সমগ্র জাতি সম্পৃক্ত। তাদেরকে জানানো দরকার, তাদের রাষ্ট্র স্বাধীন রাষ্ট্র হয়েছে। এজন্য সিদ্ধান্ত হলো শপথ গ্রহণ করবেন এবং এই অনুষ্ঠানটি হতে হবে স্বাধীন বাংলার মুক্ত অঞ্চলে। পনেরোটি মন্ত্রণালয় ও বিভিন্ন বিভাগ নিয়ে স্বল্প পরিসরে যাত্রা শুরু করে এই সরকার। পাকিস্তানের কারাগারে বন্দি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রাষ্ট্রপতি, তার অবর্তমানে সৈয়দ নজরুল ইসলাম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি এবং তাজউদ্দিন আহমেদ প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নিযুক্ত হন। মুক্তিযুদ্ধের প্রধান সেনাপতি হিসেবে ঘোষণা করা হয় জেনারেল এম এ জি ওসমানীর নাম। এইচ টি ইমাম আরো বলেন, একটি আধুনিক সরকারের যা কিছু করতে হয় তার সবকিছু এই সরকার করেছে। মুক্তিযুদ্ধের সংগঠকরা বলছেন, এ শপথ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিশ্বের দরবারে আত্মপ্রকাশ করেছিলো বাংলাদেশ। মুজিবনগর সরকারের চেতনা প্রেরণা নিরন্তর আপোষহীন করবে বাঙালীকে বলছেন এই দুই সংগঠক।
সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের স্বার্থে যৌন নির্যাতিতাদের জবানবন্দি নেবেন নারী ম্যাজিস্ট্রেট
১৬এপ্রিল,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের স্বার্থে ধর্ষণ বা যৌন নির্যাতনের শিকার নারী বা শিশুদের জবানবন্দি লিপিবদ্ধ করার দায়িত্ব নারী ম্যাজিস্ট্রেটকে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট। সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্টার জেনারেল ড. মোঃ জাকির হোসেন সই করা এক সার্কুলারে এ কথা জানানো হয়। সংশ্লিষ্টদের নিকট পাঠানো এ সার্কুলারে বলা হয়, অপরাধ তদন্ত ও বিচারের স্বার্থে লিপিবদ্ধ উক্ত জবানবন্দি অত্যন্ত গুরুত্ববহন করে। বর্তমানে কিছুক্ষেত্রে ধর্ষণ বো যৌন নির্যাতনের শিকার হওয়া নারী বা শিশুর জবানবন্দি পুরুষ ম্যাজিস্ট্রেট লিপিবদ্ধ করেছেন। কিন্তু পুরুষ ম্যাজিস্ট্রেটটের নিকট নির্যাতনের জবানবন্দি দিতে নির্যাতিত নারী সংকোচবোধ করেন। এ অবস্থায় তাদের জবানবন্দি নারী ম্যাজিস্ট্রেট নেয়া আবশ্যক।এতে ভিক্টিম সহজে ও নিসংকোচে তার বক্তব্য দিতে পারনে। এতে আরও বলা হয়, সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের স্বার্থে ধর্ষণ বা যৌন নির্যাতনের শিকারের নারীর জবানবন্দি একজন নারী ম্যাজেস্ট্রিটকে নিতে হবে। এটি বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি নির্দেশ দেয়া হছে। সাম্প্রতিক বেশ কয়েকটি নারী নির্যাতনের ঘটনা এবং বিশেষ করে ফেনীর কলেজছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির জবানবন্দি নিয়ে ওসির বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ ওঠার মধ্যে বিচারাঙ্গনে এই নির্দেশনা এলো। এ ধরনের পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য ধর্ষণ বা যৌন নির্যাতনের শিকার নারী বা শিশুদের জবানবন্দি একজন নারী ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক লিপিবদ্ধ করা আবশ্যক। তবে সংশ্লিষ্ট জেলায় বা মহানগরীতে নারী ম্যাজিস্ট্রেট না থাকলে অন্য কোনও যোগ্য ম্যাজিস্ট্রেটকে এ দায়িত্ব দেয়া যেতে পারে বলে মনে করে সুপ্রিম কোর্ট।-আলোকিত বাংলাদেশ
২১ এপ্রিল পবিত্র শবে বরাত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী
১৬এপ্রিল,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ২১ এপ্রিল পবিত্র শব-ই-বরাত পালন করা হবে বলে জানিয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ। মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) বিকেলে এ তথ্য জানান তিনি। এর আগে, শবেবরাত নিয়ে বিতর্ক গড়ায় উচ্চ আদালতে। যদিও ধর্মীয় বিষয় হওয়ায় রিটের অনুমতি না দিয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনে আবেদন করতে বলেছেন উচ্চ আদালত। ইফার গঠিত তদন্ত কমিটির সিদ্ধান্ত পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বলেছেন আদালত। ২০ এপ্রিল নাকি ২১ এপ্রিল শবেবরাত পালন করা হবে এ বিষয়ে কাজ করছে ১০ সদস্যের কমিটি। গত ৬ এপ্রিল চাঁদ দেখা না যাওয়ায় ২১ এপ্রিল রোববার (১৪ এপ্রিল) দিনগত রাতে শবেবরাত পালনের সিদ্ধান্ত নেয় ইসলামিক ফাউন্ডেশন। কিন্তু একপক্ষের দাবি ঐদিন চাঁদ দেখা গেছে ফলে শবেবরাত হবে ২০ এপ্রিল শনিবার দিবাগত রাতে। শবেবরাত কবে পালন করা হবে এ নিয়ে আলেম-ওলামাদের বিতর্ক গড়িয়েছে উচ্চ আদালত পর্যন্ত। যদিও আদালত এ আবেদনটি আমলে না নিয়ে রিটকারীদের ইসলামিক ফাউন্ডেশনে যেতে বলেছেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী জানান, বিষয়টি সুরাহার জন্য ১০ সদস্যের একটি কমিটি কাজ করছে। এছাড়া ধর্মীয় বিষয় হওয়ায় এ পর্যায়ে হস্তক্ষেপ করতে চাননি উচ্চ আদালত।
স্বাস্থ্য সেবায় যত্নবান হওয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
১৬এপ্রিল,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: রোগীর সেবায় আরো যত্নবান হতে চিকিৎসকদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। স্বাস্থ্য সচেতনতা বাড়াতে জনগণকে সজাগ থাকারও পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। এছাড়া নার্সিং সেবায় শুধু বিজ্ঞান বিভাগ নয়, প্রয়োজনে আইন সংশোধন করে ব্যবস্থা নিতে মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছেন সরকার প্রধান। জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা ও পুষ্টি সপ্তাহের উদ্বোধন করে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশের সকল জনপদ, গৃহ ও পরিবারের প্রতিটি মানুষের কাছে স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে নানা কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে চলেছে সরকার। জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ১.৩৭ শতাংশে হ্রাস পেয়েছে। গেল ২৯ বছরে দেশে মাতৃ মৃত্যুর হার কমেছে প্রায় ৭০ শতাংশ। সরকারের দুই মেয়াদে ৭৪ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে ৫ বছরের মধ্যে থাকা শিশু মৃত্যুর হারও। প্রায় ১৪ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে প্রতিদিন সাড়ে তিন লাখ মানুষ প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা নিচ্ছেন। বিনামূল্যে দেয়া হচ্ছে ৩০ রকমের ওষুধ। এমন বাস্তবতায় প্রথমবারের মতো শুরু হলো পাঁচদিন ব্যাপী জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা ও পুষ্টি সপ্তাহ। স্বাস্থ্যসেবা অধিকার, শেখ হাসিনার অঙ্গীকার শ্লোগাণ নিয়ে স্বাস্থ্যসেবা সপ্তাহের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধান অতিথির বক্তব্যে শেখ হাসিনা স্বাস্থ্যখাতে তাঁর সরকারের নেয়া পদক্ষেপের চিত্র তুলে ধরেন। রোগী সেবায় চিকিৎসকদের যত্মবান হবার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। পাশাপাশি অ্যাম্বুলেন্স রক্ষণাবেক্ষণে আসছে বাজেটে থোক বরাদ্দেরও ঘোষণা দেন তিনি। এছাড়া বিশেষায়িত নার্স তৈরির তাগিদ দেন সরকার প্রধান। প্রতিটি হাসপাতালে বার্ণ ইউনিট এবং অটিজম কেয়ার ইউনিট রাখারও পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী।
পাটকল শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার
১৬এপ্রিল,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রশাসনের আশ্বাসে খুলনা ও সিরাজগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছেন রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল শ্রমিকরা। মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) রাতে রাজধানীর শ্রম ভবনে শ্রম প্রতিমন্ত্রী বেগম মুন্নুজান সুফিয়ানের সঙ্গে পাটকল শ্রমিক নেতাদের বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন ও বকেয়া বেতন পরিশোধসহ ৯ দফা দাবিতে দিনভর খুলনার খালিশপুর নতুন রাস্তার মোড়ে পথসভা করেন ৯টি পাটকলের শ্রমিকরা। পরে খুলনা-যশোর মহাসড়ক ও রেলপথ অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন তারা। চট্টগ্রাম ও সিরাজগঞ্জেও ৬ ঘণ্টা বিক্ষোভ করেন পাটকল শ্রমিকরা।
ক্যান্সারের ওষুধ এখন থেকে দেশেই তৈরি করা হবে: স্বাস্থমন্ত্রী
১৬এপ্রিল,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশে অসংক্রামক রোগ ক্রমেই বাড়ছে বলে জানিয়েছেন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা সপ্তাহ পালন উপলক্ষে সচিবালয়ে সোমবার (১৬ এপ্রিল) আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। এসময় তিনি বলেন, যক্ষ্মা ও ক্যান্সারের মত দুরারোগ্য রোগের ওষুধ আমদানি না করে, এখন থেকে এসব ওষুধ দেশেই তৈরি করা হবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আপনারা জানেন, দেশে সংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণে আছে। বাংলাদেশ টিটেনাস, পোলিওমুক্ত। তবে ক্যান্সার, হার্ট অ্যাটাক, ডায়বেটিস অনেক বেড়ে যাচ্ছে। এসমস্ত রোগে আক্রান্ত প্রায় ৬০ শতাংশ লোকের মৃত্যু হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, ইডিসিএলকে সম্প্রিসারিত করছি। এখানে নতুন নতুন ওষুধ তৈরি হবে। টিবির ওষুধ, ক্যান্সারের ওষুধ আমরা তৈরি করবো। সে সকল ওষুধ বেসরকারিখাত থেকে বাইরে থেকে ক্রয় করতে হয় আমরা নিজেরাই সেগুলো
লাইফ সাপোর্টে শিল্পী সুবীর নন্দী
১৫এপ্রিল,সোমবার,অনলাইন ডেক্স,নিউজ একাত্তর ডট কম: একুশে পদকে প্রাপ্ত জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী সুবীর নন্দী গুরুতর অসুস্থ। রোববার রাত ১১টার দিকে তাকে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি হয়েছে। বর্তমানে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। শিল্পীর কন্যা ফাল্গুনী নন্দী এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। পরিবারসহ সিলেট থেকে ফিরছিলেন সুবীর নন্দী। শারীরিক অবস্থা খারাপ হয়ে গেলে তাকে ট্রেন থেকে নামিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে করে সিএমএইচে নেয়া হয়। সুবীর নন্দীর জামাতা রাজেশ শিকদার জানান, অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকরা সুবীর নন্দীকে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) স্থানান্তর করেন। পরে অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকরা সুবীর নন্দীকে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) স্থানান্তর করেন বলে তার জামাতা রাজেশ শিকদার জানান। তিনি বলেন, বাবার অবস্থা বেশি ভালো নয়। চিকিৎসকরা তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রেখেছেন। আমরা সবার কাছে আশীর্বাদ চাই। ৬৬ বছর বয়সী সুবীর নন্দী দীর্ঘদিন ধরে কিডনির জটিলতায় ভুগছেন। নিয়মিতভাবে তার ডায়ালাইসিস করতে হচ্ছিল। জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী সুবীর নন্দী দীর্ঘ ৪০ বছরের ক্যারিয়ারে গেয়েছেন আড়াই হাজারেরও বেশি গান। সঙ্গীতে অবদানের জন্য পেয়েছেন দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদক। পাঁচবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। সুবীর নন্দীর কণ্ঠে বিখ্যাত গানের মধ্যে রয়েছে- কেন ভালোবাসা হারিয়ে যায়, একটা ছিল সোনার কইন্যা, ও আমার উড়াল পঙ্খীরে,দিন যায় কথা থাকে, আমার এ দুটি চোখ পাথর তো নয়, পৃথিবীতে প্রেম বলে কিছু নেই, আশা ছিল মনে মনে, হাজার মনের কাছে প্রশ্ন রেখে, আমি বৃষ্টির কাছ থেকে কাঁদতে শিখেছি, কতো যে তোমাকে বেসেছি ভালো,।

জাতীয় পাতার আরো খবর