সুন্দরবনে পর্যটক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা
১১নভেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে প্রাণি ও জীববৈচিত্র্যের ক্ষয়ক্ষতি দ্রুত কাটিয়ে উঠার স্বার্থে সুন্দরবনে পর্যটক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে বন বিভাগ। সোমবার (১১ নভেম্বর) বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন খুলনা রেঞ্চের বন সংরক্ষক কর্মকর্তা মাইনুদ্দিন খান। তিনি জানান, ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনুসন্ধানে বন বিভাগের ৬৩টি দল কাজ করছে। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ ও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হবে। এর আগে, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে সুন্দরবনের বেশ কিছু প্রাণি ও জীববৈচিত্র্যের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এবং সুন্দরবনের কিছু জায়গায় গাছপালা ভেঙে গেছে। এখন ওই এলাকার প্রাণিদের মধ্যে আতঙ্কা বিরাজ করছে বলে জানায় বন বিভাগ। সুন্দরবনের প্রাণি ও জীববৈচিত্র্য রক্ষায় কাজ করছে বন বিভাগের অনুসন্ধানী দল।
নারী পুলিশ পেশাদারিত্বের সাথে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব পালন করছেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
১১নভেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, এমপি বলেছেন, নারী পুলিশ সদস্যরা দক্ষতা ও পেশাদারিত্বের সাথে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার মত গুরু দায়িত্ব পালন করছেন। বিশেষ করে নির্যাতিত নারী ও শিশুদের সুরক্ষায় তারা অনবদ্য ভূমিকা রাখছেন। তাদের পেশাগত দক্ষতা ও যোগ্যতা নারীর ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে যোগ করেছে এক নতুন মাত্রা। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ৯ নভেম্বর শনিবার রাতে পুলিশ স্টাফ কলেজ বাংলাদেশ এর ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স সেন্টারে Womens Leadership Institute Training শীর্ষক আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। প্রশিক্ষণ কোর্সটিকে সময়োপযোগী ও কার্যকর উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এ প্রশিক্ষণে অর্জিত জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতা নিজ নিজ দেশে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার পাশাপাশি নেতৃত্ব দানেও আপনাদেরকে দক্ষ করে তুলবে। তিনি প্রশিক্ষণে অর্জিত দক্ষতা কাজে লাগানোর জন্য প্রশিক্ষণার্থী নারী পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রতি আহবান জানান। তিনি বাংলাদেশে এ ধরণের প্রশিক্ষণ আয়োজনের জন্য ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস এবং যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে ধন্যবাদ জানান। পুলিশ স্টাফ কলেজের রেক্টর শেখ মুহম্মদ মারুফ হাসান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বিপিএম (বার), JoAnne Wagner, Deputy Chief of Mission, Embassy of the United States of America, Dhaka, Gary Bullard, Principle Deputy Director, USDOJ/ICITAP Headquarters, Washington. আইজিপি বলেন, বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে ১৯৭৪ সালে বাংলাদেশ পুলিশে মাত্র ১৪ জন নারীর অন্তর্ভুক্তি ঘটে। বাংলাদেশ পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটে নারী পুলিশ সদস্যরা অপরাধ দমন, অপরাধ উদঘাটন এবং তদন্তের মত গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব অত্যন্ত দক্ষতার সাথে পালন করছেন। ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায়ও নারী পুলিশ সদস্যরা ইতোমধ্যে দক্ষতা ও যোগ্যতার স্বাক্ষর রেখেছেন। বলেন, শুধু দেশেই নয়, জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনেও বাংলাদেশের নারী পুলিশ সদস্যদের নিষ্ঠা ও পেশাদারিত্ব বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হয়েছে। JoAnne Wagner বাংলাদেশে নারী পুলিশের প্রশংসা করে বলেন, তারা ভিক্টিম সাপোর্ট সেন্টারে নির্যাতিত নারীর সুরক্ষা এবং আইনগত সহায়তা প্রদানে বিশেষ ভূমিকা রাখছেন। সভাপতির বক্তব্যে শেখ মুহম্মদ মারুফ হাসান বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র পুলিশ স্টাফ কলেজ হিসেবে পুলিশ স্টাফ কলেজ বাংলাদেশ পেশাদার ও দক্ষ পুলিশ বাহিনী গড়ার লক্ষ্যে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে। পুলিশ স্টাফ কলেজকে এ প্রশিক্ষণের জন্য নির্বাচিত করায় তিনি সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান। উল্লেখ্য, পাঁচ দিনব্যাপী এ কোর্সে ইন্দোনেশিয়ার ২ জন, যুক্তরাষ্ট্রের ১ জন, পাকিস্তানের ৬ জন এবং বাংলাদেশের ৩০ জন নারী পুলিশ কর্মকর্তাসহ মোট ৩৯ জন অংশগ্রহণ করছেন।
আওয়ামী লীগ ৯৪ শতাংশ জনগণকে বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় এনেছে
১১নভেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বিদ্যুৎ জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জানিয়েছেন, আওয়ামী লীগ ৪৭ শতাংশ থেকে ৯৪ শতাংশ জনগণকে বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় এনেছে। আগামী জুনে শতভাগ জনগণ বিদ্যুৎ সুবিধার আসবে। দেশে বিদ্যুতের উৎপাদন ৩ হাজার ৪শ মেগাওয়াট থেকে ২১ হাজার মেগাওয়াটে পৌছেছে বলেও তিনি জানিয়েছেন। সোমবার বিকেলে সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি এতথ্য জানান। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশনে এসংক্রান্ত সম্পুরক প্রশ্নটি উত্থাপন করেন বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য মো. হারুনুর রশীদ। তিনি বিএনপি-জামায়াতের উপর অহেতুক দোষ চাপানোর চেষ্টা চলে উল্লেখ করে বলেন, রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে বালিশ কাণ্ড, হাসপাতালে সর্বোচ্চ দামী পর্দা কেনা ও সর্বশেষ ক্যাসিনোর কথা সকলেরই জানান। এই অবস্থায় বিদ্যুতের উৎপাদন বাড়লেও ভোল্টেজ উঠানামা করে। এটা বন্ধের বিষয়ে সরকারের পরিকল্পনা কি? জবাবে প্রতিমন্ত্রী আরো জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দায়িত্ব গ্রহণের আগেও দেশে গ্যাস ছিলো। কিন্তু কোন পরিকল্পনা ছিলো না। এখন বিদ্যুৎ ও গ্যাসের মাষ্টার প্লান তৈরি করে কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। বর্তমানে রাজধানীতে বিদ্যুতের ভোল্টেজ উঠানামা করে না। বরং অতিরিক্ত বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে। আগামী ২/৩ বছরের মধ্যে দেশের সর্বত্র নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করা সম্ভব হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। বিএনপির গোলাম মোহাম্মদ সিরাজের লিখিত প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার সবার জন্য বিদ্যুৎ সুবিধা ও ভবিষ্যতে বিদ্যুতের চাহিদার কথা বিবেচনা করে উৎপাদন ক্ষমতা বৃদ্ধির মহাপরিকল্পনা নিয়েছে। বিভিন্ন মেয়াদে ৮৭টি নতুন কেন্দ্র হতে ৩৯ হাজার ৮৬২ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। সংসদে দেওয়া তথ্যানুযায়ী, গ্রীষ্মকালীণ সময়ে দৈনিক বিদ্যুতের গড় চাহিদা প্রায় সাড়ে ১২ হাজার মেগাওয়াট হতে ১৩ হাজার মেগাওয়াট। এর বিপরীতে বর্তমানে মোট স্থাপিত উৎপাদন ক্ষমতা ক্যাপটিভ ও নবায়নযোগ্য জ্বালানিসহ ২২ হাজার ৫৬২ মেগাওয়াট। উক্ত উৎপাদন ক্ষমতার বিপরীতে দেশের চাহিদা অনুযায়ী বিদ্যুৎ উৎপাদিত হচ্ছে। বিভিন্ন মেয়াদে সরকারের নেওয়া পরিকল্পনার তথ্য তুলে ধরে প্রতিমন্ত্রী জানান, বর্তমানে মোট ১৫ হাজার ৯৩৫ মেগাওয়াট ক্ষমতার ৪৮টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণাধীন রয়েছে। এ বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো ২০১৯ হতে ২০২৭ সালের মধ্যে পর্যায়ক্রমে চালু হবে। এছাড়া ৩ হাজার ২৭৭ মেগাওয়াট ক্ষমতার ১৪টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের চুক্তি সাক্ষর প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এ বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো ২০২১ হতে ২০২৪ সালের মধ্যে পর্যায়ক্রমে চালু হবে। অন্যদিকে এক হাজার ১৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতার ৮টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের লক্ষ্যে দরপত্র প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো ২০২১ সাল হতে ২০২৪ সালের মধ্যে পর্যায়ক্রমে চালু হবে। এছাড়াও ১৯ হাজার ৫০০ মেগাওয়াট ক্ষমতার ১৭টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ পরিকল্পনাধীন রয়েছে। এনিয়ে মোট ৮৭টি কেন্দ্র হতে ৩৯ হাজার ৮৬২ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে। এছাড়াও আঞ্চলিক সহযোগিতার ভিত্তিতে ভারত হতে ২ হাজার ৮৩৬ মেগাওয়াট ক্ষমতার বিদ্যুৎ আমদানি কার্যক্রম অব্যহত রয়েছে। যা ২০২২ সালের মধ্যে চালু হবে। বর্তমানে (২০১৮-১৯ অর্থ বছরে) প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের গড় উৎপাদন ব্যয় ৬ দশমিক ০১ টাকা। একই সংসদ সদস্যের অপর এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জানান, বর্তমান সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পর হতে বিগত ১০ বছরে ৬ বার বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। এরমধ্যে ২০১১ সালে দুই বার এবং ২০১২, ২০১৪, ২০১৫ এবং ২০১৭ সালে একবার করে। এই মুহুর্তে বিদ্যুতের মূল্য কমানোর কোনো পরিকল্পনা সরকারের নেই বলেও তিনি জানান।-আলোকিত বাংলাদেশ
উপজেলা আ.লীগের সদস্য হলেন জয়
১১নভেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা ও তার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়কে উপজেলা আওয়ামী লীগের এক নম্বর সদস্য করে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন অ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান রাঙ্গা এবং সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন এ এস এম তাজিমুল ইসলাম শামীম। সোমবার দুপুরে পীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়। সম্মেলন উপলক্ষে প্রথম পর্বে বেলা ১১টায় পীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান রাঙ্গার সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম রাজু , পীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মণ্ডল, ভাইস চেয়ারম্যান শফিউর রহমান মণ্ডল মিলন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সায়াদত হোসেন বকুল, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক শাহিদুল ইসলাম পিন্টু, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান রণি প্রমুখ। পরে সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্বে উপস্থিত কাউন্সিলরদের সমর্থনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান রাঙ্গা সভাপতি ও পীরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মিয়া মো. তাজিমুল ইসলাম শামীম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। নতুন কমিটিতে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়কে এক নম্বর সদস্য করা হয়।
রোহিঙ্গা সংকট এই অঞ্চলের নিরাপত্তার জন্য হুমকি, জানালেন প্রধানমন্ত্রী
১১নভেম্বর,সোমবার,স্পেশাল প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, রোহিঙ্গা সমস্যা শুধু মাত্র বাংলাদেশ জন্যই নয়, এই সংকট এ অঞ্চলের নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতার জন্য হুমকি। অঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হলে এ সমস্যার আশু সমাধান প্রয়োজন। আঞ্চলিক নিরাপত্তার স্বার্থে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি আমি আহ্বান জানাই। রোববার ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোলেটে তিনদিন ব্যাপী শুরু হওয়া ঢাকা গ্লোবাল ডায়লগ-১৯ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্য এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। যুক্তরাষ্ট্র, চীন ও মিয়ানমারসহ বিশ্বের ৪৫টি দেশ থেকে প্রায় ১৫০ জন ব্যক্তিসহ সব মিলিয়ে ৭০০জন অতিথি এই ডায়লগে অংশ নিয়েছেন। শেখ হাসিনা বলেন, মিয়ানমার থেকে ১১ লাখ রোহিঙ্গা আসার পরও মিয়ানমারের সঙ্গে আমরা ঝগড়ায় লিপ্ত হইনি।সমঝোতার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করতে চাচ্ছি। সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারো সঙ্গে বৈরিতা নয়- এই নীতিতে আমরা বিশ্বাসী এবং আমরা এটাই মেনে চলি। এ কারণে পৃথিবীর সব দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের চমৎকার সম্পর্ক রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গোপসাগর তথা ভারত মহাসাগর বিশ্ব অর্থনীতির ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ। এ অঞ্চলে সবচেয়ে বড় শত্রু দারিদ্র্য। সেটি একসঙ্গে মোকাবিলা করতে হবে। শিক্ষা শান্তি ও নিরাপত্তা ছাড়া কোনো দেশ উন্নতি করতে পারে না। এ বিষয়গুলো সামনে রেখেই বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত এ ডায়ালগের যৌথ আয়োজন করছে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ (বিস) ও ভারতের অবজার্ভার রিসার্চ ফাউন্ডেশন (ওআরএফ)। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ এর মহাপরিচালক (বিস) মেজর জেনারেল একে এম আব্দুর রহমান, ভারতের অবজার্ভার রিসার্চ ফাউন্ডেশন এর প্রেসিডেন্ট সমীর শরণ ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন থাকবেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, ভারতীয় জনতা পার্টির সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব, ঢাকায় নিযুক্ত অস্ট্রেলিয়ার হাইকমিশনার জুলিয়া নিবলেট, ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটার্টন ডিকসন ও ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলী। তিনদিন ব্যাপী চলা বিভিন্ন সেশনে প্রবৃদ্ধি, বাণিজ্য, নিরাপত্তা, পোশাক শিল্প, জলবায়ু নিরাপত্তা, স্বাস্থ্য ও পুষ্টি, অবকাঠামো ও প্রভাব বিস্তারে রাজনৈতিক অর্থনীতি, ব্লু-ইকনোমি, আন্তঃমহাদেশী হুমকি, সাইবার নিরাপত্তা, সহিংস চরমপন্থার বিরুদ্ধে লড়াই ও নারী নেতৃত্ব-নারী উদ্যোগ ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা হবে।
অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তুরিনকে অপসারণ করা হয়েছে: আইনমন্ত্রী
১১নভেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর তুরিন আফরোজের বিরুদ্ধে আসা অভিযোগগুলো প্রমাণিত হওয়ায় তাকে ওই পদ থেকে অপসারণ করা হয়েছে। বললেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। আজ সোমবার সচিবালয়ে আইনমন্ত্রীর কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। আইনমন্ত্রী বলেন, অপরাধীর সঙ্গে তিনি যেসব কথা বলেছেন তার রেকর্ড আমাদের হাতে আছে। সেগুলো সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে প্রমাণিত হওয়ায় আমরা তাকে অপসারণ করেছি। এর আগে পেশাগত অসদাচরণ, শৃঙ্খলা ও আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে প্রসিকিউটর ড. তুরিন আফরোজকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর পদ থেকে অপসারণ করা হয়। এর আগে চিফ প্রসিকিউটর গোলাম আরিফ টিপু স্বাক্ষরিত একটি চিঠি ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউশন শাখা থেকে আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। এরপর তাকে মন্ত্রণালয় থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। উল্লেখ্য মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেপ্তার ওয়াহিদুল হকের মোবাইল ফোনে থাকা দুই অডিও রেকর্ডের কারণে ফেঁসে যান তুরিন আফরোজ। ২০১৮ সালের ২৪ এপ্রিল জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা-এনএসআইয়ের সাবেক মহাপরিচালক ওয়াহিদুল হককে গুলশান থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ওই সময় তার মোবাইল ফোনটিও জব্দ করে পুলিশ। পরে সেটি পরীক্ষা করতে গিয়ে দুটি অডিও রেকর্ড পাওয়া যায়। ওই অডিওতে তার সঙ্গে তুরিনের যোগাযোগের তথ্য ছিল।
একজন ভালো সাংবাদিকের কোনো বন্ধু থাকে না: গণপূর্ত মন্ত্রী
০৭নভেম্বর,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম:গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এমপি বলেছেন, একজন ভালো সাংবাদিকের কোনো বন্ধু থাকে না। সাংবাদিকদের সৃষ্টি তাদের অমরত্ব দিতে পারে। তারা কঠিনকে ভালোবাসেন। তাদের বৈচিত্র্যময় জীবনে আনন্দের চেয়ে বেদনার মুহূর্ত প্রবল। তাদের অনবদ্য সৃষ্টি অনেক সময় অনুপ্রেরণা ও উৎসাহ দেয় এবং ভবিষ্যতে চলার পথ নির্দেশ করে। বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর ২০১৯) রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের আয়োজনে ‘রূপসী বাংলা’ শীর্ষক জাতীয় ফটো প্রদর্শনী ও প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, সাংবাদিকগণ অনেক সময় প্রয়োজনীয় বেতন-ভাতা পান না বলে অত্যন্ত কষ্টদায়ক জীবনযাপন করেন। তাদের কাজে আমরা কেউ সন্তুষ্ট থাকি না। এজন্য সাংবাদিকতাকে বলা হয় থ্যাংকসলেস জব। প্রশংসাসূচক সংবাদ হলে আমরা খুব খুশি হই, কিন্তু অনিয়ম-দুর্নীতি-অব্যবস্থাপনার সংবাদ হলে আমরা খুশি হতে পারি না। অনেক সময় মালিকপক্ষের বিজাতীয় আচরণ সাংবাদিকদের সইতে হয়। তাদের স্বকীয়তা বিকাশের জায়গা সীমাবদ্ধ হয়ে যায়। তবে এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, অনলাইন গণমাধ্যম সাংবাদিকদের বিকাশের ক্ষেত্র হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। মন্ত্রী আরো বলেন, ফটো সাংবাদিকদের কর্মক্ষেত্রে অনেক সময় ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে হয়। তবুও নৈপুণ্য ও শৈল্পিকতা দিয়ে নির্মল ও নির্ভেজালভাবে ফটো সাংবাদিকগণ তথ্য উপস্থাপন করেন যা অনেক ক্ষেত্রে রিপোর্টারগণও পারেন না।' শ ম রেজাউল করিম বলেন, আমি সব সময় আহ্বান জানাই দুর্নীতির বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ হোক। প্রয়োজনে আমার ত্রুটি তুলে ধরুন, তবে আমাকে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দিতে হবে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি নিয়ে আমরা যে পদক্ষেপ নিয়েছি এবং নিচ্ছি সেটা সাংবাদিকদের তুলে ধরতে হবে। না হলে আমরা উৎসাহ পাবো না। সাংবাদিকদের প্রধান অতিথি আহ্বান জানান, 'অনিয়ম করে হঠাৎ করে উত্থান হওয়া ব্যক্তিদের সামনে নিয়ে আসুন। মানুষ যেন তাদের ঘৃণা করতে পারে। এসব জায়গায় আমাদের সকলের সোচ্চার হওয়া দরকার। কিছু সাদা পোশাকধারী রাজনীতিক ও অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ ব্যক্তি দেশের এত উন্নয়নের মাঝে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি সৃষ্টি করছেন। তাদের চিত্র প্রতিবিম্বের মতো আপনাদের তুলে ধরতে হবে। বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি গোলাম মোস্তফার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক যুগান্তরের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাইফুল আলম এবং বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের উপদেষ্টা মোহাম্মদ এনায়েত করিম। স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কাজল হাজরা। অনুষ্ঠানে ৮ জন পুরস্কারপ্রাপ্ত ফটোজার্নালিস্টের হাতে ক্রেস্ট ও সনদপত্র তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী।-আলোকিত বাংলাদেশ
প্রথম আলো আয়োজকদের অবহলোয় নাঈম আবরারের মৃত্যু হয়: প্রধানমন্ত্রী
০৭নভেম্বর,বৃহস্পতিবার,স্পেশাল প্রতিনিধি,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার তার কার্যালয়ের করবী হলে সাংবাদিকদের অনুদান প্রদান অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন। তিনি বলেছেন, যারা অনুষ্ঠান আয়োজন করে তাদের একটা দায়িত্ব থাকে। রেসিডেন্সিয়ালের একটা ঘটনা ঘটলো। আয়োজকরা এটাকে এতটা নেগলেক্ট করেছে! বাচ্চাটা মারা গেছে, এরপরও ঘটনাটা চাপা দিয়ে অনুষ্ঠান চালিয়ে গেছে। ধানমন্ডিতে এতোগুলো হাসপাতাল, তবুও মহাখালীতে নিয়ে গেলো। প্রথম আলো এই ধরনের একটা ঘটনা কীভাবে ঘটায়? তাদের কোনও দায়বদ্ধতা নেই? ছোট ছোট বাচ্চারা এখানে পড়াশোনা করছে। তাদের নিরাপত্তা না দেখা এটাও তো গর্হিত অপরাধ। এটা তো বরদাশত করা যায় না। উল্লেখ্য, ১ নভেম্বর বিকালে ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজ ক্যাম্পাসে দৈনিক প্রথম আলোর সাময়িকী কিশোর আলোর অনুষ্ঠান চলাকালে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে নাঈমুল আবরারের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আয়োজকদের অব্যবস্থাপনাকে দায়ী করে বিচারের দাবি জানিয়ে আসছেন আবরারের পরিবার ও শিক্ষার্থীরা। বুধবার (৬ নভেম্বর) দৈনিক প্রথম আলো ও সাময়িকী কিশোর আলোর প্রকাশক মতিউর রহমানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন আবরারের বাবা মো. মজিবুর রহমান। মামলা গ্রহণ করে আবরারের লাশ উত্তোলন ও ময়নাতদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকার অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আমিনুল হক।
আরও ৭ দিন সময় বাড়ল নতুন সড়ক আইন বাস্তবায়নে
০৭নভেম্বর,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, নতুন সড়ক আইন বাস্তবায়নে আরও সাত দিন সময় বাড়ানো হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) সকালে নতুন আইন কার্যকর নিয়ে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) কার্যালয়ে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা জানান। ওবায়দুল কাদের বলেন, সচেতনতা সৃষ্টির জন্য শুরুতে এক সপ্তাহ সময় বাড়ানো হয়েছিল। একই কারণে এবার আরও এক সপ্তাহ সময় বাড়ানো হলো। এরপর থেকে কঠোরভাবে আইন বাস্তবায়নে কাজ করা হবে। কাদের বলেন, দেশের দুটি সিটি করপোরেশন নগরে সড়কে ফুটপাতে, পার্কিংয়ে শৃঙ্খলা আনতে কাজ শুরু করলেও ডেঙ্গুর প্রকোপের কারণে তাতে কিছুটা ভাটা পড়েছে। উল্লেখ্য, নতুন সড়ক পরিবহন আইন আগামী ১ নভেম্বর থেকে কার্যকর হচ্ছে।

জাতীয় পাতার আরো খবর