চলছে অবরোধ, গাড়ি আটকে চাবি কেড়ে নিচ্ছে শ্রমিকরা
২০নভেম্বর,বুধবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাতিলের দাবিতে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে পরিবহন শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ চলছে। এ সময় পরিবহন শ্রমিকরা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাইনবোর্ডে চলাচলরত গাড়ি আটকে দেয়। সেইসঙ্গে গাড়িগুলো থেকে চালকদের নামিয়ে গাড়ির চাবি কেড়ে নেওয়া হচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে। আজ বুধবার সকাল সোয়া ছয়টা থেকে সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় একদল পরিবহন শ্রমিক সড়কে অবস্থান নেয়। এরপর মহাসড়কের দুই পাশে গাড়িগুলোকে এলোমেলো করে রেখে রাস্তা অবরোধ করে রাখে তারা। বেলা ১১টায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত শ্রমিকদের অবরোধ চলছিল। এদিকে খবর পেয়ে ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হয়েছেন নারায়ণগঞ্জ ট্রাফিক বিভাগের সিনিয়র এএসপি সালেহউদ্দিন আহমেদ। শ্রমিকদের ধর্মঘটের বিষয়টি নিশ্চিত করে সাইনবোর্ড এলাকায় কর্তব্যরত ট্রাফিক পরিদর্শক মো. জিয়াউল করিম জানান, বুধবার সকাল সোয়া ছয়টা থেকে কিছু শ্রমিক রাস্তায় এসে অবস্থান নেয় এবং সড়ক অবরোধ করে মহাসড়কের উভয় পাশে বন্ধ করে দেয়। পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান, নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাতিলের দাবিতে শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করেছেন। এদিকে পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই শ্রমিকদের ধর্মঘট ও সড়ক অবরোধের কারণে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাইনবোর্ড এলাকার উভয় পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে করে ভোগান্তিতে পড়েছে দূরপাল্লার যাত্রীসহ সাধারণ মানুষ।
কমিশন নিয়ে ওষধু লেখার কারণে ডাক্তারি পেশা নষ্ট হচ্ছে : হাইকোর্ট
১৯নভেম্বর,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: কমিশন নিয়ে প্রেসক্রিপশনে বিভিন্ন কোম্পানির ওষধু লেখার কারণে ডাক্তারি পেশা নষ্ট হচ্ছে বলে জানিয়েছেন হাইকোর্ট।মঙ্গলবার সকালে বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের বেঞ্চ এ কথা জানান। এসময়, ভেজাল ওষুধ বিক্রির শাস্তি মৃত্যুদণ্ড বা যাবজ্জীবন হওয়া দরকার বলেও মন্তব্য করেন আদালত। অল্প সাজা দেয়ায় মোবাইল কোর্টের সুফল পাওয়া যাচ্ছে না ফলে ভেজাল ওষুধ বিক্রিও বন্ধ হচ্ছে না বলে জানায় হাইকোর্ট।আদালত অভিযোগ করেন, মোবাইল কোর্ট অল্প শাস্তির মাধ্য দিয়ে ব্যবসায়ীদের রক্ষা করছে। মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ নিয়ে রিটের পরবর্তী শুনানি ১২ ডিসেম্বর ওই দিন ওষুধ শিল্প মালিক সমিতিকে এ বিষয়ে প্রতিবেদন দিতে বলেছেন হাইকোর্ট।
দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতুর ২৪০০ মিটার
১৯নভেম্বর,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে ১৬-১৭ নম্বর পিলারে বসেছে সেতুর ১৬তম স্প্যান ৩-ডি। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে স্প্যানটি (সুপার স্ট্রাকচার) পিলারে বসানোর জন্য মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার কুমারভোগের কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ভাসমান ক্রেন তিয়ান-ই তে করে রওনা হয়। ১৬-১৭ নম্বর পিলারে স্প্যানটি বসানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন পদ্মা সেতুর সহকারী প্রকৌশলী (মূল সেতু) হুমায়ুন কবির। ১৬তম স্প্যান বসানোর কারণে সেতুর মোট দুই হাজার ৪০০ মিটার দৃশ্যমান হয়েছে।এর আগে গত ২২ অক্টোবর ২৩-২৪ নম্বর পিলারের ওপর ১৫তম স্প্যান বসানো হলে সেতুর দুই হাজার ২৫০ মিটার দৃশ্যমান হয়েছিল। জানা গেছে, এ মাসেই পদ্মা সেতুতে বসতে যাচ্ছে আরও দুটি স্প্যান। কয়েকদিনের মধ্যে বসানোর সিডিউল আছে স্প্যান ৪-ডি। এটি বসানো হবে ২২-২৩ নম্বর পিলারে। তবে, নাব্যতা সংকটের কারণে এ স্প্যান বসাতে প্রকৌশলীদের অপেক্ষা করতে হচ্ছে। চ্যানেলে নাব্যতা ফেরাতে ড্রেজিং অব্যাহত আছে। সেতুর মোট ৪১টি স্প্যানের মধ্যে কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে এসেছে ৩১ স্প্যান। ১৫টি স্থাপন করা হয়েছে, ৫টি প্রস্তুত আছে, ৩টি রং করা বাকি এবং ৮টি স্প্যান ফিটিং করা হচ্ছে। আর সেতুর ৪২টি পিলারের মধ্যে ৩৩টির কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বাকি পিলারের শুধু ক্যাপিং করার কাজ করতে হবে। ৬ দশমিক ১৫ দৈর্ঘ্যের দ্বিতল সেতুটি কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মাণ করা হচ্ছে। চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি মূল সেতু নির্মাণের কাজ করছে।
দেশে লবণের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে: শিল্প মন্ত্রণালয়
১৯নভেম্বর,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দেশে বর্তমানে সাড়ে ৬ লাখ মেট্রিক টনের বেশি ভোজ্য লবণ মজুদ রয়েছে। এর মধ্যে কক্সবাজার ও চট্টগ্রামের লবণ চাষিদের কাছে ৪ লাখ ৫ হাজার মেট্রিক টন এবং বিভিন্ন লবণ মিলের গুদামে ২ লাখ ৪৫ হাজার মেট্রিক টন লবণ মজুদ রয়েছে। মঙ্গলবার শিল্প মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এতথ্য জানানো হয়।বিবৃতিতে আরও বলা হয়, এছাড়া সারাদেশে বিভিন্ন লবণ কোম্পানির ডিলার, পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতাদের কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণে লবণ মজুদ রয়েছে। পাশাপাশি চলতি নভেম্বর মাস থেকে লবণের উৎপাদন মওসুম শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া ও মহেশখালী উপজেলায় উৎপাদিত নতুন লবণও বাজারে আসতে শুরু করেছে।দেশে প্রতি মাসে ভোজ্য লবণের চাহিদা কম-বেশি ১ লাখ মেট্রিক টন। অন্যদিকে লবণের মজুদ আছে সাড়ে ৬ লাখ মেট্রিক টন। সে হিসেবে লবণের কোনো ধরনের ঘাটতি বা সংকট হবার প্রশ্নই ওঠে না।একটি স্বার্থান্বেষী মহল লবণের সংকট রয়েছে মর্মে গুজব রটনা করে অধিক মুনাফা লাভের আশায় লবণের দাম অস্থিতিশীল করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। এ ধরনের গুজবে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য শিল্প মন্ত্রণালয় সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে।উল্লেখ্য, লবণ সংক্রান্ত বিষয়ে তদারকির জন্য শিল্প মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক) প্রধান কার্যালয়ে ইতোমধ্যে একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। এর নম্বর হচ্ছে: ০২-৯৫৭৩৫০৫ (ল্যান্ড ফোন), ০১৭১৫-২২৩৯৪৯ (সেল ফোন)। লবণ সংক্রান্ত যে কোনো তথ্যের প্রয়োজনে কন্ট্রোল রুমের সাথে যোগাযোগের জন্য অনুরোধ করা হলো।
দুবাই থেকে রাতে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী
১৯নভেম্বর,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: সংযুক্ত আরব আমিরাতে চার দিনের সরকারি সফর শেষে মঙ্গলবার রাতে দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দুবাই এয়ার শোতে যোগদান করতে দুবাইয়ের শাসক মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুমের আমন্ত্রণে এই সফর করছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীরা মঙ্গলবার বিকালে দুবাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবেন। বাংলাদেশ সময় রাতে তিনি পৌঁছাবেন ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে। সফরে প্রধানমন্ত্রী ১৭ নভেম্বর বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম ও সফল এয়ার শো এবং মধ্যপ্রাচ্য, এশিয়া ও আফ্রিকার বৃহত্তম এয়ারোস্পেস ইভেন্ট দুবাই এয়ার শোর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দেন। পরে তিনি দুবাইয়ের ভবিষ্যৎ বিমানবন্দর দুবাই ওয়ার্ল্ড সেন্টারে এয়ার ডিসপ্লে উপভোগ করেন। এটি আল মাকতুম আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হিসেবেও পরিচিত। দুবাই এয়ার শোর ফাঁকে আবুধাবির যুবরাজ এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের সশস্ত্র বাহিনীর ডেপুটি সুপ্রিম কমান্ডার শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবুধাবির বাংলাদেশ দূতাবাস আয়োজিত এক নৈশভোজেও যোগ দেন। অনুষ্ঠানে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যিক স্বার্থে শেখ হাসিনা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করার জন্য আমিরাতের ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানান।
এবার যুক্তরাষ্ট্র জয় করলেন বাংলাদেশী বিজ্ঞানী ডা. আরিফ
১৮নভেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জাপানের পর এবার যুক্তরাষ্ট্রে বিশেষ সম্মাননায় ভূষিত হচ্ছেন বাংলাদেশী বিজ্ঞানী ডা. আরিফ হোসেন। আগামী বছরের ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিতব্য ওয়ার্ল্ড সিম্পোজিয়ামে সারা পৃথিবী থেকে ১১ জনকে বাছাই করা হয়েছে সেরা তরুণ বিজ্ঞানী হিসেবে। এর মধ্যে দুইজন বৃটিশ, সাতজন আমেরিকান, একজন ডেনমার্ক এবং একজন জাপানিজ বিজ্ঞানী। যুগান্তর রোববার এ খবর প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা ভিত্তিক গবেষণা বিষয়ক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডসিম্পোজিয়া। পুরস্কারপ্রাপ্ত আলোচিত ওই জাপানিজ বিজ্ঞানী হলেন টোকিওর জিকেই মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র রিসার্চার বাংলাদেশি ডা. মোহাম্মদ আরিফ হোসেন। তিনি গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলার কৃতী সন্তান। এর আগেও তিনি গবেষণার জন্য একাধিক আন্তর্জাতিক পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। ডা. আরিফের পরিবারে আরও যারা আলোচিত ডা. আরিফ হোসেন গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীর ভাটিয়াপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। ১১ ভাইবোনের মধ্যে ডা. আরিফ হোসেন সবার ছোট। তিনি এসএসসি পর্যন্ত গ্রামের স্কুলে পড়াশোনা করেন। তারপর ঢাকার মিরপুর বাঙলা কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাস করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজে ভর্তি হন। সেখান থেকে প্রথমে এমবিবিএস পাস করে একই প্রতিষ্ঠান থেকে শিশু বিভাগে পোস্ট গ্রাজুয়েশন করেছেন। ডা. আরিফের বড় ভাই ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডা. সিদ্দিকুর রহমান গবাদি পশুর রোগের চিকিৎসার ভ্যাকসিন ব্রুসেলোসিস আবিষ্কার করেছেন, যা বিশ্বে প্রথম। কৃষি বিজ্ঞানে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য তিনি তিনবার রাষ্ট্রপতি ও একবার প্রধানমন্ত্রীর পুরস্কারে ভূষিত হন। এছাড়া ডা. আরিফের ভাতিজা মুবিন ইবনে মকবুল ডেন্টাল ভর্তি পরীক্ষায় এবছর জাতীয় মেধায় প্রথম হয়েছেন। তার সর্বমোট স্কোর ২৯২.৫। এটি ডেন্টালে এ যাবৎকালের সর্বোচ্চ স্কোর। একই সঙ্গে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিপরীক্ষায় ঘ ইউনিটেও তিনি প্রথম হন। সেই সঙ্গে ঢাকা মেডিকেল, বুয়েট ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েও ভর্তি পরীক্ষায় মেধা তালিকায় স্থান করে সারা দেশে আলোচিত হন। যে গবেষণায় পুরস্কার পাচ্ছেন ডা. মোহাম্মদ আরিফ হোসেন আলোচিত এই পুরস্কার জিতেছেন ফেব্রী রোগ নামক এক ধরনের জেনেটিক লাইসোসোমাল রোগের pathophysiology তে গবেষণাপত্র প্রকাশের জন্য। ওয়ার্ল্ড সিম্পোজিয়া ওয়েবসাইটের তথ্যানুযায়ী, প্রতি বছর ফেব্রুয়ারিতে চারদিন ব্যাপী বিজ্ঞানীদের এই বিশ্ব সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় আমেরিকার ফ্লোরিডা অথবা ক্যালিফোর্নিয়াতে। এবছর সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হবে ফ্লোরিডা রাজ্যের ওরল্যান্ডের হায়াত রিজেন্সি হোটেলে ১০-১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০-এ। প্রতিবছর প্রায় দুই থেকে তিন হাজার বিশ্ববিখ্যাত লাইসোসোমাল রোগ বিশেষজ্ঞের উপস্থিতিতে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রায় ৫০০-৬০০ গবেষণা পত্র উপস্থাপিত হয়। যুক্তরাষ্ট্র থেকে এমন সম্মাননা পাওয়ার প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে সোমবার রাতে ই-মেইল বার্তায় যুগান্তরকে ডা. আরিফ হোসেন বলেন, কাজের স্বীকৃতি পেলে অবশ্যই অনেক ভাল লাগে। আমি এত বড় একটা সম্মেলনে এত বড় বড় বিজ্ঞানীদের সামনে প্লাটফর্মে দাঁড়িয়ে আমার গবেষণা উপস্থাপন করতে পারব এটা ভেবেই আমি খুব শিহরিত। তবে সত্যি কথা বলতে কি আমি যদিও বাংলাদেশী, কিন্তু আমি উপস্থাপন করতে যাচ্ছি জাপানকে। যদি নিজের দেশকে উপস্থাপন করতে পারতাম তাহলে আরও ভাল লাগত।-amadershomoy.com
কমছে পেঁয়াজের দাম, বাড়ছে চালের
১৮নভেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর পাইকারি বাজারগুলোতে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। দুদিনের ব্যবধানে পাইকারি বাজারে দাম কমেছে ৭০-৮০ টাকা। দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৫০-১৬০ টাকা। নতুন পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১০০-১২০ টাকায়। আমদানি করা চায়না পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১০০-১১০ টাকায়। তবে পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম কমলেও এখনও পুরোপুরি প্রভাব পড়েনি খুচরা বাজারে। সোমবার রাজধানীর মতিঝিল, খিলগাঁও, মুগদা, সেগুনবাগিচা, ধানমন্ডি এলাকার বাজারগুলোতে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি করছে ২০০-২২০ টাকা। আমদানি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৬০-১৮০ টাকা। আর নতুন পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৫০-১৬০ টাকা। পেঁয়াজ ব্যবসায়ী ও বাজার সংশ্লিষ্টরা জানান, ইতোমধ্যে বাজারে নতুন দেশি পেঁয়াজ উঠতে শুরু করেছে। সংকট মোকাবিলায় সরকার বিভিন্ন দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করছে। পাশাপাশি পেঁয়াজের কারসাজিকারীদের ধরতে নিয়মিত অভিযান চালাচ্ছে বিভিন্ন সংস্থা। এসব কারণে বাজারে পেঁয়াজের দাম কমছে। দাম কমার এ ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে আগামী কয়েকদিনে মধ্যে বাজার স্বাভাবিক হয়ে যাবে। অন্যদিকে পেঁয়াজের পর এবার চালের দামও বাড়তে শুরু করেছে। এক সপ্তাহের মধ্যে রাজধানীর খুচরা বাজারগুলোতে চালের দাম কেজিতে বেড়েছে ৫ থেকে ৬ টাকা। রাজধানীতে দাম বাড়ার আগে কুষ্টিয়া ও নওগাঁতেও চালের দাম কেজিতে ৫-৭ টাকা করে বাড়ে। কুষ্টিয়ায় কিছুদিন আগে যে মিনিকেট চালের দাম ছিল ৩৮ টাকা, এখন সেই চালের দাম ৪৪ থেকে ৪৫ টাকা হয়েছে। একই হারে কুষ্টিয়ায় বেড়েছে কাজললতা চালের দামও। ৩২ টাকা থেকে বেড়ে ৩৮ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে কাজললতা চাল। তবে আটাশ চালের দাম তেমন একটা না বাড়লেও প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩২-৩৩ টাকায়। উত্তরাঞ্চলের ধান-চালের সবচেয়ে বড় মোকাম নওগাঁতে কিছুদিন আগে ৩৬ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া জিরাশাইল’র দাম বেড়ে এখন বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকায়। আটাশ চালের দাম কেজিতে ২-৩ টাকা বেড়ে ৩৪-৩৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। স্বর্ণা ৩০ টাকা, কাটারিভোগ ৫০-৫২ টাকা, পাইজাম ৫০-৫২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রকারভেদে মোটা চালের দাম কেজিতে দুই টাকা বেড়েছে। হঠাৎ করে চালের দাম বাড়ার জন্য খুচরা ব্যবসায়ীরা মিল মালিকদের দায়ী করছেন। তারা বলছেন, মিল মালিকরা দাম বাড়ানোর কারণে তারা বাড়তি দামে বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন। বিশেষ করে রশিদের মিনিকেটের দাম বাড়ানোর কারণে, সবাই চালের দাম বাড়িয়েছে। ক্রেতারা বলছেন, বাজারে কার্যকর নজরদারি না থাকার কারণে একের পর এক নিত্যপণ্যের দাম বাড়ছে। রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সপ্তাহের ব্যবধানে মিনিকেট চালের দাম বস্তায় (৫০ কেজি) বেড়েছে ৩০০ টাকা পর্যন্ত। এক সপ্তাহ আগে ৪২-৪৪ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া মিনিকেট চাল এখন বিক্রি হচ্ছে ৪৮-৫০ টাকায়। নাজিরশাইল বিক্রি হচ্ছে ৫৫ থেকে ৫৬ টাকা, যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ৪৮-৫০ টাকা কেজি। চিকন চালের পাশাপাশি বেড়েছে মোটা চালের দামও। এক সপ্তাহ আগে ৩৪-৩৬ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া আটাশ চালের দাম বেড়ে হয়েছে ৩৮-৪০ টাকা। ৩০-৩২ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া স্বর্ণা চালের দাম হয়েছে ৩৪-৩৬ টাকা। খুচরার পাশাপাশি দাম বেড়েছে পাইকারিতেও। পাইকারিতে প্রতিবস্তা মিনিকেট চাল বিক্রি হচ্ছে ২২৫০-২৩০০ টাকায়। আটাশ চাল বিক্রি হচ্ছে ১৭৫০-১৮০০ টাকা, নাজিরশাইল বিক্রি হচ্ছে ২৩৫০-২৭০০ টাকায়।
বিএনপিকে সুবিধা দিতে বুয়েট অস্থির: নওফেল
১৮নভেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: বিরোধী দল বিএনপিকে রাজনৈতিক সুবিধা দিতে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) অস্থির করে রেখেছেন এক অভিভাবক। এমনটা জানিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। আবরার ফাহাদ হত্যায় অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার, অভিযোগপত্র দেওয়ার পরও বুয়েট ক্লাস-পরীক্ষা চালু না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন উপমন্ত্রী। তিনি বুয়েটে চলমান আন্দোলনে কতিপয় গোষ্ঠী জড়িত দাবি করে তারা চিহ্নিত বলে জানান। তিনি বলেন, বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার হত্যা একটি মর্মান্তিক ও দুঃখজনক ঘটনা। দলীয় বিবেচনা না করে হত্যায় জড়িত সন্দেহভাজনদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ইতিমধ্যে চার্জশিটও দেওয়া হয়েছে। তারপরও আমরা লক্ষ্য করছি কতিপয় গোষ্ঠী হীনস্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে রেখেছে। তাদের চিহ্নিত করা হয়েছে। খুব দ্রুতই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সোমবার রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক অবস্থা নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন। উপমন্ত্রী বলেন, প্রযুক্তির সহায়তায় আমাদের কাছে সব তথ্য রয়েছে। মেধাবীদের প্রতিষ্ঠান বুয়েট, তাই আমরা কারো বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহী মামলা বা অন্য ব্যবস্থা নিতে চাই না। আপনারা (অভিভাবকরা) তাদের সন্তানদের মঙ্গলের কথা চিন্তা করে সঠিক পথ দেখান। উসকানিমূলক আচরণ করে জনগণের অর্থে পরিচালিত বিশ্ববিদ্যালয় অচল রাখার চেষ্টা করে রাজনৈতিক ফয়দা নেয়ার চেষ্টা করবেন না। কারা এসব করছেন আমাদের কাছে সেসব তথ্য রয়েছে। আন্দোলনে ইন্ধনদাতা শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে উপমন্ত্রী বলেন,আপনারা উসকানি দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে রেখেছেন। আবার আপনারা বেতনও নিচ্ছেন। এটা কোন নৈতিকতার মধ্যে পড়ে? তিনি আরো বলেন, বিএনপিকে রাজনৈতিক সুবিধা নিতে এক অভিভাবক উসকানি দিয়ে দেশের শীর্ষ মানের এই প্রতিষ্ঠানটিকে অস্থির করে রেখেছেন। সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে উপমন্ত্রী বলেন,অভিযুক্ত অপরাধীরা কারাগারে আটক রয়েছে। তাদের বিচার চলছে, এ সময় বুয়েট থেকে তাদের স্থায়ী বহিষ্কারের ইস্যু তুলে শিক্ষার্থীরা ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করছেন। স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য একটি প্রক্রিয়া রয়েছে, এ জন্য সময় প্রয়োজন। যেহেতু অপরাধীরা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার, এ সময় তাদের স্থায়ী বহিষ্কার মুখ্য বিষয় নয়। এ ইস্যুতে আন্দোলন চাঙা রাখা হবে তা হতে পারে না। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান সংকট কবে কেটে যাবে এমন প্রশ্নের উত্তরে মহিবুল বলেন, উপাচার্যের পক্ষে-বিপক্ষে শিক্ষকদের দুটি আলাদা অভিযোগ জমা হয়েছে, আমরা প্রাথমিক তদন্ত শুরু করেছি। দ্রুত এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।-আলোকিত বাংলাদেশ
দ্রুত রোহিঙ্গা সংকট সমাধান সম্ভব নয়: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী
১৮নভেম্বর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: দ্রুত রোহিঙ্গা সংকট সমাধানের লক্ষ্য মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ তৈরির চেষ্টা করছে সরকার। একথা জানিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। তিনি আরো জানান, আন্তর্জাতিক আদালতে বিচার শুরু হলে, রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারেকে সমর্থন দেয়া দেশগুলো চাপে পড়বে। তবে বিশ্লেকরা বলেছেন, ভারত-চীনের সমর্থন ছাড়া রোহিঙ্গা সংকট সমাধান সম্ভব নয়। ২০১৭ সালে রাখাইনে সেনা অভিযানের মুখে বাস্তুচ্যূত হয়ে রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আসতে শুরু করে। তখন থেকে এ পর্যন্ত সাড়ে ১১ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবিরে অবস্থান করছেন। নানা আশ্বাস আরও দ্বিপাক্ষীয় বৈঠকের পরও শুরু হয়নি তাদের প্রত্যাবাসন। রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতীয় প্রেসক্লাবে আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের প্রয়োজনীয়তা শীর্ষক গোল টেবিল আলোচনার আয়োজন করে আইসিএল ডিএস ও ভোরের কাগজ। আলোচনায় অংশ নেন আন্তর্জাতিক বিশ্লেকসহ বিভিন্ন পেশার প্রতিনিধিরা। বক্তরা বলেন, বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত মিয়ানমারের ওপর তেমন কোন চাপ সৃষ্টি করতে পারেনি। এ অবস্থা চলতে থাকলে আগামী ১০ বছরেও এর কোন সুরাহা হবে না। বক্তাদের দাবি, এনজিওগুলোর পাশাপাশি বিএনপি জামায়াতও চায় না রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে ফিরে যাক। জিয়াউর রহমানের সময় থেকে রোহিঙ্গা সংকট শুরু হয়েছে বলেও দাবি তাদের। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম দাবি করেন, রোহিঙ্গা প্রত্যাবসন বিষয়ে আসশিয়ান সম্মেলেন নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশের পক্ষেই কথা বলেছেন। রোহিঙ্গাদের নিয়ে নিরাপত্তা বিষয়ক যেসব চ্যালেঞ্জ রয়েছে তা বিশ্বের কাছে বাংলাদেশ তুলে ধরছে বলেও জানান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।

জাতীয় পাতার আরো খবর