দেশের প্রথম হিজরা ভাইস চেয়ারম্যান পিংকি
১৫অক্টোবর,মঙ্গলবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: তৃতীয় লিঙ্গ বা হিজরা সম্প্রদায় থেকে বাংলাদেশের প্রথম মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হলেন পিংকি খাতুন। গতকাল সোমবার ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে পিংকি ৭৪১ ভোট বেশি পেয়ে বিজয়ী হন। পিংকি খাতুনের সঙ্গে রুবিনা খাতুন ও নাসিমা ইসলাম নামে আরও দুই নারী কোটচাঁদপুর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করেছিলেন। পিংকি ১২ হাজার ৮৮০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রুবিনা খাতুন পান ১২ হাজার ১৩৯ ভোট। পিংকি খাতুন কোটচাঁদপুর উপজেলার দোড়া ইউনিয়নের সোয়াদি গ্রামের নওয়াব আলীর সন্তান। পিংকি খাতুন জানিয়েছেন, তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন। নির্বাচিত হওয়ার পর এক প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছেন সমাজের অবহেলিত মানুষের পাশে দাঁড়াবেন। বৈষম্য রয়েছে তা রোধে কাজ করবেন। পিংকি খাতুন দীর্ঘ ৩ বছর ধরে কোটচাঁদপুর উপজেলা যুব মহিলা লীগের আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলা নির্বাচনে বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী শরিফুন্নেছা মিকি।
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গণভবনে আবরারের বাবা-মা
১৪অক্টোবর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গণভবনে গেছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) নিহত শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের বাবা-মা। সোমবার বিকাল ৫টার কিছু আগে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আসেন আবরারের বাবা বরকতুল্লাহ ও মা রোকেয়া বেগম। প্রধানমন্ত্রীর উপ প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। প্রসঙ্গত, ভারতের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তি নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ায় খুন হন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ। ভারতের সঙ্গে চুক্তির বিরোধিতা করে গত ৫ অক্টোবর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন ফাহাদ। এর জেরে পরদিন ৬ অক্টোবর রাতে শেরেবাংলা হলের নিজের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে তাকে ডেকে নিয়ে ২০১১ নম্বর কক্ষে বেধড়ক পেটানো হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পিটুনির সময় নিহত আবরারকে শিবিরকর্মী হিসেবে চিহ্নিত করার চেষ্টা চালায় খুনিরা। আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় তার বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে চকবাজার থানায় ১৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। ইতিমধ্যে পুলিশ ১৭ জনকে গ্রেফতার করেছেন। ১৩ জনকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। গ্রেফতার আসামিরা হলেন- বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান ওরফে রাসেল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফুয়াদ হোসেন, অনীক সরকার, মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন, ইফতি মোশারেফ, বুয়েট ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান ওরফে রবিন, গ্রন্থ ও প্রকাশনা সম্পাদক ইশতিয়াক আহমেদ ওরফে মুন্না, ছাত্রলীগের সদস্য মুনতাসির আল জেমি, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম ওরফে তানভীর, মোহাজিদুর রহমানকে, শামসুল আরেফিন, মনিরুজ্জামান ও আকাশ হোসেন, মিজানুর রহমান (আবরারের রুমমেট), ছাত্রলীগ নেতা অমিত সাহা এবং হোসেন মোহাম্মদ তোহা। এদের মধ্যে ১৯ জনকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।
সাংবাদিক মনোয়ারা মনুর মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর গভীর শোক
১৪অক্টোবর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: পাক্ষিক অনন্যার সাবেক নির্বাহী সম্পাদক ও নারী সাংবাদিক নেতা দিল মনোয়ারা মনুর মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার (১৪ অক্টোবর) এক শোকবার্তায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ শোক জানান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মরহুমার আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন। পাশাপাশি শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান। মনোয়ারা মনু রাজধানীর ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতালে রোববার রাত দেড়টায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৮ বছর। আজ বাদ জোহর লালমাটিয়ার বিবি মসজিদে দিল মনোয়ারা মনুর জানাজা হবে। এরপর তাকে তার সংগঠন কচিকাঁচার মেলার কাছে নিয়ে যাওয়া হবে। সেখান থেকে প্রেসক্লাবে শ্রদ্ধা জানানোর পর জুরাইনে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে। ১৯৭৪ সালে দিল মনোয়ারা মনু সাংবাদিকতায় যুক্ত হন। সুফিয়া কামাল ও নুরজাহান বেগম সম্পাদিত বেগম পত্রিকার সহ-সম্পাদক হিসেবে তার সাংবাদিকতা জীবনের শুরু। এরপর ২৫ বছর পাক্ষিক অনন্যার নির্বাহী সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। মনোয়ারা মনু জাতীয় প্রেসক্লাবের স্থায়ী সদস্য ছিলেন। এছাড়া তিনি বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, নারী সাংবাদিক কেন্দ্রসহ বিভিন্ন সংগঠনে সক্রিয় ছিলেন।
তৃতীয় বছরে বিজনেস বাংলাদেশ
১৪অক্টোবর,সোমবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: জমজমাট আয়োজনের মধ্যদিয়ে আজকের বিজনেস বাংলাদেশ তৃতীয় বর্ষে পদার্পণ করলো। রোরবার (১৩ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৬ টায় বিজনেস বাংলাদেশ কার্যালয়ে আগত অতিথিদের শুভেচ্ছা বিনিময়, কেক কাটা এবং আলোচনার মধ্যদিয়ে তৃতীয় বর্ষে পদার্পন করে পত্রিকাটি। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুল মতিন খসরু এমপি, বিশেষ অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব মেজবাহ উদ্দিন, কৃষি মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব তাজুল ইসলাম, সাবেক সচিব ও আজকের বিজনেস বাংলাদেশ পত্রিকার উপদেষ্টামন্ডলীর সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. শাহ আলম সিদ্দিকী, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতির (বাচসাস)সভাপতি ফালগুনী হামিদ, সভাপতি বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক দীপু সারোয়ার, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) সিনিয়র রিপোর্টার মো. সাজ্জাদ হোসেন, বাংলাদেশ প্রতিদিনের সিনিয়র সাব এডিটর রণক ইকরাম। বিজনেস বাংলাদেশ পত্রিকার ৩য় বর্ষে পদার্পণ অনুষ্ঠানে জমকালো আয়োজনে বিশিষ্ট চলচ্চিত্র অভিনেত্রী অঞ্জনা সুলতানা, অভিনেতা সহিদুল আলম সাচ্চু, চলচ্চিত্র অভিনেত্রী রঞ্জিতা কনা, মিষ্টি মারিয়া, বিশিষ্ট পরিচালক সোহানুর রহমান সোহান, চলচ্চিত্রকার ছটকু আহমেদ, বিশিষ্ট অভিনেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ, পরিচালক গাজী মাহবুব ও সময়ের আলোচিত মডেল-অভিনেত্রী সানাই মাহবুব এবং মডেল রোজ। প্রধান অতিথি আব্দুল মতিন খসরু তার বক্তব্যে বলেন, মত প্রকাশ করা আমাদের মৌলিক অধিকার। শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার জনগণের মত প্রকাশের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে। অবাধ তথ্য প্রবাহ নিশ্চিত করতে এবং গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে সরকার তথ্য অধিকার আইনসহ গণমাধ্যম বান্ধব বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। তবে গণমাধ্যমে কর্মরতদের মনে রাখতে হবে সেই মত প্রকাশ যাতে হয় সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে। আজকের বিজনেস বাংলাদেশ সত্য ওবস্তুনিষ্ঠ সংবাদের বাহক হিসেবে কাজ করবে আশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, পত্রিকাটির শুরু যেহেতু ভাল আমরা আশাবাদী এটি দেশের কল্যাণে ভূমিকা রাখবে, যেভাবে দৈনিক ইত্তেফাক, দৈনিক সংবাদসহ তৎকালীন গণমাধ্যম এদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌম প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রেখেছে তেমনি আজকের বিজনেস বাংলাদেশ সমাজ পরিবর্তনে ভূমিকা রাখবে। তিনি পত্রিকার উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি ও সফলতা কামনা করেন। অনুষ্ঠানে আগত বিভিন্ন অঙ্গনের ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা পত্রিকার সম্পাদকের হাতে ফুলের তোড়া তুলে দিয়ে শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি তাদের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। অনুষ্ঠানে দেশের ৬৪ জেলা প্রতিনিধিদের পক্ষে পত্রিকার সম্পাদককে শুভেচ্ছা জানান গাজীপুর জেলা প্রতিনিধি মঞ্জুরুল হক গাজী, নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি আমিরুল ইসলাম হারুন ও পটিয়া উপজেলা প্রতিনিধি মোর্শেদ আলম প্রমুখ ।
পাগলা মিজানের বিরুদ্ধে ২ মামলা
১২অক্টোবর,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: চলমান ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে আটক ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান মিজানের বিরুদ্ধে দুটি মামলা দায়ের করেছে Rapid Action BAttalion (Rab)। আজ শনিবার মোহাম্মদপুর থানায় মানি লন্ডারিং আইনে ও শ্রীমঙ্গলে অস্ত্র আইনে মামলা দুটি করা হয়। Rab -২ এর অধিনায়ক (সিও) লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এর আগে গতকাল শুক্রবার সকালে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল থেকে হাবিবুর রহমানকে আটক করা হয়। আটক হাবিবুর রহমান ডিএনসিসির ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এবং মোহাম্মদপুর থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। ঢাকায় ক্যাসিনো বিরোধী শুদ্ধি অভিযান শুরু হওয়ার পর থেকে লুকিয়ে ছিলেন তিনি। শ্রীমঙ্গল সীমান্ত হয়ে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন হাবিবুর। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে আটক করে Rab। মোহাম্মদপুরের অনেকে এই ওয়ার্ড কাউন্সিলরকে চেনেন পাগলা মিজান হিসেবে।
সব দাবি মানার পরও বুয়েটে আন্দোলন অযৌক্তিক: প্রধানমন্ত্রী
১২অক্টোবর,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সব দাবি মেনে নেয়া নেয়ার পরও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার কোনো যৌক্তিকতা নেই। আজ শনিবার রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে জাতীয় মহিলা শ্রমিক লীগের দ্বিতীয় সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন তিনি। আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, বুয়েটে হত্যাকাণ্ডের পর কারো আন্দোলনের জন্য অপেক্ষা করি নাই, প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থাই নেয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, নারীর ক্ষমতায়নে সরকার নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এছাড়াও নারীদের উন্নয়নে সরকার কাজ করে যাচ্ছে।
পাঁচ দফা দাবি মেনে নিল বুয়েট
১২অক্টোবর,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: আবরার হত্যার প্রতিবাদে দাবিতে শিক্ষার্থীদের ৫ দাবি মেনে নিয়ে নোটিশ প্রকাশ করেছে বুয়েট প্রশাসন। শনিবার (১২ অক্টোবর) বুয়েট প্রশাসন থেকে একটি নোটিশে এ তথ্য জানানো হয়। শুক্রবার (১১ অক্টোবর) বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটোরিয়ামে উপাচার্যের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠকের পর শিক্ষার্থীরা এখনই বাস্তবায়নের জন্য পাঁচ দফা দাবি তুলে ধরেন। দাবি না মানা হলে বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত করার কথাও জানানো হয়। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বলেন, ১০ দফা দাবির বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত প্রতিবাদ অব্যাহত থাকবে। ভিসি স্যারের অনুরোধ ও সারা দেশের ভর্তিচ্ছুদের কথা চিন্তা করে পাঁচ দফা দাবি বাস্তবায়নের শর্ত দেয়া হয়েছে। তাদের দেয়া পাঁচ দফা দাবি - পাঁচ শর্ত ১. আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডে জড়িত সবাইকে এখনই সাময়িক বহিষ্কার করতে হবে। যাদের বিরুদ্ধে চার্জশিট হবে, তাদের স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে মর্মে বুয়েট প্রশাসন থেকে নোটিস জারি করতে হবে। ২. আবরার হত্যা মামলার সব খরচ বুয়েট প্রশাসন বহন করবে এবং তার পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বাধ্য থাকবে, সেটাও নোটিসে লেখা থাকবে। ৩. বুয়েটে সাংগঠনিক রাজনীতি নিষিদ্ধ করে সকল হল থেকে অবৈধ ছাত্র উৎখাত করতে হবে। অবৈধভাবে হলের সিট দখলকারীদের উৎখাত করতে হবে। সাংগঠনিক ছাত্র সংগঠনগুলোর অফিস রুম সিলগালা করতে হবে। সাংগঠনিক ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধের পর ভবিষ্যতে কেউ যদি এ রকম সাংগঠনিক কার্যক্রমে জড়িত হয় কিংবা কোনো রকম ছাত্র নির্যাতনে জড়িত হয়, তাহলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কী ব্যবস্থা নেবে- তা বিস্তারিত জানিয়ে নোটিস জারি করতে হবে। পরবর্তীতে এটি যে অর্ডিন্যান্সে অন্তর্ভুক্ত থাকবে, তা নোটিসে উল্লেখ থাকতে হবে। পাশাপাশি, এ ধরনের কার্যক্রম তদারকির জন্য একটি কমিটি করতে হবে এবং কমিটি গঠনের বিষয়টিও নোটিসে উল্লেখ করতে হবে। ৪. বুয়েটে পূর্বে ঘটে যাওয়া সকল ছাত্র নির্যাতন, হয়রানি, র‌্যাগিংয়ের ঘটনা এবং ভবিষ্যতে এরকম ঘটনা প্রকাশের জন্য বিআইআইএস অ্যাকাউন্টে একটি কমন প্ল্যাটফর্ম থাকতে হবে। বিষয়টি মনিটরিংয়ের মাধ্যমে শাস্তি বিধানের জন্য একটি কমিটি থাকতে হবে। বিষয়টি নোটিসের মাধ্যমে নিশ্চিত করতে হবে। ৫. প্রত্যেক হলের সকল ফ্লোরের দুই পাশে সিসি ক্যামেরা যুক্ত করতে হবে এবং এই সিসিটিভি ফুটেজ সার্বক্ষণিক মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা করা হবে- এই মর্মে নোটিস আসতে হবে। এই পাঁচ শর্ত তুলে ধরে শিক্ষার্থী প্রতিনিধি বলেন, আমরা চাই না ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে বুয়েটে ১৯ ব্যাচের যে শিক্ষার্থীরা আসবে, তারা একটি অসুস্থ অ্যাক্যাডেমিক কালচারের অংশ হোক। শনিবারের (১২ অক্টোবর) সড়ক অবরোধ করে তারা আন্দোলন চালিয়ে যাবেন বলেও ঘোষণা দিয়েছেন। আগামী ১৪ অক্টোবর বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা হওয়ার কথা। কিন্তু তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ খুন হওয়ার পর শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যে সেই পরীক্ষা নিয়ে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়। গত রোববার (৬ অক্টোবর) দিবাগত মধ্যরাতে বুয়েটের সাধারণ ছাত্র ও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আবরার ফাহাদকে শেরে-ই-বাংলা হলের দ্বিতীয় তলা থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যান। সোমবার (৭ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৬টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন ছিল। আবরার ফাহাদ বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের (ইইই) বিভাগের লেভেল-২ এর টার্ম ১ এর ছাত্র ছিলেন। তিনি শের-ই-বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষে থাকতেন। তার বাড়ি কুষ্টিয়া শহরে। কুষ্টিয়া জেলা স্কুলে তিনি স্কুলজীবন শেষ করে নটরডেম কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন।
মিরপুর ১৩র ফ্ল্যাট থেকে মা-বাবা-ছেলের লাশ উদ্ধার
১০অক্টোবর,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: মিরপুরে একটি ফ্ল্যাট থেকে বাবা, মা ও ছেলের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মিরপুর-১৩ এলাকায় সেকশনের বি ব্লকের ৫ নম্বর সড়কের ১০ নম্বর বাড়ির একটি ফ্ল্যাট থেকে এই লাশ উদ্ধার করা হয়। জানা যায়, ওই ফ্ল্যাটে বায়েজিদ নামের এক ব্যক্তি তার স্ত্রী ও কলেজে পড়ুয়া ছেলে নিয়ে থাকতেন। কেন ও কিভাবে এ ঘটনা ঘটেছে সেই সম্পর্কে পুলিশ কিছু না জানালেও এর সত্যতা নিশ্চিত করেছে কাফরুল থানা পুলিশ। লাশ ও ঘটনার আলামত সংগ্রহ করতে বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) দুপুরে বাসাটিতে প্রবেশ করেছে সিআইডির ক্রাইমসিন ইউনিট।

জাতীয় পাতার আরো খবর