বঙ্গবন্ধুকে বিশ্ববন্ধু আখ্যা
১৭আগস্ট,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: প্রথমবারের মতো জাতিসংঘ সদর দপ্তরে যথাযোগ্য মর্যাদায় সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুকে ফ্রেন্ড অব দ্য ওয়ার্ল্ড বা বিশ্ববন্ধু হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন বক্তারা। জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন এ আয়োজন করে। শুক্রবার (১৬ আগস্ট) স্থায়ী মিশনের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সোয়া ৬টায় জাতিসংঘের একটি কনফারেন্স রুমে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে জাতিসংঘের সদস্য দেশগুলোর স্থায়ী প্রতিনিধি, কূটনীতিক, জাতিসংঘের কর্মকর্তা, নিউইয়র্কস্থ যুক্তরাষ্ট্রের মূল ধারার মানবাধিকারকর্মী, লেখক, চলচ্চিত্রশিল্পী, টিভি উপস্থাপক, ফটোগ্রাফার, প্রকৌশলীসহ বিভিন্ন পেশার বিশিষ্টজনরা অংশ নেন। এর আগে সকাল ৯টায় স্থায়ী মিশনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখার মাধ্যমে জাতির পিতার ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস পালনের কর্মসূচি শুরু হয়। কর্মসূচির শুরুতে ১৫ আগস্টের শহীদদের উদ্দেশে মিশনের সব কর্মকর্তা-কর্মচারী এক মিনিট নীরবতা পালন করেন। এরপর জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর দেওয়া বাণী পাঠ করা হয়। পরে ১৫ আগস্টের শহীদদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। বিকালে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে আয়োজিত শোক দিবসের মূল অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন। এ সময় দেশি-বিদেশি অতিথিরা জাতির পিতার স্মৃতির প্রতি সম্মান জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন। এরপর জাতির পিতার জীবন ও কর্ম এবং বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা সংগ্রাম বিশেষ করে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বঙ্গবন্ধুর ভূমিকা তুলে ধরে একটি ভিডিওচিত্র প্রদর্শন করা হয়। আলোচনা অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু ও বহুপাক্ষিকতাবাদ বিষয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জাতিসংঘের সাবেক আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল ও জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত আনোয়ারুল করিম চৌধুরী। এতে বক্তব্য দেন ভারত, সার্বিয়া ও কিউবার স্থায়ী প্রতিনিধি এবং প্যালেস্টাইনের স্থায়ী পর্যবেক্ষকরা। প্রবাসী বাঙালি সম্প্র্রদায়ের পক্ষে বক্তব্য দেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান। সাংস্কৃতিক পর্বে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কবিতা ও গান পরিবেশন করা হয়। সবশেষে জাতির পিতা, বঙ্গমাতা এবং ১৯৭৫-এর ১৫ আগস্টের সেই কালরাতে স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তির হাতে নৃশংসভাবে নিহত বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্য এবং জাতীয় চার নেতাসহ মহান মুক্তিযুদ্ধের সব শহীদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত মাসুদ জনগণের ক্ষমতায়ন, মানবাধিকারের সুরক্ষা, অর্থনৈতিক ও সামাজিক মুক্তি, গণতন্ত্র, শান্তি ও সহাবস্থানের ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধুর রেখে যাওয়া আদর্শ তুলে ধরেন। জাতিসংঘ সদর দপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতির পিতার শাহাদাতবার্ষিকীর এই অনুষ্ঠান আয়োজনের প্রেক্ষাপট উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা আগামী বছর বিশ্বব্যাপী জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করতে যাচ্ছি। এ উপলক্ষে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে বিশেষ অনুষ্ঠান আয়োজন করা হবে। পাশাপাশি ২০২১ সালে উদযাপন করা হবে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী। এসব অনুষ্ঠানে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে তিনি স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ করার আহ্বান জানান। ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি সৈয়দ আকবরউদ্দিন বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের গভীর বন্ধুত্ব ও ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্কের বিষয় উল্লেখ করে বলেন, ১৫ আগস্ট ভারতের স্বাধীনতা দিবস। কিন্তু ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট যখন ভারতবাসী তাদের অকৃত্রিম বন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যার ঘটনা জানতে পারে তখন ভারতের স্বাধীনতা দিবসের আনন্দ মুহূর্তেই বিষাদে রূপ নেয়। বাংলাদেশকে উন্নয়নের বিস্ময় হিসেবে অভিহিত করে তিনি বলেন, এটি সম্ভব হয়েছে কারণ বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বাংলাদেশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। সার্বিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি মিলান মিলানোভিচ দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইভিকা দাচিচের বাণী পড়ে শোনান। এই বাণীতে সার্বিয়ান পররাষ্ট্রমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে সাবেক যুগোশ্লাভিয়ার রাষ্ট্রনায়ক জোসেফ ব্রোজো টিটোর যে বন্ধুত্ব ও গভীর সম্পর্ক তা তুলে ধরেন এবং বঙ্গবন্ধুর বিখ্যাত উক্তি বাংলার মানুষের প্রতি ভালোবাসাই আমার সবচেয়ে বড় শক্তি, আর আমার সবচেয়ে বড় দুর্বলতাও এটা যে আমি তাদের অনেক বেশি ভালোবাসি। কিউবার রাষ্ট্রদূত আনা সিলভিয়া রদ্রিগেজ আবাসকাল তার বক্তব্যে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে কিউবার দেওয়া অকুণ্ঠ কূটনৈতিক সমর্থনের কথা তুলে ধরেন। নির্যাতিতের পক্ষে ও মানবাধিকারের প্রশ্নে বঙ্গবন্ধুর অনন্য সাধারণ নেতৃত্ব, প্রচেষ্টা ও সাহসের কথা বলতে গিয়ে তিনি ১৯৭৩ সালে কিউবার মহান নেতা ফিদেল কাস্ত্রোর সেই বিখ্যাত উদ্ধৃতি আমি হিমালয় দেখিনি, কিন্তু বঙ্গবন্ধুকে দেখেছি, তাই হিমালয় দেখার সাধ আর আমার নেই উল্লেখ করেন। প্যালেস্টাইনের স্থায়ী প্রতিনিধি রিয়াদ এইচ মনসুর ফিলিস্তিনি নেতা ইয়াসির আরাফাতের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের গভীর ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে বলেন, আজ ৪৪ বছর পর এই জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাতবার্ষিকী পালন করা হচ্ছে, যা এই বিশ্বনেতার প্রতি সম্মান প্রদর্শনের একটি অনন্য উদ্যোগ। সূত্র : বাসস
কাঁচা চামড়া কেনা শুরু করেছেন ট্যানারি মালিকরা
১৭আগস্ট,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: নড়েচড়ে বসেছে ট্যানারি মালিকরা। দেশীয় শিল্প রক্ষায় কাঁচা চামড়া রপ্তানির সরকারি সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি জানানোর পরে আজ শনিবার থেকে কুরবানির পশুর লবণযুক্ত কাঁচা চামড়া কেনা শুরু করেছেন ট্যানারি মালিকরা। আজ শনিবার (১৭ আগস্ট) সকালে বিষয়টি এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত উল্লাহ। তিনি বলেন, আনুষ্ঠানিকভাবে আমরা ট্যানারি মালিকরা লবণযুক্ত কাঁচা চামড়া আজ থেকে কেনা শুরু করেছি। সরকার নির্ধারিত মূল্যে আগামী দুই মাস চামড়া সংগ্রহ করবে। যেসব চামড়া ভালোভাবে সঠিক সময়ে লবণ দিয়েছে ওইসব চামড়া ভালো দামে কিনব। এছাড়া আগামীকাল বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ট্যানারি মালিক, আড়তদার ও কাঁচা চামড়া সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বসবে। সেখানে বর্তমান চামড়ার পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হবে, এরপর বিস্তারিত জানানো যাবে বলে জানান ট্যানারি মালিকদের এ নেতা।
মিরপুরে বস্তিতে পুড়েছে প্রায় ৩ হাজার ঘর
১৭আগস্ট,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীর মিরপুর-৭ নম্বর সেকশনের ঝিলপাড় বস্তিতে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। এ ঘটনায় পুড়ে গেছে প্রায় তিন হাজার ঘর। এখন পর্যন্ত দুজনের আহতের খবর পাওয়া গেছে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা ২২ মিনিটে রূপনগর থানাধীন চলন্তিকা মোড় এলাকার বস্তিটিতে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। বিষয় ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের কন্ট্রোল রুমের ডিউটি অফিসার মো. এরশাদ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। আগুন লাগার খবর পেয়ে প্রথমে ফায়ার সার্ভিসের ১৫টি ইউনিট আগুন কাজ শুরু করে। পরে আরও পাঁচটি ইউনিট যোগ দেয়। শেষ পর্যন্ত মোট ২৪ ইউনিট ফায়ার সার্ভিসের তিন ঘণ্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। প্রথামিকভাবে আগুন লাগার কারণ জানা যায়নি। ডিউটি অফিসার মো. এরশাদ হোসেন বলেন, আপাতভিত্তিতে এ ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণও জানা যায়নি। জানা গেছে, বস্তিতে প্রায় সাড়ে সাত হাজার ঘর আছে। কোনো কোনো ঘর ঘর দুই বা তিনতলা বিশিষ্ট। ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশের সদস্যরা জানিয়েছেন, আগুনে প্রায় তিন হাজার ঘর পুড়ে গেছে। ঘরপ্রতি গড়ে চারজন সদস্য করে মোট ১০ হাজারের বেশি মানুষ বসবাস করতেন এই বস্তিতে। ঘরপ্রতি ১২০০-১৫০০ টাকা করে ভাড়া দেওয়া হতো। রাত পৌনে ১১টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের ডিরেক্টর অপারেশন (মেইনটেনেন্স) লে. কর্ণেল জিল্লুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, মোট ২৪টি ইউনিটের তিন ঘণ্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। তদন্তের পর ক্ষয়ক্ষতির পরিমান এখনই বলা যাবে না।
ইয়াবাসহ বরগুনার মেয়রের ছেলে গ্রেপ্তার
১৭আগস্ট,শনিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম: রাজধানীতে ইয়াবাসহ আবদুল্লাহ আল মামুন নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পুলিশ জানায়, গ্রেপ্তার হওয়া আবদুল্লাহ আল মামুন বরগুনার পৌর মেয়র ও বরগুনা শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদত হোসেনের ছেলে। শুক্রবার (১৬ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চের সামনে থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পল্টন থানা-পুলিশ। এসময় তার কাছ থেকে ১০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। পল্টন থানার এসআই জাহাঙ্গীর আলম বলেন, মহানগর নাট্যমঞ্চের সামনে দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় সন্দেহ হলে আবদুল্লাহ আল মামুনকে তল্লাশি করে ইয়াবাসহ তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ বিষয়ে বরগুনার মেয়র শাহাদত হোসেন বলেন, ২০০৫ সাল থেকে মামুনের সঙ্গে তার পরিবারের কোনও সম্পর্ক নেই।-আরটিভি অনলাইন
জাতির পিতার চেতনা ও আদর্শ বাস্তবায়ন করবে আওয়ামী লীগ
১৫ আগস্ট,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক ,নিউজ একাত্তর ডট কম:আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন-সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জাতির পিতার পলাতক খুনিদের ফিরিয়ে এনে বিচারের মুখোমুখি করতে সরকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বৃহস্পতিবার সকালে বনানী কবরস্থানে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে একথা বলেন তিনি।এসময় ওবায়দুল কাদের বলেন, সুখী-সমৃদ্ধ অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ে তুলে, জাতির পিতার চেতনা ও আদর্শ বাস্তবায়ন করবে আওয়ামী লীগ।তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচারের রায় আজও কার্যকর হয়নি, যারা বিদেশে পালিয়ে আছে তাদের ফিরিয়ে আনতে সরকারে প্রচেষ্টা আরো বেগবান করা হয়েছে।
জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করা আমাদের দায়িত্ব
১৫ আগস্ট,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক ,নিউজ একাত্তর ডট কম:জাতির পিতা যে সোনার বাংলার স্বপ্ন দেখেছিলেন, তার সেই স্বপ্ন পূরণ করা আমাদের দায়িত্ব বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। তিনি বলেন, তাহলেই তার বিদেহী আত্মা শান্তি পাবে। বৃহস্পতিবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক রক্তদান কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান বিচারপতি এ মন্তব্য করেন। প্রধান বিচারপতি উদ্বোধনের পর সুপ্রিম কোর্ট অডিটোরিয়ামে আনুষ্ঠানিকভাবে রক্তদান কর্মসূচি শুরু হয়। বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আয়োজিত রক্তদান কর্মসূচিতে সহযোগিতা করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ট্রান্সফিউশন মেডিসিন বিভাগ। সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের ডেপুটি রেজিস্ট্রার সৈয়দা হাফসা ঝুমার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সুপ্রিম কোর্টের আপিল ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতিরা উপস্থিত ছিলেন।
বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করতে বলেছেন দুদক চেয়ারম্যান
১৫ আগস্ট,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক ,নিউজ একাত্তর ডট কম: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হলে প্রত্যেককে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করতে বলেছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। কাজে ফাঁকি দেয়া যাবেনা। দুদক কর্মকর্তাদের দায়িত্ব পালন নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রধান কার্যালয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪ তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোকদিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।দুদক চেয়ারম্যান বলেন, আসুন আমরা শপথ করি। আমরা স্ব -স্ব দায়িত্ব সততা ও নিষ্ঠার সাথে পালন করবো। তিনি দুদক কর্মকর্তদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা মহান আল্লাহ-কে হাজির-নাজির রেখে বলুন আপনারা কি সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করছেন ? এ ব্যাপারে আমার বেশ সংশয় রয়েছে। আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, দুদক সচিব মুহাম্মদ দিলোয়ার বখ্ত, মহাপিরচালক এ কে এম সোহেল, পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন, মোঃ আক্তার হোসেন, উপপরিচালক সেলিনা আক্তার, সহকারী পরিচালক শেখ গোলাম মওলা প্রমুখ। আলোচনা শেষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ই আগস্টে নিহত শহীদদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন দদুকের উপপরিচালক মোঃ রফিকুল ইসলাম।
ষড়যন্ত্রকারীদের ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করার আহ্বান
১৫ আগস্ট,বৃহস্পতিবার,কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধি ,নিউজ একাত্তর ডট কম:বৃহস্পতিবার সকালে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে কেরানীগঞ্জে দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করে আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী এবং ২০০৪ সালের গ্রেনেড হামলাকারীরা একই গোষ্ঠীর। এরা বাংলাদেশের শত্রু। এরা গণদুশমন। এদেরকে ঐক্যবদ্ধভাবে বাংলাদেশের রাজনীতি থেকে বিতাড়িত করতে হবে। । এ সময় ষড়যন্ত্রকারীদের ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করার আহ্বান জানান তিনি।যারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল, সেই গোষ্ঠীই এখন শেখ হাসিনাকে হত্যার চক্রান্ত করছে বলে মন্তব্য করেছেন অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম।
জাতির জনকের সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
১৫ আগস্ট,বৃহস্পতিবার,অনলাইন ডেস্ক,নিউজ একাত্তর ডট কম:জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪ তম মৃত্যুবার্ষিকীতে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা জানাতে টুঙ্গিপাড়ায় পৌঁছান প্রধাননমন্ত্রী। এরপর সেখানে ফাতেহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর টুঙ্গিপাড়া সফর উপলক্ষ্যে গোপালগঞ্জ জেলায় নেয়া হয়েছে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা। সতর্ক রয়েছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। বেলা ১১টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিস্থলে বিশেষ দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। সেখানেও উপস্থিত থাকবেন শেখ হাসিনা। এরপর দুপুর ১২টার দিকে ঢাকায় ফিরবেন তিনি। এর আগে ভোর সাড়ে ৬টায় রাজধানীর ধানমন্ডি ৩২ নম্বর সড়কে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে তার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী। প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর তারা কিছুক্ষণ নিরবে দাঁড়িয়ে থাকেন। এ সময় বিউগলে করুণ সুর বাজানো হয়। সশস্ত্র বাহিনীর একটি চৌকস দল গার্ড অব অনার প্রদান করেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের পর কিছুক্ষণ নিরবে দাঁড়িয়ে থাকেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী। এ সময় বিউগলে বাজানো হয় করুণ সুর। সশস্ত্র বাহিনীর একটি চৌকস দল গার্ড অব অনার দেন। পরে কোরআন তেলাওয়াত করা হয় এবং বঙ্গবন্ধুসহ ১৫ আগস্টের শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর আওয়ামী লীগ সভাপতি হিসেবে দল ও সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে দ্বিতীয়বার বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু ভবনের ভেতরে যান এবং সেখানে বেশ কিছুক্ষণ অবস্থান করেন।

জাতীয় পাতার আরো খবর