শুক্রবার, জুলাই ৩, ২০২০
ঢাকা দক্ষিণ সিটির ওয়ার্ড কাউন্সিলর মঞ্জু অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার
৩১অক্টোবর,বৃহষ্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর টিকাটুলি এলাকার ওয়ার্ড (৩৯) কাউন্সিলর ময়নুল হক মঞ্জুর কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করেছে Rapid Action Battalion (Rab)। আজ বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। Rabর লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইং এর সহকারী পরিচালক এএসপি মিজানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, কাউন্সিলর ময়নুল হক মঞ্জুর বিরুদ্ধে অবৈধ দখলদারি, চাঁদাবাজি, মাদক কারবার ও জুয়ার আসর পরিচালনার অভিযোগ রয়েছে। গ্রেপ্তারের সময় তার কার্যালয় থেকে একটি অবৈধ অস্ত্র ও মাদক জব্দ করা হয়েছে। এর আগে বেলা ১২টার দিকে রাজধানীর টিকাটুলি এলাকায় ৩৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ময়নুল হক মঞ্জুর কার্যালয়ে অভিযান শুরু করে Rab।
ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালালে ৬ মাসের কারাদণ্ড
৩১অক্টোবর,বৃহষ্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আগামীকাল শুক্রবার থেকে সারাদেশে কার্যকর হতে যাচ্ছে আলোচিত সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮। নতুন আইনে বলা হয়েছে, ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালালে ছয় মাসের কারাদণ্ড বা অনধিক ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডিত করা হবে। এর আগে এ অপরাধের সর্বোচ্চ শাস্তি ছিল চার মাসের কারাদণ্ড বা ৫০০ টাকা অর্থদণ্ড। এছাড়াও, কর্তৃপক্ষ ছাড়া কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান বা সমিতি ড্রাইভিং লাইসেন্স তৈরি, প্রদান ও নবায়ন করলে শাস্তি অনধিক দুই বছর। তবে অন্যূন ছয় মাসের জেল বা এক থেকে পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানা বা উভয়দণ্ডের বিধান রয়েছে। নিবন্ধন ছাড়া গাড়ি চালালে অনধিক ছয় মাসের জেল বা অনধিক ৫০ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডের বিধান রয়েছে। নতুন আইন মতে, ফিটনেস সনদ ছাড়া বা মেয়াদ পেরোনো ফিটনেস সনদ ব্যবহার করে ইকোনমিক লাইফ অতিক্রান্ত বা ফিটনেসের অনুপযোগী, ঝুঁকিপুর্ণ গাড়ি চালালে ছয় মাসের জেল বা অনধিক ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ড দেওয়া হবে। এছাড়া আরো বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে আগের তুলনায় শাস্তি বাড়ানো হয়েছে। সড়ক পরিবহনের নতুন আইনে শাস্তি-জরিমানাগুলো হলো- ১. অবহেলায় গাড়ি চালানোতে গুরুতর আহত বা প্রাণহানিতে সর্বোচ্চ পাঁচ বছর কারাদণ্ড বা অনধিক পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ড। ২. উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হত্যাকাণ্ড প্রমাণ হলে সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ড। ৩. লেন ভঙ্গ ও হেলমেট ব্যবহার না করায় অনধিক ১০ হাজার টাকা জরিমানা। ৪. ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালানোয় ছয় মাসের জেল ও ২৫ হাজার টাকা বা উভয় দণ্ড । ৫. নিবন্ধন ছাড়া গাড়ি চালানোয় ছয় মাসের জেল বা ৫০ হাজার টাকা বা উভয় দণ্ড। ৬. ফিটনেসবিহীন গাড়ি চালানোয় ছয় মাসের জেল বা ২৫ হাজার টাকা বা উভয় দন্ড।
ফেসবুক-ইউটিউব ব্যবহারে লাইসেন্স লাগবে
৩১অক্টোবর,বৃহষ্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীদের একটা লাইসেন্স (অনুমতিপত্র) করতে হবে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। বৃহস্পতিবার তিনি বলেন, আনুষ্ঠানিকভাবে কাজ শুরু করতে আরো একটু সময় লাগবে। কারণ এর সাথে কিছু জনসচেতনতামূলক কার্যক্রমও জড়িত। মন্ত্রী বলেন, সচেতনতা তৈরির কাজটি আমরা অবিলম্বেই শুরু করতে যাচ্ছি। তবে তা বাস্তবায়ন করতে একটু সময় লাগবে। আসলে আমরা এখানে যে পদ্ধতিতে কাজটা করতে চাচ্ছি তাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীদের একটা লাইসেন্স (অনুমতিপত্র) করতে হবে। একটা সফটওয়্যার ডাউনলোড করে খুব সহজে লাইসেন্সটি করা যাবে জানিয়ে মোস্তাফা জব্বার বলেন, আমাদের দেশের লোকজনের স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভালো কাজ করার ইচ্ছে সহজে হয় না। যে কারণে এই লাইসেন্স করাতে হয়তো আমাদের একটু কষ্ট করতে হবে। যন্ত্রপাতি বসানো যেহেতু হয়ে গেছে, বাকি কাজও সহসাই হয়ে যাবে বলে আশা করছি। তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সেখানে প্রকাশিত কনটেন্ট নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে সরকার। দেশের বাইরে বসেও কেউ আপত্তিকর কিছু প্রকাশ করলে তা এখানে দেখা যাবে না।আমরা যে কোনো কনটেন্ট ব্লক (প্রকাশনা অবরুদ্ধ) করতে পারবো। আপনার একাউন্টের একটা কমেন্ট আমার মুছে ফেলা দরকার হলে আমি সেটাও মুছে ফেলতে পারব। তবে বাংলাদেশের বাইরে থেকে সেগুলো দেখা যাবে। মন্ত্রী বলেন, দেশের বাইরে-তো আমরা নিয়ন্ত্রণ করতে পারব না। কারণ ফেসবুক দুনিয়া জুড়ে চলবে। আমরা শুধু বাংলাদেশ ভূখণ্ডে সাইবার সুরক্ষা দিতে সক্ষম। পর্ণসাইটগুলো যেমন শুধু বাংলাদেশে বন্ধ করা হয়েছে, বিভিন্ন কনটেন্ট এবং অন্যান্য ক্ষেত্রেও যেটা হবে সেটা শুধু বাংলাদেশের ক্ষেত্রেই হবে। তিনি বলেন, মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে সম্মান দেখিয়ে আসছি এবং দেখিয়ে যাবো। কিন্তু কেউ স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ এবং বঙ্গবন্ধুর (জাতির পিতা শেখ মুজিবর রহমান) বিরোধীতা করলে, সেক্ষেত্রে কোনো আপোষ করা হবে না। এই প্রকল্পের আওতায় আমরা পর্ণ এবং জুয়ার সাইটগুলো বন্ধ করেছি। নইলে এত দ্রুত ২৫ হাজার সাইট বন্ধ করা সম্ভব ছিল না, বলেন মন্ত্রী। তীব্র সমালোচনার মুখে ২০১৮ সালে বাংলাদেশের সংসদে পাস হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনটি দুর্বল হয়েছে, আরেকটু শক্ত করা উচিত ছিল, উল্লেখ করে মন্ত্রী জানান, দেশের স্বার্থ ও নাগরিক সুরক্ষা সুনিশ্চিত করতে আইনটির কিছু জায়গায় পরিবর্তন আনা দরকার। ফ্রান্স ফেসবুককে ৩২ বিলিয়ন ডলার জরিমানা করেছে, আমাদের আইনেও এমন ব্যবস্থা থাকলে ফেসবুক যখন আমাদের অবজ্ঞা করেছিল তখন আমরা তাদের জরিমানা করতে পারতাম। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার মতো কোনো বিধিবিধান সেখানে রাখা হয়নি, বলেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, সোশ্যাল মিডিয়াগুলো যদি বাংলাদেশি নাগরিকদের ব্যক্তিগত তথ্য কখনো আমাদের অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করে, সে ক্ষেত্রেও তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার মতো বিধান আমাদের নেই। এ ছাড়া ডেটা সিকিউরিটি এবং প্রাইভেসির বিষয়ও আইনে সংযুক্ত করার কথা ভাবছে সরকার।-আলোকিত বাংলাদেশ
জামায়াত নেতা আজহারের মৃত্যুদণ্ড আপিলেও বহাল
৩১অক্টোবর,বৃহষ্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় জামায়াত নেতা আজহারুল ইসলামের মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখেছে আপিল বিভাগ।বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) খালাস চেয়ে আজহারুল ইসলামের আপিল খারিজ করে রায় ঘোষণা করেন প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ। আদালতে আসামিপক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের আজকের কার্যতালিকায় এ মামলাটি রায়ের জন্য ১ নম্বর ক্রমিকে রাখা হয়েছিলো। এর আগে উভয়পক্ষের শুনানি শেষে গত ১০ জুলাই মামলাটি রায়ের জন্য অপেক্ষমাণ রাখা হয়। মানবতাবিরোধী অপরাধে জড়িত থাকার দায়ে ২০১৪ সালের ৩০ ডিসেম্বর জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল এটিএম আজহারুল ইসলামকে মৃত্যুদণ্ড দেন আন্তর্জাতিক অপরধ ট্রাইব্যুনাল-১। পরে খালাস চেয়ে ২০১৫ সালের ২৮ জানুয়ারি আপিল করেন তিনি। কয়েকদফা পিছিয়ে গত ১৮ জুন আপিলের শুনানি শুরু হয়। আপিল বিভাগে আজহারুল ইসলামের পক্ষে শুনানি করেন খন্দকার মাহবুব হোসেন ও শিশির মনির। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। মুক্তিযুদ্ধের সময় রংপুরে হত্যা-গণহত্যা, অপহরণ, ধর্ষণ, আটক, নির্যাতন ও গুরুতর জখম এবং শতশত বাড়ি-ঘরে লুটপাট শেষে অগ্নিসংযোগের মতো নয় ধরনের ছয়টি অপরাধের অভিযোগ আনা হয় আজহারের বিরুদ্ধে। এসব অভিযোগের মধ্যে পাঁচটি অভিযোগই প্রমাণিত হয়েছে বলে ট্রাইব্যুনালের রায়ে উল্লেখ করা হয়।
আমবাগানের পাখির বাসা ভাঙা যাবে না: হাইকোর্ট
৩১অক্টোবর,বৃহষ্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় একটি আমবাগানে থাকা পাখির বাসা ভাঙা যাবে না বলে নিদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে উপজেলার খোর্দ্দ বাউসা গ্রামের ওই আমবাগান এলাকাটি কেন অভয়ারণ্য হিসেবে ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ বুধবার এ আদেশ দেন। গণমাধ্যমে প্রকাশিত ওই আমবাগান থেকে পাখির বাসা উচ্ছেদ সংক্রান্ত প্রতিবেদন আদালতের নজরে এনে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী প্রজ্ঞা পারুমিতা রায়ের আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত এই আদেশ দেন। শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল সামিউল আলম। আমবাগানটির পাখির বাসাগুলো কোনো অবস্থাতেই ভাঙা যাবে না উল্লেখ করে আদালত অভয়ারণ্য ঘোষণার কারণে বাগানমালিক বা ইজারাদারের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা আছে কি না, তা নিরীক্ষা করে ৪০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে রাজশাহী জেলা প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন। জানা যায়, খোর্দ্দ বাউসা গ্রামের একটি আমবাগানে কয়েক হাজার শামুকখোল পাখির বাসা রয়েছে। সব বাসাতেই পাখির ছানা রয়েছে। এগুলো এখনো উড়তে শেখেনি। বাগানমালিক আমবাগান পরিচর্যার জন্য এসব পাখির বাসা ভাঙতে গেলে স্থানীয় পাখিপ্রেমীরা বাধা দেন। পাখিপ্রেমীদের প্রতিরোধের মুখে মঙ্গলবার বাগানমালিক ১৫ দিন সময় দিয়ে বলেছেন, এ সময়ের মধ্যে কোনো ব্যবস্থা না হলে তিনি সব পাখির বাসা ভেঙে দেবেন। পাখিপ্রেমীরা জানান, চার বছর ধরে পাখিগুলো এই বাগানে বাচ্চা ফোটায়। বর্ষার শেষে এসে বাচ্চা ফুটিয়ে শীতের শুরুতে তারা আবার চলে যায়। বাচ্চাগুলো উড়তে শিখতে অন্তত আরও এক মাস সময় লাগবে। আতাউর রহমান নামের একজন ব্যবসায়ী এই আমবাগান ইজারা নিয়েছেন। তিনি বলেন, সাত লাখ টাকা দিয়ে বাগানটি দুই বছরের জন্য ইজারা নিয়েছি। গত বছর পাখির কারণে আম নষ্ট হয়েছে। এবার আর তা হতে দেব না। স্থানীয় পাখিপ্রেমী রফিকুল ইসলাম বলেন, বন অধিদপ্তর আমগাছের ক্ষতি পুষিয়ে দেওয়ার জন্য একটি প্রকল্প করার ঘোষণা দিয়েছিল। কিন্তু এ ব্যাপারে আর কোনো সাড়া পাওয়া যাচ্ছে না। এখন পাখিগুলোর বাসা ভেঙে দিলে হাজার হাজার পাখির বাচ্চা মারা পড়বে। এরই মধ্যে বাসা ভেঙে দেওয়ার ঘোষণা দেওয়ায় স্থানীয় লোকজন ১০০ পাখির বাচ্চা ধরে নিয়ে গেছে।
আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের ব্যাংক হিসাব জব্দ
৩০অক্টোবর,বুধবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আলোচিত চলচ্চিত্র প্রযোজক ও ব্যবসায়ী আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের ব্যাংক হিসাব জব্দ করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আর্থিক গোয়েন্দা সংস্থা বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ)। বুধবার সংস্থাটি বিভিন্ন তফসিলি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের (এমডি) কাছে এ বিষয়ে নির্দেশনা পাঠিয়েছে। চিঠি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তার একক বা যৌথ নামে পরিচালিত সকল ব্যাংক হিসাবের লেনদেন স্থগিত করতে বলা হয়েছে। ফলে এসব হিসাব থেকে আর কোন লেনদেন করা যাবে না। একটি বেসরকারি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, বুধবার দুপুরের পর বিএফআইইউ থেকে আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের হিসাব জব্দের চিঠি পেয়েছি। গত রবিবার রাজধানীর গুলশানে আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের বাসায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য ও ক্যাসিনোর সরঞ্জাম উদ্ধার করে মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। ওই অভিযানের সময় দুজনকে আটক করা হয়েছে। ১৯৬২ সালে পুরান ঢাকার আরমানিটোলায় জন্ম নেওয়া আজিজ মোহাম্মদ ভাই তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে বিভিন্ন খাতে ব্যবসা পরিচালনার পাশাপাশি সিনেমা প্রযোজনার সঙ্গে সক্রিয়ভাবে নিযুক্ত ছিলেন। এছাড়া মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, হংকং, সিঙ্গাপুরে রয়েছে তার হোটেল ও রিসোর্ট ব্যবসা। ১৯৯৭ সালে জনপ্রিয় চিত্রনায়ক সালমান শাহ মৃত্যুর পর যে কয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠে তাদের মধ্যে আজিজ মোহাম্মদ ভাই অন্যতম। এছাড়া চলচ্চিত্র অভিনেতা সোহেল চৌধুরী হত্যার পরও তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠে। আজিজ মোহাম্মদ ভাই এখন থাইল্যান্ডে বসবাস করেন বলে জানা গেছে।
নতুন প্রজন্মই দেশকে পৌঁছে দেবে উন্নতির শিখরে, বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
৩০অক্টোবর,বুধবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বুধবার (৩০ অক্টোবর) সন্ধ্যায় রাজধানীর পল্টনে বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু সপ্তাহ উপলক্ষে সমাপনি অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।বাংলাদেশ শিশু কল্যাণ পরিষদ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এসময় তিনি আরো বলেন, নতুন প্রজন্মই দেশকে পৌঁছে দেবে উন্নতির শিখরে। বর্তমান সরকার সেই শিশুদের জন্য অনুকূল ও নিরাপদ একটি বাংলাদেশ উপহার দিতে চায়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আজকে যারা শিশু, তাদেরকে যদি আমরা সুস্থ-সুন্দর পরিবেশে বিকাশ লাভের সুযোগ করে দেই, তাহলে তারাই হবে এ দেশের একেকজন আদর্শ ও যোগ্য নাগরিক। দেশের প্রতিটি সেক্টরে অসাধারণ দক্ষতার পরিচয় দিয়ে তারা দেশকে এগিয়ে নেবে। মন্ত্রী বলেন, যারা প্রতিবন্ধী শিশু, তাদেরও আল্লাহ প্রদত্ত বিশেষ গুণ রয়েছে। তারা অসাধারণ মেধার অধিকারী হয়। আমরা সব শিশুর জন্য একটি নিরাপদ বাংলাদেশ উপহার দিতে চাই।
রাজধানীতে সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ৫ জনের মৃত্যু
৩০অক্টোবর,বুধবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর মিরপুরের রুপনগর ১১ নম্বর রোডের মণিপুর স্কুলের পাশে বেলুন ফোলানোর একটি সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ৫জন নিহত হয়েছে। এঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছে আরও বেশ কয়েকজন। জানা গেছে, নিহতদের মধ্যে চারজন শিশু এবং একজন নারী। চার শিশুর বয়স ৮-১০ বছরের মধ্যে। আর নারীর বয়স ৩৫ বছর বলে জানা গেছে। নিহত শিশুরা হলো- রমজান (৮), নুপুর (৭), শাহীন (৯), ফারজানা (৬) ও অজ্ঞাত (৩৫)। আজ বুধবার বেলা সোয়া ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও রূপনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনিসুর রহমান সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। জানা গেছে, রূপনগর ১১ নম্বর সড়কে বেলুন বিক্রি করার একটি ভ্যানে সিলিন্ডার বিস্ফোরণ ঘটে। সিলিন্ডার থেকে বেলুনে গ্যাস ভরা হতো। বিস্ফোরণে ঘটনাস্থলেই ভ্যানের পাশে থাকা কয়েকজন শিশু ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। নিহতদের বয়স আনুমানিক ৮-১০ বছর। মিরপুর জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার মোশতাক আহমেদ এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, ভ্যানের ওপর বেলুন ফোলানোর সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের উদ্ধার করে তাৎক্ষণিকভাবে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ দুর্ঘটনায় হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে।
শাহজালাল থেকে ৩ কোটি টাকার স্বর্ণের বার উদ্ধার
৩০অক্টোবর,বুধবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে প্রায় ৩ কোটি টাকা মূল্যের স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার সকালে বিমানবন্দরে বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট নং-BG022 অবতরণের পর ৫ কেজি ৮০০ গ্রাম স্বর্ণের বার উদ্ধার করে কাস্টম হাউস, ঢাকার প্রিভেন্টিভ টিম। কাস্টম হাউস সূত্রে জানা গেছে, কাস্টম হাউসের কমিশনারের কাছে আসা এক গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চোরাচালান প্রতিরোধে কাস্টম হাউস, ঢাকার কর্তব্যরত প্রিভেন্টিভ কর্মকর্তাগণ বিমানবন্দরের বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান গ্রহণ করে নজরদারি করতে থাকে। নজরদারি ও তল্লাশির একপর্যায়ে বোর্ডিং ব্রিজ নং-৮ এ সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে অবতরণকৃত মাসকাট থেকে আগত বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট নং-BG022 এর সিট নং-২২সি এর নিচে সুকৌশলে লুকানো অবস্থায় ৫০টি স্বর্ণবার পাওয়া যায়, যার মোট ওজন ৫ কেজি ৮০০ গ্রাম। আটককৃত স্বর্ণের বিষয়ে কাস্টমস আইনে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানায় কাস্টম কর্তৃপক্ষ।

জাতীয় পাতার আরো খবর